ভারত ম্য়াচ হারায় অকারণ খোঁচা, ব্রিটিশ সাংবাদিককে যোগ্য় জবাব দিলেন বীরু 1
বীরেন্দ্র সহবাগ

পিয়ার্স মরগ্য়ান – ব্রিটিশ সাংবাদিক ও টেলিভিশন ব্য়ক্তিত্ব। নামটা হয়ত অনেকে শুনেছেন। আবার অনেকে শোনেনি। সাংবাদিকতার জন্য় যতটা না বিখ্য়াত, তার চেয়ে বেশি বিখ্য়াত বিতর্কিত মন্তব্য় করার জন্য়। বিতর্ক আর মরগ্য়ান যেন সঙ্গে সঙ্গে চলেন।

ভারত ম্য়াচ হারায় অকারণ খোঁচা, ব্রিটিশ সাংবাদিককে যোগ্য় জবাব দিলেন বীরু 2
পিয়ার্স মরগ্য়ান

রবিবার লর্ডসে আইসিসি মহিলা ক্রিকেট বিশ্বকাপের ফাইনাল ছিল ইংল্য়ান্ড ও ভারতের মধ্য়ে। ২০০৫-এর বিশ্বকাপ ফাইনালিস্ট ভারত এবারের সেমিফাইনালে ছ-বারের বিশ্ব চ্য়াম্পিয়ন অস্ট্রেলিয়াকে হারিয়ে ফাইনালের টিকিট ছিনিয়ে নিয়েছিল। গোটা ক্রিকেট বিশ্বকে মুগ্ধকরে ভারতের মেয়েদের পারফরমেন্স। অনেকেই ধরে নিয়েছিলেন, এবার ভারতীয় মহিলা ক্রিকেট দল প্রথমবারের জন্য় বিশ্ব চ্য়াম্পিয়ন হচ্ছেই। কিন্তু, শেষ পর্যন্ত হাড্ডাহাড্ডি লড়াইয়ের পর ইংল্য়ান্ড চতুর্থবারের জন্য় বিশ্ব চ্য়াম্পিয়ন হয়। আর তারপরই ট্য়ুইটারে অকারণে ভারতের প্রাক্তন ওপেনার বীরেন্দ্র সেহওয়াগকে খোঁচা মারেন পিয়ার্স মরগ্য়ান।

ভারত ম্য়াচ হারায় অকারণ খোঁচা, ব্রিটিশ সাংবাদিককে যোগ্য় জবাব দিলেন বীরু 3
ছবি সংগৃহিতঃ ইএসপিএনক্রিকইনফো

বীরু উদ্দেশ্য় করে মরগ্য়ান লেখেন, তুমি ঠিক আছো বন্ধু?” এর সঙ্গে তিনটি হাসির ইমোজি যোগ করেন আর সঙ্গে দেন হ্য়াসট্য়াগ মহিলা বিশ্বকাপ ক্রিকেট ২০১৭ ফাইনাল।

সেহওয়াগ একটি ভিডিও সোশ্য়াল নেটওয়ার্কিং সাইটে শেয়ার করেছিলেন। সেখানে দেখা যায়, ম্য়াচের আগে সেহওয়াগ ভারতীয় মহিলা দলের ক্রিকেটারদের ফাইনালের জন্য় শুভেচ্ছা জানাচ্ছেন। মহিলা দলের প্রতিভাবান ক্রিকেটার হরমনপ্রীত তাঁর অতি পছন্দের ক্রিকেটারকে সামনে পেয়ে কথা বলেন। তাঁকে বলতে শোনা যায় যে, গোটা টিম ফাইনালের জন্য় ফোকাসড। ড্রেসিংরুমে সবাই উজ্জীবিত।

ভারত ম্য়াচ হারায় অকারণ খোঁচা, ব্রিটিশ সাংবাদিককে যোগ্য় জবাব দিলেন বীরু 4
বীরেন্দ্র সহবাগ

বীরু ম্য়াচ চলাকালীন ট্য়ুইট করেছিলেন, ভারতীয় মহিলা দল জিতবে এই আশা নিয়ে। ভারত হেরে যাওয়ার পর মরগ্য়ান ট্য়ুইট করতে শুরু করেন। বীরুও তার জবাব দেন, ভারতের মেয়েরা ম্য়াচ হারলেও গোটা দেশ তাদের পারফরম্য়ান্সে গর্বিত। তোমার জীবনে সেই অনুভূতিটা কোনও দিনও আসবে না। আমি এবং সব ভারতবাসী এই হারেও গর্বিত। তুমি তো সেটাও কোনও দিন পেতে পারবে না। আমরা লড়েছি, আরও ভালো হয়েছি, আরও শক্তিশালী হয়েছি। বদলটা আমরা উপভোগ করি।

উল্লেখ্য়, ২০০৫-এর পর এই নিয়ে দ্বিতীয়বার ভারতীয় মহিলা ক্রিকেট দল বিশ্বকাপের ফাইনালে ওঠে। প্রথমে ব্য়াট করে ২২৮ রান তোলে ইংলিশ ক্রিকেট টিম। ৫০ ওভারের খেলায় ভারত এরপর রান তাড়া করতে নেমে ২১৯ রানে শেষ হয়ে যায়। ওপেনার স্মৃতি ও অধিনায়িকা মিতালি রাজ চটপট ফিরে গেলেও বেশ টানছিলেন সেমিফাইনাল ম্য়াচের জয়ের মূল কাণ্ডারী হরমনপ্রীত ও ওপেনার পুনম। কিন্তু, অভিজ্ঞতা কম হওয়ায় এমন হাইভোল্টেজ ম্য়াচে হঠকারী শট নিয়ে কয়েকটা আউট ম্য়াচের মোড় ঘুরিয়ে দেয় ইংল্য়ান্ডের অনুকূলে। ৯ রানে ম্য়াচটি ইংল্য়ান্ড জিতে নিলেও বরাবরই ভারত ম্য়াচের মধ্য়ে ছিল। স্নায়ুর চাপটা নিতে না পারাতেই এমনটা হল ম্য়াচের পর মেনে নিয়েছেন মিতালিও।

Leave a comment

Your email address will not be published.