বৌদ্ধ ভিক্ষুকের পর ধোনির মালিঙ্গা লুক হল ভাইরাল, ক্ষুব্ধ সমর্থকরা করলেন তিরস্কার 1

ভারতীয় ক্রিকেট দলের প্রাক্তন অধিনায়ক মহেন্দ্র সিং হোনি গত কিছুদিন ধরে আইপিএলের বিজ্ঞাপন নিয়ে যথেষ্ট আলোচনায় রয়েছেন, যার মধ্যে তাঁর বৌদ্ধভিক্ষুকের ছবি সোশ্যাল মিডিয়ায় যথেষ্ট ভাইরাল হয়েছে। বৌদ্ধ ভিক্ষুক হিসেবে মহেন্দ্র সিং ধোনিকে বাচ্চাদের উপদেশ দিতে দেখা যাছে, যেখানে তিনি রোহিত শর্মাকে লোভি বলছেন। ধোনির এই ভিডিও দেখে সমর্থকরা অনেক বেশি উৎস্ক ছিলেন। ‘বৌদ্ধ ভিক্ষুক’ এর রূপে ধোনির ছবি আর বিজ্ঞাপনকে সমর্থকরা দারুণ পছন্দও করেছিলেন, কিন্তু এখন আরও একবার মহেন্দ্র সিং ধোনির নতুন লুক সোশ্যাল মিডিয়ায় দারুণভাবে আলোচিত হচ্ছে। বর্তমানে মহেন্দ্র সিং ধোনির এই নতুন লুক নিয়ে সমর্থকদের মধ্যে ক্ষোভ দেখতে পাওয়া গিয়েছে।

বৌদ্ধ ভিক্ষুকের পর ধোনির মালিঙ্গা লুক হল ভাইরাল, ক্ষুব্ধ সমর্থকরা করলেন তিরস্কার 2

টুইটারে ভাইরাল হল মহেন্দ্র সিং ধোনির ‘মালিঙ্গা লুক’

আসলে এবার মহেন্দ্র সিং ধোনির যে ছবিটি সোশ্যাল মিডিয়ায় ভাইরাল হচ্ছে, তাতে ধোনিকে মালিঙ্গা লুকে দেখা যাচ্ছে। ধোনির এই লুককে সমর্থকরা একদমই পছন্দ করেননি আর সেই সঙ্গে মানুষের মধ্যে ক্ষোভও দেখা যাচ্ছে। এই ছবিটিকে টুইটারের মাধ্যমে #CWC11Rewind’ হ্যান্ডলে শেয়ার করা হয়েছে, যেখানে ক্যাপশন লেখা হয়েছে, – হেলিকপ্টার শটস, স্লিপ ক্যাচ, ডিপিং ইয়র্কার… ইনি সবকিছু করতে পারেন। ইনি হলেন এমএস মালিঙ্গা।

বৌদ্ধ ভিক্ষুকের পর ধোনির মালিঙ্গা লুক হল ভাইরাল, ক্ষুব্ধ সমর্থকরা করলেন তিরস্কার 3

জানিয়ে দিই যে সোশ্যাল মিডিয়ায় মহেন্দ্র সিং ধোনির যে মালিঙ্গা লুক ভাইরাল হচ্ছে, তাতে তিনি শ্রীলঙ্কা ক্রিকেট দলের তারকা বোলার লাসিথ মালিঙ্গার রূপ ধারণ করেছেন। তাকে মালিঙ্গার মতোই দেখাচ্ছে। এই ছবি দেখে সমর্থকদের মনে এই প্রশ্ন উঠছে যে কেনো এই ছবি? এই বিষয়ে কিছু সমর্থক তো ক্ষুব্ধ হয়ে নিজেদের প্রতিক্রিয়াও দিয়েছেন। যিও আইপিএলের বিজ্ঞাপনের জন্য মহেন্দ্র সিং ধোনি প্রথমে বৌদ্ধ ভিক্ষুকের রূপ ধারণ করেছিলেন, যা সকলেই পছন্দ করেছেন, কিন্তু ধোনির এবারের মালিঙ্গা লুক নিয়ে সমর্থকদের মধ্যে ক্ষোভ দেখা যাচ্ছে।

বৌদ্ধ ভিক্ষুকের পর ধোনির মালিঙ্গা লুক হল ভাইরাল, ক্ষুব্ধ সমর্থকরা করলেন তিরস্কার 4

suvendu debnath

কবি, সাংবাদিক এবং গদ্যকার। শচীন তেন্ডুলকর, ব্রায়ান লারার অন্ধ ভক্ত। ক্রিকেটের...

Leave a comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *