ডবলিউ ডবলিউ সুপারস্টার কেভিন ওয়েন্স এবং স্য়ামি জেইনকে গত সপ্তাহে স্ম্য়াকডাউনলাইভ শো-এর পর ইউরোপিয়ান ট্য়ুর থেকে সোজা বাড়ি পাঠিয়ে দেওয়া হয়। জানা গিয়েছে, তাঁদের সেগমেন্টের বুকিং নিয়ে ক্রিয়েটিভ রাইটারদের সঙ্গে বচসায় জড়িয়ে পড়েন দুই তারকা। আর সেই কারণেই ঝামেলা এড়াতে দুই সুপারস্টারকে সঙ্গে সঙ্গে বাড়ি পাঠিয়ে দেওয়া হয়। নিউ ডে টিমের কোফি কিংস্টনের সঙ্গে ম্য়াচে স্য়ামিকে হারতে হয় বুকিং অনুযায়ী, যেটা একেবারই তাঁর পছন্দ হয়নি। ইদানিং বন্ধু জেইনের সঙ্গে আবার জুটি বেঁধেছেন ওয়েন্স। ফলে স্য়ামির হারা মানে টিমের অঙ্গ হিসেবে তাঁরও হার। আর সেটাই না পসন্দ দুই তারকার। শো-এর পর এই কারণে দুজনে এর প্রতিবাদ করতে যান। কারণ, এই হারের ফলে দুজনেরই মোমেন্টাম ব্রেক হয়েছে। অবশ্য়, ম্য়াঞ্চেস্টার থেকে বাড়ি চলে গেলেও, সারভাইভার সিরিজের আগে শেষ শো-তে অংশ নিতে দুজনেই নর্থ ক্য়ারোলিনার শারলোটে ফিরে আসেন এবং টিভি টেপিংয়ে মুখও দেখান।

রেসলিং অবজার্ভার নিউজলেটারের রিপোর্ট অনুযায়ী, ভিনস ম্য়াকম্য়াহন এবং ক্রিয়েটিভ রাইটাররা আগে থেকেই পরিকল্পনা করে রেখেছিলেন ম্য়াঞ্চেস্টারে ম্য়াচের পর ওয়েন্স আক্রমণ করবেন কোফিকে। তারপর নিউ ডে টিমের বিগ ই এবং জেভিয়ার উডস তাঁদের ট্য়াগ টিম মেম্বার কোফিকে বাঁচাতে যাবেন। এরপর নিউ ডের কাছে মার খাওয়ার পর স্য়ামি ও কেভিন্স পালাবেন। আর তার ভিত্তিতেই শারলোটে নিউ ডে এবং টিম ওয়েন্স-জেইন ট্য়াগ টিমে ম্য়াচে অংশ নেবে দুই টিমের সদস্য়রা (ম্য়াচটি গত এসডিলাইভ শোতে অনুষ্ঠিত হয় স্ক্রিপ্ট অনুযায়ী)। ম্য়াঞ্চেস্টারে ওই সেগমেন্টের পর বেজায় অখুশি হয়ে ক্রিয়েটিভ রাইটারদের সঙ্গে বুকিং নিয়ে কথাকাটাকাটি শুরু করে দেন দুই তারকা। এরপরই ডবলিউ ডবলিউ আধিকারিকরা তাঁদের বাড়ি পাঠিয়ে দেন মাথা ঠান্ডা করতে।

যদিও আরেকটি সূত্রের খবর, আসলে কেভিন এবং জেইন সেগমেন্টটি ওই রকমভাবে কথাকাটাকাটি করে শেষ হবে জানতেন। কিছু একটা ভুল বোঝাবুঝি হয়েছিল এক্ষেত্রে। আসল উদ্দেশ্য় ছিল, দুজনের হিল ক্য়ারেক্টারকে তুলে ধরা। কিন্তু, অনেকে এই যুক্তিকে অস্বীকার করেছেন। বলছেন, আসলে টিম ওয়েন্স-জেইন ইচ্ছে করে ঝামেলা পাকিয়েছিলেন নিজেদের বুকিং সম্পর্কে সব জানা সত্ত্বেও। আর এই কারণেই ঝামেলা যাতে বেশিদূর না গড়ায় , তাই তাঁদের বাড়ি পাঠিয়ে দেওয়া হয়েছিল।

 

তবে, শোনা যাচ্ছে, দুসপ্তাহ আগে যে ঘটনাটি ঘটেছে, তাতে অন্য়ান্য় ডবলিউ ডবলিউ সুপারস্টাররা একদম খুশি নন। তেরোবারের ডবলিউ ডবলিউ চ্য়াম্পিয়ন ব়্য়ান্ডি অর্টন এবং ওয়েন্সের মধ্য়ে সোশ্য়াল নেটওয়ার্কিং সাইট ট্য়ুইটারে যে ট্য়ুইট চালাচালি হয়েছে, তাতে এই সন্দেহ আরও বেড়েছে। কারণ, যে সমস্ত ট্য়ুইট করা হয়েছে, তা মোটেই স্ক্রিপ্টেড নয়, মনে করা হচ্ছে।

গত স্ম্য়াকডাউন টিভি টেপিং-এর পর ১১ নভেম্বর অর্ল্য়ান্ডোর এপিকোটে এক ফ্য়ানের বিয়েতে আমন্ত্রণ জানানো হয়েছিল কেভিনকে। তিনি যে আসতে পারবেন না ব্য়স্ত থাকায়, তা প্রায় জানাই ছিল। কিন্তু, ওয়েন্স চেয়েছিলেন, তাঁর ওই ফ্য়ানকে চমকে দেবেন বিয়ের রিসেপশন পার্টিতে ডেজার্ট আইটেম পরিবেশনের সময়। সেই মত তিনি উপস্থিত হন এবং ওই ফ্য়ান ছবিটি ট্য়ুইট করেন। আর ব়্য়ান্ডি তা দেখার পর কিছু মন্তব্য় করেন। এরপর একে অপরের মধ্য়ে ট্য়ুইট চালাচালি করেন অর্টন এবং ওয়েন্স। সোশ্য়াল সাইটে পাল্টা জবাব দেওয়ার জন্য় ওয়েন্সের প্রচুর ফ্য়ান রয়েছে। কিন্তু, ব়্য়ান্ডি অর্টনের মতো একজন ভেটেরান তারকা সেসব কিছুকে একেবারেই পরোয়া করেন না। কারণ, ব়্য়ান্ডি শুধু সুপারস্টার নন, তিনি একজন লেজেন্ড।

  • SHARE

    আরও পড়ুন

    চাই না আমাদের বিপক্ষে ধোনি এভাবে ব্যাট করুক : বিরাট

    চাই না আমাদের বিপক্ষে ধোনি এভাবে ব্যাট করুক : বিরাট
    বুধবার চিন্নাস্বামী স্টেডিয়ামের দর্শকরা আইপিএলের রুদ্ধশ্বাস ডার্বি ম্যাচের সাক্ষী হয়ে থাকল। আইপিএলের দুই দক্ষিণী দৈত্যের লড়াই প্রত্যক্ষ...

    আইপিএল ২০১৮: নিজেদের শক্তি কতটা বাস্তবে এটা অনেকেই জানে না : ধোনি

    এই মরশুমের আরও একটি রুদ্ধশ্বাস আইপিএল লড়াইয়ের উদাহরণ থাকল আরসিবি বনাম চেন্নাই সুপার কিংসের ম্যাচ। একে অপরকে...

    দেখে নিন: কত বড় ছক্কা মারলেন এবি ডেভিলিয়র্স, যা আছড়ে পড়ল স্টেডিয়ামের বাইরে

    দেখে নিন: কত বড় ছক্কা মারলেন এবি ডেভিলিয়র্স, যা আছড়ে পড়ল স্টেডিয়ামের বাইরে
    খুব কমই উদাহরণ রয়েছে বিশ্ব ক্রিকেটে এবি ডেভিলিয়র্সের ব্যাটিং তান্ডবের থেকে ভাল কিছু। নিজের দিনে বিশ্বে যে...

    বেটিং চক্রে ধরা পড়লেন ঋদ্ধির কোচের ছাত্র এই প্রাক্তন ক্রিকেটার

    বেটিং চক্রে ধরা পড়লেন ঋদ্ধির কোচের ছাত্র এই প্রাক্তন ক্রিকেটার
    ক্রিকেটের বড় প্রতিযোগিতা মানেই বিশ্বজুড়ে বেটিং চক্রের রমরমা। যার জালে জড়িয়ে পড়েছে বহু ক্রিকেটারই। এই বেটিং চক্রের...

    বিশ্বকাপে ভারত-পাকিস্থান দ্বৈরথ কবে, ঘোষিত হল তারিখ

    এমনিতে ভারত পাকিস্থান ক্রিকেট দ্বৈরথ মানে যুদ্ধকালীন পরিস্থিতি আর তা যদি হয় বিশ্বকাপের মত বড় মঞ্চে তাহলে...