কখনও মজদুরি করতেন এই ক্রিকেটার, এখন প্রীতি জিন্টার কাছ থেকে আইপিএলে পাচ্ছেন ২ কোটি 1

আইপিএল ২০২তে পাঞ্জাব কিংসের দলে যোগ দেওয়া তরুণ ক্রিকেটার রবি বিষ্ণোই ১৪টি ম্যাচ খেলেছিলেন যার মধ্যে তিনি ১২টি উইকেট নিয়েছিলেন। দলে লেগ স্পিনারের ভূমিকা পালন করা এই খেলোয়াড় দলের হয়ে প্রধান স্পিনার হয়ে উঠেছিলেন। ২০২০তে তার ইকোনমি রেটও ছিল ৮ এর নীচে।
আইপিএলে খেলার আগে তিনি একজন শ্রমিক হিসেবে কাজ করতেন। তিনি ঘরয়া টি-২০ লীগের ২৭টি ম্যাচে ২৯টি উইকেট নিয়েছেন। সেই সঙ্গে তিনি নতুন খেলোয়াড়দের জন্য প্রেরণাও হয়ে উঠেছিলেন। তিনি আইপিএলে খেলার নিজের অভিজ্ঞতা শেয়ার করেছেন।

পাননি কোনো সুবিধা

কখনও মজদুরি করতেন এই ক্রিকেটার, এখন প্রীতি জিন্টার কাছ থেকে আইপিএলে পাচ্ছেন ২ কোটি 2

রাজস্থানের যোধপুরে জন্মানো রবি বিষ্ণোইয়ের বয়স এখন ২০ বছর আর তিনি সম্পতি একটি স্পোর্টস ইউটিউব চ্যানেলকে দেওয়া সাক্ষাৎকারে নিজের কথা বলেছেন। তার একজন শ্রমিক হওয়া থেকে শুরু করে ক্রিকেট খেলোয়াড় হওয়া পর্যন্ত সফরের কথা বলেছেন।

রবি জানিয়েছেন যে তার এলাকায় একটিও ক্রিকেট অ্যাকাডেমি ছিল না আর তার কাছে কোনো রকম সুযোগ সুবিধাও ছিল না। তা সত্ত্বেও তিনি নিজের ক্রিকেট খেলার স্বপ্নকে ছাড়েননি। এর জন্য তিনি নিজের কোচ প্রদ্যোত সিং রাঠোর আর শাহরুখ পাঠানএর সঙ্গে মিলে স্পার্টন্স ক্রিকেট অ্যাকাডেমির শুরু করেন।

করেছেন শ্রমিকের কাজ

কখনও মজদুরি করতেন এই ক্রিকেটার, এখন প্রীতি জিন্টার কাছ থেকে আইপিএলে পাচ্ছেন ২ কোটি 3

আর্থিক অনটনের কারণে রবি বিষ্ণোই একজন শ্রমিক হিসেবে ক্রিকেট অ্যাকাডেমিতে কাজ করেছেন। শুধু তাই নয় অ্যাকাডেমির সঙ্গেই তিনি সেখানকার সমস্ত পিচও তিনি অ্যাকাডেমির কিছু বাচ্চাদের নিয়ে তৈরি করেছেন। এই অ্যাকাডেমি বানানোর জন্য তিনি বিনে মাইনেতে চাকরি করেছেন যাতে সেখানে ক্রিকেট শেখানো যেতে পারে। তার কাছে ক্রিকেট শেখার জন্য একদমই অর্থ ছিল না।

তবে আপনাদের জানিয়ে দিই যে যখন রবি ক্লাস টুয়েলভে পড়তেন তখন তিনি রাজস্থান রয়্যালসের জন্য ট্রায়ালও দিয়েছিলেন, কিন্তু তখন তাকে দলে নেওয়া হয়নি। ভীষণই দারিদ্র আর অভাবের মধ্যে দিয়ে উঠে এসে এই খেলোয়াড় নিজেকে প্রমাণ করেছেন আর আজ তিনি পাঞ্জাব কিংসের গুরুত্বপূর্ণ সদস্য হয়ে উঠেছেন।

কখনও মানেননি হার

কখনও মজদুরি করতেন এই ক্রিকেটার, এখন প্রীতি জিন্টার কাছ থেকে আইপিএলে পাচ্ছেন ২ কোটি 4

ইউটিউব স্পোর্টস চ্যানেলের সঙ্গে কথা বলতে গিয়ে রবি জানান, “যখন আপনাকে কোথাও থেকে রিজেক্ট করা হয় তো তা থেকে শেখা উচিত আর যখনই সুযোগ আসে নিজেকে প্রমাণ করা উচিত। আমার কাছে অনেক কম টাকা ছিল আর আমি নিজের বাড়িও ছেড়ে দিয়েছিলাম। পিচ আর প্র্যাকটিস করার সুবিধাগুলো জোগাড় করার জন্য আমি নিজের উপরই নির্ভরশীল। আমাকে বেশ কয়েকবার রিজেক্ট করা হয়েছে, কিন্তু আমি কখনও হার মানিনি”।

২০২০ত রবি বিষ্ণোই ভারতের হয়ে অনুর্ধ্ব ১৯ বিশ্বকাপেও দুর্দান্ত প্রদর্শন করেছিলেন। এরপর এই লেগ স্পিনারকে আইপিএলে পাঞ্জাব কিংস ২কোটি টাকা দিয়ে কিনে নেয়। রবি এটাও জানিয়েছেন যে দলের অধিনায়ক কেএল রাহুল প্রত্যেকবার তাকে উৎসাহিত করছেন। পাঞ্জাবে ক্রিস গেইল, কেএল রাহুল আর নিকোলস পুরণের মতো খেলোয়াড়দের সঙ্গে প্র্যাকটিস করে তিনি সবসময় নতুন জিনিস শেখার সুযোগ পেয়েছেন।

suvendu debnath

কবি, সাংবাদিক এবং গদ্যকার। শচীন তেন্ডুলকর, ব্রায়ান লারার অন্ধ ভক্ত। ক্রিকেটের...

Leave a comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *