ক্রিকেটকে বিদায় বললেন ভারতের এই সাবেক ক্রিকেটার 1

 

১৯৯৩ সালে আহমেদাবাদে শেষবারের মত ভারতকে প্রতিনিধিত্ব করেছিলেন অজয় কুমার, ২৪ বছর পর এবার ২০১৭ তে এসে সব ধরনের ক্রিকেট হতে অবসরের ঘোষনা দেন এই সাবেক জাতীয় দলের তারকা ব্যাটসম্যান। জাতীয় দল ছাড়াও খেলেছেন দিল্লীর হয়ে। গত শুক্রবার ১১ আগস্ট ঘোষনা দেন অবসরের। অজয় কুমার শর্মা প্রথম-শ্রেণীর ক্রিকেটে প্রচুর রান করেন, প্রধানত দিল্লির হয়ে, ৬৭.৪৬ গড়ে তিনি ১০,০০০-এরও বেশি রান করেন। প্রথম শ্রেণীর ক্রিকেটে কমপক্ষে ৫০ ইনিংস খেলেছেন এমন ধরলে, মাত্র তিনজন খেলোয়াড়ের (স্যার ডোনাল্ড ব্র্যাডম্যান , বিজয় মার্চেন্ট ও জর্জ হ্যাডলি) বেশি গড় আছে। ১৯৮৪-৮৫ সালে দিল্লীর হয়ে প্রথম শ্রেণীর ক্রিকেটে অভিষেক হয় এই ব্যাটসম্যানের, আর ১৯৮৮ সালে ওয়েস্ট উইন্ডিজের ভারত সফরতের সময় অভিষেক ঘটে ওয়ান ডে। আর এর মাত্র নয় দিন পরেই একই প্রতিপক্ষের বিরুদ্ধে খেলেন জীবনের একমাত্র টেস্ট ম্যাচ, যাতে ছিলেন জয়ী দলের সদস্য। কাকতালীয় ভাবে পাঁচ বছর ১৯৯৩ সালে আহমেদাবাদে ওয়েস্ট উইন্ডিজের বিরুদ্ধে ই খেলেন ক্যারিয়ারের শেষ আন্তর্জাতিক ম্যাচ।

গত শুক্রবার বিসিসিআইর কাছে লেখা এক চিঠিতে শর্মা লিখেন, “দয়া করে আমার এই চিঠিকে আন্তর্জাতিক ও ঘরোয়া ক্রিকেট হতে আমার আনুষ্ঠানিক বিদায় পত্র হিসেবে গ্রহন করুন।” ৫৩ বছর বয়সী এই ব্যাটসম্যান আরো লিখেন, “ভারতের হয়ে খেলতে পারা আমার জীবনের স্মরণীয় ঘটনা এবং সহ খেলোয়ার ও ভক্তরা আমার এই অভিজ্ঞা কে চির স্মরণীয় করে রাখবে। আমি বিভিন্ন কোচ ও ট্রেইনার যা শিখেছি তা আমার উন্নয়নে সহায়ক হয়েছে এবং আমি তা খেলার মাধ্যমে ছড়িয়ে দিতে চেয়েছি।”

১৭ বছরের প্রথম শ্রেণীর ক্রিকেটে ১২৯ ম্যাচে ১০১২০ রান করা এই ব্যাটসম্যান ১৯৯৩ সালে ম্যাচ ফিক্সিং এর অভিযোগে অভিযুক্ত হয় এবং বিসিসিআই তাকে আজীবনের জন্য বহিষ্কার করলে তিনি তার বিরুদ্ধে লড়াই করে ২০১৪ সালে জয়ী হোন। দিল্লীর একটি কোর্টের মাধ্যমে ২০১৪ সালে শর্মা জয়ী হলেও অপেক্ষা করছিলেন বোর্ড তার অভিযুক্ত তালিকা হতে বাদ দেয় কিনা এবং তার বকেয়া দেয় কিনা। “আমি কিছু কারিগরি কারনে অপেক্ষা করছিলাম যাতে করে আমার অবসর ভাতা ও অন্যান্য সুবিধে পাওয়া যায়”, বলেন সাবেক এই ব্যাটসম্যান যিনি প্রথম শ্রেণীর ক্রিকেটে ৩৮ টি শতক করেন যা তার ৩৬ টি অর্ধ শতকের চেয়ে বেশি। তিনি বলেন, “আমি বিসিসিআই ধন্যবাদ দিতে চাই এজন্য যে তারা আমাকে বছরের পর বছর সমর্থন দিয়েছে এবং বিসিসিআইর প্রতি আমার কৃতজ্ঞতা কারন তারা আমাকে ভারতের হয়ে খেলার সুযোগ দিয়েছে এবং সর্বোচ্চ পর্যায়ে খেলার অনুমোদন দিয়েছে। আমি ডিডিসিএ কেও আমার ধন্যবাদ জানাতে চাই কারন তারাও আমাকে বছরের পর বছর সমর্থন ও নির্দেশনা দিয়েছেন। অজয় শর্মার পুত্র মনন ও একজন ক্রিকেটার, তিনিও নিয়মিত দিল্লীর হয়ে খেলেন, এ পর্যন্ত ২৬ প্রথম শ্রেণীর ম্যাচ তিনি খেলেছেন। খেলেছেন অনুর্দ্ধ ১৯ দলেও।

Nazmus Sajid

Sports Fanatic!

Leave a comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *