ভারতীয় ক্রিকেটের নিয়ামক সংস্থা বোর্ড অফ কন্ট্রোল ফর ক্রিকেট ইন ইন্ডিয়া (বিসিসিআই) এবং সুপ্রিম কোর্টের বসানো কমিটি অফ অ্য়াডমিনিস্ট্রেটর্স (সিওএ) ভারতীয় ক্রিকেট দলের কোচ নিয়োগ করা নিয়ে যা শুরু করেছিল, তাতে ছি ছি করছে ক্রীড়া মহল। শাস্ত্রীকে কোচ হিসেবে ঘোষণা করায়, খানিকটা মুখ বাঁচিয়েছে কমিটি অফ অ্য়াডমিনিস্ট্রেটর্স। তবে, এখনও ঝুলে রয়েছে জাহির খান ও রাহুল দ্রাবিড়ের ভাগ্য়। সমস্য়া সমাধান করতে গিয়ে শাস্ত্রীতে শিলমোহর দিলেও কমিটি অফ অ্য়াডমিনিস্ট্রেটর্স ওই দুই লেজেন্ডের ভাগ্য় নির্ধারণের দায়িত্ব সঁপে দিয়েছে নবনিযুক্ত হেড কোচের হাতেই। কারণ, জাহিরকে নিয়োগ করা নিয়ে শাস্ত্রী আর সৌরভের মধ্য়ে যে কোন্দল চলছে, তার মাঝে পড়তে চায় না সুপ্রিম কোর্টের কমিটি।

এদিকে, কমিটি অফ অ্য়াডমিনিস্ট্রেটর্সের প্রাক্তন সদস্য় রামাচন্দ্র গুহ অকারণে এইভাবে পারস্পরিক সংঘাতে জাহির ও দ্রাবিড়ের ভাগ্য়কে অনিশ্চয়তায় ঝুলিয়ে রাখাকে অত্য়ন্ত অপমানজনক হিসেবে দেখছেন। মাইক্রো-ব্লগিং সাইট ট্য়ুইটারে গুহ লিখেছেন, অনিল কুম্বলের সঙ্গে যেমন অপমানজনক ব্য়বহার করা হয়েছিল, সেই একইরকম অপমানজনক ব্য়বহার করা হচ্ছে জাহির খান ও রাহুল দ্রাবিড়ের সঙ্গেও।” 

রামাচন্দ্র গুহ

এখানে দেখুনঃ কাগুজে বাঘ সুপ্রিম কমিটির চালে দ্রাবিড়ের মতো ভদ্রলোকের ভাগ্য়ও শাস্ত্রীর হাতে

তাঁর পরবর্তী ট্য়ুইট, কুম্বলে, দ্রাবিড় ও জাহির খুব বড় মাপের ক্রিকেটোর ছিলেন। ক্রিকেট কেরিয়ারে নিজেদের সেরাটা দিয়েছিলেন ভারতীয় দলকে। তিন জনেই কিংবদন্তি। জনসমক্ষে ওঁদের যেভাবে এখন অপমান করা হচ্ছে, এটা ওঁদের প্রাপ্য় ছিল না।

অনিল কুম্বলে
জাহির খান
রাহুল দ্রাবিড়

রামাচন্দ্রের পরের ট্য়ুইট, মিটিং-এর কথা বলা হচ্ছে। দুই উপদেষ্টাকে (জাহির ও দ্রাবিড়) নিয়োগ করা হবে কি না, সেটা কমিটি সিদ্ধান্ত নেবে, তাও হেড কোচের সঙ্গে আলোচনা করে।” এখানে উল্লেখ্য়, কমিটির সদস্য় থাকাকালীন ভারতীয় ক্রিকেটে সুপারস্টার কালচারে বিরুদ্ধে সরব হয়েছিলেন গুহ। কয়েকজন ক্রিকেটারের স্বার্থের সংঘাতের বিরুদ্ধেও সরব হয়েছিলেন। কিন্তু, শেষ পর্যন্ত ভারতীয় ক্রিকেটের অন্দরে এইসব পুরনো নীতি বদলাতে না পেরে নিজেই সরে যান।

প্রসঙ্গত, ১২ জুলাই কোচের নাম জানানো হবে বলার পর ক্রিকেট অ্য়াডভাইজরি কমিটি গত ১১ জুলাই  সুপ্রিম কোর্টের কমিটি তাড়া খেয়ে হেড কোচের নাম প্রকাশ করে দেয় একদিন আগে। বিসিসিআই তাদের বিবৃতিতে সংবাদ মাধ্য়মকে জানায়, রবি শাস্ত্রীকে হেড কোচ করা হচ্ছে, জাহির খানকে বোলিং উপদেষ্টা ও রাহুল দ্রাবিড়কে বিদেশ সফরে টেস্ট সিরিজের জন্য় ব্য়াটিং উপদেষ্টা করা হচ্ছে। খবর ছড়িয়ে পড়ে যে শাস্ত্রীকে সৌরভ কোচ করতে চাননি। জাহিরকে বোলিং উপদেষ্টা করার শর্তে তিনি রাজি হন। এই সুযোগে শাস্ত্রীও ময়দানে নেমে পড়েন। তাঁকে না জানিয়েই জাহির ও দ্রাবিড়কে নিয়োগ করা হচ্ছে বলে তোপ দাগেন। সৌরভও পাল্টা মিথ্য়েবাদী বলে অভিযোগ আনেন পরোক্ষে। পরিস্থিতি বেগতিক দেখে সৌরভ পিছু হঠেন এবং মীমাংসার দায় অ্য়াডমিনিস্ট্রেটর্স কমিটির ঘাড়ে চাপিয়ে দিয়ে বলতে শুরু করেন জাহিরকে একশো পঞ্চাশ দিনের চুক্তিতে বিদেশ সফরের জন্য় নেওয়া হচ্ছে।

 আরোও দেখুনঃ সৌরভের জোরালো দাবি এবার প্রশ্নের মুখে – শাস্ত্রী নয়, কোহলির প্রথম পছন্দ ছিলেন সেহওয়াগ