টি-২০ বিশ্বকাপ ২০২২-এর (T20 World Cup 2022) সেমিফাইনালে ইংল্যান্ডের কাছে শোচনীয় পরাজয়ের পর এই টুর্নামেন্টের সেমিফাইনাল থেকে বাদ পড়েছে টিম ইন্ডিয়া। পরাজয়ের পরে, আইসিসির আরও একটি ইভেন্টে ভারতীয় দলের আবার হতাশাজনক পারফরমেন্সের জন্য বেশ কয়েকজন ক্রিকেট বিশেষজ্ঞ তীব্র প্রতিক্রিয়া জানিয়েছেন। এই তালিকায় এবার যোগ হয়েছে প্রাক্তন ভারতীয় ওপেনার বীরেন্দ্র সেহওয়াগের নাম। ২০২৪ টি-২০ বিশ্বকাপে বর্তমান ভারতীয় দলের বেশ কিছু খেলোয়াড়দের আর দেখতে চান না বীরু।

প্রাক্তন বিস্ফোরক ওপেনার বর্তমান ভারতীয় দলের মানসিকতা সম্পর্কে কথা বলা থেকে বিরত ছিলেন। কিন্তু ২০০৭ সালের টি-২০ বিশ্বকাপ জয়ী ভারতীয় দলের উদাহরণ তুলে ধরেন যে দলে অনেক তরুণ মুখ ছিল। সেহওয়াগ বিশ্বাস করেন যে একটি তরুণ দল আগামী বিশ্বকাপে কম প্রত্যাশা নিয়ে আরও ভাল করবে এবং সেই দল হবে যা দেশকে একটি নতুন যুগে নিয়ে যাবে।

কী বললেন বীরেন্দ্র সেহওয়াগ?

T20 World Cup 2022: দলের সিনিয়র ক্রিকেটারদের বাইরের রাস্তা না দেখালে সাফল্য আসবে না, ভারতীয় দল নিয়ে ফাঁস গোপন তথ্য !! 1

বীরেন্দ্র শেবাগ বলেন, “আমি মানসিকতা এবং অন্যান্য বিষয় নিয়ে কথা বলবো না তবে আমি অবশ্যই এই দলে কিছু পরিবর্তন চাই। কিছু মুখ যাদের আমি পরের বিশ্বকাপে দেখতে চাই না। ২০০৭ সালের টি-২০ বিশ্বকাপে আমরা দেখেছিলাম যে অভিজ্ঞ খেলোয়াড়রা সেই বিশ্বকাপে যায়নি। একগুচ্ছ তরুণ খেলোয়াড় ছিল যাদের তেকে কেউ খুব একটা আশা করেনি। আমি আগামী বিশ্বকাপের জন্য একই ধরনের দল বেছে নিতে চাই।”

সেহওয়াগ আরও বলেছেন যে, বর্তমান টি-২০ সেট আপ থেকে কিছু বড় খেলোয়াড়কে বাদ দেওয়ার জন্য টিম ম্যানেজমেন্ট এবং নির্বাচকদের নতুন দলকে কঠোর সিদ্ধান্ত নিতে হবে। প্রাক্তন ক্রিকেটার কোনও নাম প্রকাশ করেননি তবে ভারতীয় ওপেনার কেএল রাহুল এবং রোহিত শর্মার খারাপ পারফরমেন্স তাদের টুর্নামেন্টের পরবর্তী ম্যাচগুলি থেকে বাদ পড়ার সম্ভাব্য প্রতিযোগী করে তুলেছে। এই দলটি যদি একই খেলোয়াড়দের নিয়ে ২০২৪ বিশ্বকাপে যায়, তাহলে ফলাফল একই রকম হবে বলে মনে করেন তিনি।

‘পরের বিশ্বকাপে তরুণ দল চাই’

T20 World Cup 2022: দলের সিনিয়র ক্রিকেটারদের বাইরের রাস্তা না দেখালে সাফল্য আসবে না, ভারতীয় দল নিয়ে ফাঁস গোপন তথ্য !! 2

শেবাগ আরও যোগ করেন, “আমি পরের বিশ্বকাপে সেই সিনিয়রদের দেখতে চাই না যারা এবার ভালো পারফর্ম করেনি। আশা করি নির্বাচকরাও একই সিদ্ধান্ত নেবেন। কিন্তু সমস্যা হল, এই নির্বাচকরা কি আগামী বিশ্বকাপ পর্যন্ত তাকবেন? তারপর একটি নতুন নির্বাচন প্যানেল হবে, নতুন ব্যবস্থাপনা, নতুন পদ্ধতির, তাহলে তারা কি পরিবর্তন করবে? তবে একটা বিষয় পরিষ্কার, একই দল আগামী বিশ্বকাপেও একই রাস্তা অনুসরণ করলে ফলাফল একই হবে।”

Leave a comment

Your email address will not be published.