আইপিএল ২০১৭ঃ ফাইনালে দেশজুড়ে অবাধ বেটিং, পুলিশের জালে আটক একাধিক বড় বেটিং চক্র ! 1

আইপিএল এবং বেটিং যেন একে অপরের পরিপূরক হয়ে উঠেছে। সময় যত এগিয়েছে, বেরিয়ে এসেছে একের পর এক বেটিং কেলেঙ্কারি। এবারের আইপিএলে কানপুরে গুজরাট লায়ন্স এবং দিল্লি ডেয়ারডেভিলস ম্যাচের আগে ব্যাপক বেটিং চলেছে। যার জেরে কানপুর পুলিশ এ পর্যন্ত ম্যাচ বেটিংয়ের সঙ্গে যুক্ত সাতজনকে গ্রেফতার করেছে। বাদ গেল না আইপিএল দশের ফাইনাল ম্যাচটিও। মুম্বই ইন্ডিয়ান্স বনাম রাইজিং পুণে সুপার জায়েন্টের রবিবারের মহা লড়াইকে ঘিরে দেশজুড়ে চলেছে অবাধ বেটিং। আর সেই বেটিং কাণ্ডকে সামনে রেখে পুলিশ ব্যাপক ধরপাকড় চালিয়েছে দেশের সর্বত্রে।

আইপিএল ২০১৭ঃ ফাইনালে হেরে বিপক্ষ দলের সম্বন্ধে কি বললেন পুণে মালিকের ভাই হর্ষ গোয়েঙ্কা!

বেটিং করার অপরাধে পাতিয়ালা পুলিশ চারজনকে গ্রেফতার করেছে। তাদের বয়ানের ভিত্তি আরও ১৭জনের বিরুদ্ধে সাট্টাবাজির মামলা আরোপ করা হয়েছে। তাদের কাছ থেকে ছটি মোবাইল, একটা ওয়াইফাই রাউটার সহ নগদ ১ লক্ষ ৩৫ হাজার টাকা বাজেয়াপ্ত করেছে। দিল্লি পুলিশের দাবী, কলকাতা নাইট রাইডার্স বনাম মুম্বই ইন্ডিয়ান্সের মধ্যে হওয়া আইপিএলের দ্বিতীয় কোয়ালিফায়ার ম্যাচেও নাকি ব্যাপক জুয়া চলেছে।

পুণেকে হারিয়ে আইপিএল জিতে এ কেমন উচ্ছ্বাস প্রকাশ মুম্বই ক্রিকেটার জস বাটলারের!

পুলিশ সূত্রে জানা গিয়েছে, আইপিএল ফাইনাল চলাকালিন জুয়াড়িরা দিল্লির উত্তর পশ্চিম এলাকায় নানান রেস্টুরেন্টে বসে বেটিং চালিয়েছে। দিল্লি পূর্ব এলাকা শাহদরায় বেটিং চক্রের সন্ধান পেয়ে পুলিশ ছ’জনকে গ্রেফতার করেছে। তাদের কাছ থেকে দুটি ল্যাপটপ, ২২টি মোবাইল এবং এলসিডি উদ্ধার করা হয়েছে। এতেই শেষ নয়, সোমবার দিল্লি পুলিশ রোহিনী এলাকা থেকে একটা বড় চক্রকে হেফাজতে নিয়েছে, যারা আইপিএল দশের ফাইনালে বেটিং করেছিল। দিল্লি পুলিশের ক্রাইম ব্রাঞ্চ ন’জন বুকিকে ক্রাউন প্লাজা হোটেলে বেটিং করা অবস্থায় হাতে নাতে ধরে ফেলেছে। সেখানে বেটিং দরের কাগজপত্র, বেটিং বক্স, ১০টি মোবাইল উদ্ধার হয়েছে। জানা গিয়েছে, সেখানে বসে বুকিরা মোবাইলের ইন্টারনেটের মাধ্যমে অনলাইনে আইপিএল ফাইনালের বেটিং চালাচ্ছিল।

আইপিএল ফাইনালে বেটিং করতে গিয়ে ৪৩টি মোবাইল সহ পাঁচজন জুয়াড়ি ধরা পড়েছে রাজস্থানের নামকরা শহর ভিলওয়ারা থেকে। ঠিক তখনই উত্তরপ্রদেশের সম্বলপুর জেলার চন্দৌশি পুলিশ চার সদস্যের এক বেটিংচক্রকে গ্রেফতার করেছে। তাদের কাছ থেকে ১ লক্ষ ১৭ হাজার টাকা উদ্ধার হয়েছে। গাজিয়াবাদে ছ’জন বুকিকে ধরা হয়েছে ৭০ হাজার টাকা সমেত। এছাড়া তাদের কাছে সাতটি মোবাইল ফোন সহ একটি মারুতি কার, একটি মোটর সাইকেল পাওয়া গিয়েছে।

জনৈক ট্যুইটার ব্যবহারকারি ফিক্সিং’র অভিযোগ ছুঁড়ে দিলেন আইপিএলের দিকে!

Leave a comment

Your email address will not be published.