IND vs NZ: ভারতের সামনে দিশাহারা নিউজিল্যান্ড, বে ওভালে বেসামাল কিউই'দের দুরমুশ করে ম্যাচ জিতলো 'টিম ইন্ডিয়া' !! 1

IND vs NZ: মাউন্ট মাউঙ্গানুইতে আজ দ্বিপাক্ষিক টি-২০ সিরিজের দ্বিতীয় ম্যাচে মুখোমুখি হয়েছিলো ভারত এবং নিউজিল্যান্ড। বিশ্বকাপের সেমিফাইনালে ইংল্যান্ডের কাছে বেদনাদায়ক ১০ উইকেটে হারের পর প্রথম বার মাঠে নেমেছিলো ‘টিম ইন্ডিয়া।’ বিরাট কোহলি, রোহিত শর্মা, কে এল রাহুলদের মত সিনিয়র খেলোয়াড়দের অবর্তমানে দলের নেতৃত্বে হার্দিক পান্ডিয়া। মূলত তরুণ প্রতিভাদের এই সিরিজে একবার দেখে নিতে চাইছে ভারতের টিম ম্যানেজমেন্ট। নিউজিল্যান্ডের অভিজ্ঞতা সামনে কেমন প্রদর্শন করে ভারতের নতুন দল তা জানতে মুখিয়ে ছিলো ক্রিকেটজনতা। ওয়েলিংটনে সিরিজের প্রথম টি-২০ ম্যাচ বৃষ্টিতে পরিত্যক্ত হয়েছিলো। তাই সিরিজ জিততে হলে আজকের ম্যাচ জিততেই হত ভারত’কে। আজ মাউন্ট মাউঙ্গানুইতেও ছিলো বৃষ্টির ভ্রুকূটি। টসে জিতে ভারত’কে ব্যাট করতে পাঠান নিউজিল্যান্ড অধিনায়ক কেন উইলিয়ামসন। আকাশ ভেঙে বৃষ্টি নেমেছিলো, তবে তা মাত্র কিছুক্ষণের জন্য। বিরতির পর বৃষ্টি এলো বাইশ গজে। আর আনলেন সূর্যকুমার যাদব। কিউই বোলারদের ছত্রাখান করে এমন ধুন্ধুমার ব্যাটিং করলেন, নিউজিল্যান্ডের প্রথমে বল করা সিদ্ধান্ত ব্যুমেরাং হয়ে ফিরে গেলো তাদেরই দিকে। ১৯১ রানের লক্ষ্য নিয়ে ব্যাট করতে নেমে ‘মেন ইন ব্লু’র বোলিং বিক্রমের সামনে দাঁড়াতে পারলেন না নিউজিল্যান্ড ক্রিকেটার’রা। ১২৬ রানেই গুটিয়ে গেলো তাদের ইনিংস। ভারত আজকের ম্যাচ জিতে নিলো ৬৫ রানে।

দুরন্ত সূর্যকুমারে দিশাহারা নিউজিল্যান্ড-

Suryakumar Yadav | image: twitter
India’s Suryakumar Yadav scored his 2nd T20i century at Bay Oval.

ভারতের জার্সি টি-২০ ম্যাচে ক্রমাগত ব্যর্থ হচ্ছিলেন ঋষভ পন্থ। লোয়ার অর্ডার ব্যাটার হিসেবে বেশী বল খেলার সুযোগ পাচ্ছেন না বলেই রান আসছে না তাঁর ব্যাটে। এমনটাই বলছিলেন অনেকে। দীনেশ কার্তিকের মত অনেকে পন্থ’কে দেখতে চেয়েছিলেন ওপেনার হিসেবে। আজ দিল্লী’র উইকেটরক্ষক’কে ওপেন করার সুযোগ দিয়েছিলেন দলের অস্থায়ী কোচ ভিভিএস লক্ষ্মণ। সাথে পাঠিয়েছিলেন আরেক তরুণ ব্যাটার ঈশান কিষণ’কে। ঈশান সুযোগ পেয়ে ৩১ বলে ৩৬ রান করলেও ওপেনিং পজিশনে নিজের জায়গা পাকা করতে পারলেন না ঋষভ পন্থ। শুরুতেই ১৩ বলে ৬ রান করে থার্ড ম্যানে টিম সাউদীর হাতে ক্যাচ দিয়ে বসেন তিনি। উইকেট নেন লকি ফার্গুসন। বৃষ্টিতে ম্যাচ খানিক বন্ধ থাকে এরপর। আকাশ ভেঙে বৃষ্টি বিশেষ নামে নি। কিন্তু বৃষ্টি এলো বে ওভালের বাইশ গজে। আনলেন সূর্যকুমার যাদব(Suryakumar Yadav)। টি-২০ ক্রমতালিকার এক নম্বর ব্যাটার হয়েছেন আগেই। আজ বিশ্বকাপ সেমিফাইনালে রান না পাওয়ার হতাশা যেন আছড়ে ফেললেন নিউজিল্যান্ডের বিরুদ্ধে। মাঠের প্রতিটি কোণায় চার ছক্কা মেরে ৫১ বলে করলেন ১১১ রান। লকি ফার্গুসনের এক ওভারে ৪ টি চার এবং ১ টি ছক্কা মারেন তিনি। নিজের কেরিয়ারের দ্বিতীয় টি-২০ শতরান করে ভারতের মোট স্কোর ১৯১ তে পৌঁছে দেন তিনি। অধিনায়ক হার্দিক পান্ডিয়া ১৩ বলে করেন ১৩। শ্রেয়স আইয়ার ৯ বলে ১৩ করে হিট উইকেট আউট হন। ভারতের ইনিংসের শেষ ওভারে কিউই পেসার টিম সাউদী(Tim Southee) হ্যাট্রিক করলেন। কুড়ি-বিশের ক্রিকেটে মাত্র দ্বিতীয় বোলার হিসেবে দুইবার হ্যাট্রিক করে শ্রীলঙ্কান কিংবদন্তী লাসিথ মালিঙ্গার সাথে একাসনে বসলেন সাউদী।

স্পিন অস্ত্রে কিউই বধ ভারতের-

Deepak Hooda | image: twitter
Deepak Hooda decimated New Zealand batting and ended up with a figure of 4/10

ওয়েলিংটনে ভারত বনাম নিউজিল্যান্ড প্রথম ম্যাচটি যখন ভেস্তে গিয়েছিলো সাংবাদিল সম্মেলনে এসে অধিনায়ক হার্দিক বলেছিলেন, “আমরা বয়সে নবীন হতে পারি, অভিজ্ঞতায় নয়।” মাঠের পারফর্ম্যান্সে সেই কথাটির প্রতিফলন দেখালো ভারতীয় দল। প্রথমে সূর্যকুমারের ব্যাটিং-এ এমনিতেই ব্যাকফুটে ছিলো নিউজিল্যান্ড দল। তারপর নিজেদের ইনিংসের শুরুতেই তারা হারায় ওপেনার ফিন অ্যালেন’কে। মারকুটে এই ওপেনার’কে ফিরিয়ে দেন ভুবনেশ্বর কুমার(Bhuvneshwar Kumar)। বিশ্বকাপের আগে এবং পরে সমালোচিত হয়েছেন ভুবি। কিন্তু প্রায় চুপচাপ এক ক্যালেন্ডার ইয়ারে সবচেয়ে বেশী টি-২০ উইকেট নেওয়ার দিকে এগিয়ে যাচ্ছেন তিনি। আজ ৩ ওভারে ১২ রান দিয়ে ১ উইকেট নিলেন তিনি। আর চাই মাত্র ৩ টি উইকেট। আরেক তরুণ পেসার মহম্মদ সিরাজ(Mohammad Siraj) নিলেন ২ উইকেট। তিনি তুলে নেন মিচেল স্যান্টনার এবং ক্রিজে জমাট দেখানো কিউই অধিনায়ক কেন উইলিয়ামসন’কে(Kane Williamson)। নিউজিল্যান্ডের একমাত্র সফল ব্যাটার উইলিয়ামসন ৫২ বলে ৬১ রান করেন আজ। তবে ভারত’কে ম্যাচের চাবিকাঠি তুলে দিলো স্পিন। দলে ফিরে যজুবেন্দ্র চাহাল(Yuzvendra Chahal) নিলেন ২ টি উইকেট। আউট করলেন গ্লেন ফিলিপ্স এবং জেমস নীশম’কে। ডেভন কনওয়ে’কে আউট করেন ওয়াশিংটন সুন্দর। তবে চমকে দিলেন দীপক হুডা(Deepak Hooda)। ব্যাটার বলেই নামডাক তাঁর। কিন্তু ব্যাটিং-এ ১ বলে ০ করেছিলেন হুডা। বল হাতে পুষিয়ে দিলেন তিনি। ২.৫ ওভার বল করে ১০ রান নিয়ে ৪ টি উইকেট নিয়ে নিউজিল্যান্ড ব্যাটিং’কে সাফ করে দেন তিনি। উনিশতম ওভারে ৩ উইকেট নেন তিনি। ৭ বল বাকি থাকতেই ৬৫ রানে ম্যাচ জিতলো ভারত। হুডার(Deepak Hooda) ১০ রানের ইনিময়ে ৪ উইকেট নিউজিল্যান্ডের মাটিতে যে কোনো ভারতীয় বোলারের শ্রেষ্ঠ টি-২০ পরিসংখ্যান। আজকের জয়ের ফলে নেপিয়ারে সিরিজ জয়ের দিকে এক পা বাড়িয়ে রাখলো ‘মেন ইন ব্লু।’

Leave a comment

Your email address will not be published.