আর অশ্বিনের স্ত্রী প্রীতির বড়ো খোলসা, ম্যাচের আগের রাত থেকেই যন্ত্রনা ছিল অশ্বিনের 1

অস্ট্রেলিয়া আর ভারতের মধ্যে বর্ডার-গাভাস্কার ট্রফি খেলা হচ্ছে। এই টেস্ট সিরিজের তৃতীয় ম্যাচ সোমবার সিডনিতে শেষ হয়েছে। এই টেস্ট ম্যাচে ভারতীয় দল দুর্দান্ত প্রদর্শন করে ম্যাচ ড্র করিয়ে ফেলে। এই ম্যাচ অস্ট্রেলিয়ার জেতার আশা করা হচ্ছিল। ভারত সিডনি টেস্ট ড্র করার সঙ্গেই বর্তমানে এই সিরিজ ১-১ ফলাফলে রয়েছে।

ভারত পরাক্রম দেখিয়ে বাঁচালো সিডনি টেস্ট

আর অশ্বিনের স্ত্রী প্রীতির বড়ো খোলসা, ম্যাচের আগের রাত থেকেই যন্ত্রনা ছিল অশ্বিনের 2

ঘরোয়া দল অস্ট্রেলিয়া এই ম্যাচ জেতার জন্য ভারতকে ৪০৭ রানের লক্ষ্য দেয়। এই লক্ষ্যর সামনে ভারতীয় দল ১০২ রানের স্কোরেই নিজেদের ৩ উইকেট হারিয়ে ফেলেছিল, এরপর চেতেশ্বর পুজারা আর ঋষভ পন্থের পার্টনারশিপ ভারতের জয়ের আশা জাগায়। ম্যাচের শেষ দিন লাঞ্চের পর ঋষভ পন্থ আর চেতেশ্বর পুজারা কিছু সময়ের ব্যবধানে আউট হয়ে যান, যেখান থেকে ভারতীয় দলের ম্যাচ জেতা তো দূর ম্যাচ বাঁচানোও মুশকিল দেখাচ্ছিল।

অশ্বিন আর হনুমা বিহারী ম্যাচ ড্র করালেন

আর অশ্বিনের স্ত্রী প্রীতির বড়ো খোলসা, ম্যাচের আগের রাত থেকেই যন্ত্রনা ছিল অশ্বিনের 3

ভারতের ৫ উইকেট পড়ার পর ম্যাচ বাঁচানো মুশকিল হয়ে যায়, যেখানে সকলেই ভারতের হারের আশা করছিল। কিন্তু ভারতীয় দলের স্পিনার আর অশ্বিন হনুমা বিহারীর সঙ্গে মিলে অসাধারণ বীরত্ব দেখান। এই দুই ব্যাটসম্যানই অস্ট্রেলিয়ার বোলারদের যথেষ্ট হতাশ করে দেন। অশ্বিন যন্ত্রণা আর চোট সত্ত্বেও ক্রিজে টিকে থাকেন আর শেষে হনুমা বিহারীর সঙ্গে মিলে প্রায় ৪০ ওভারের বেশি খেলে ম্যাচ ড্রয়ের দিকে নিয়ে যান। অশ্বিন এই ইনিংসে ১২৮টি বলের মুখোমুখি হয়ে ৩৯ রান করেন। এই ম্যারাথন ব্যাটিংয়ে অশ্বিন ভারতের হয়ে হনুমা বিহারীর সঙ্গে মিলে টেস্ট বাঁচানোর কাজ করেছেন।

অশ্বিনের স্ত্রীর খোলসা, অশ্বিন ছিলেন দারুণ ব্যাথায়

রবিচন্দ্রন অশ্বিনকে নিয়ে তার স্ত্রী প্রীতি নারায়ণ একটি বড়ো খোলসা করেছেন যে অশ্বিন যথেষ্ট যন্ত্রনা নিয়ে ব্যাটিং করেছেন। অশ্বিনের ব্যাপারে প্রীতি বলেন যে ও ওইদিনের আগে অর্থাৎ তার আগের রাতেই দারুণ ব্যাথার মধ্যে ছিলেন। অশ্বিনের জন্য নীচে ঝোঁকা পর্যন্ত মুশকিল হচ্ছিল। প্রীতি একটি টুইট করে লেখেন যে,
“ এই ব্যক্তি কাল রাতে ভয়ানক পিঠ মচকানো আর অবিশ্বসনীয় যন্ত্রণা নিয়ে বিছানায় গিয়েছিল। যখন ও সকালে ওঠে তো সোজা দাঁড়াতে পারছিল না। নিজের জুতোর ফিতে বাঁধার জন্যও ঝুঁকতে পারছিল না। আমি অবাক যে আজ অশ্বিন এত শক্তি কোথা থেকে পেল”।

এরপর প্রীতি অশ্বিনকে আরও একটি টুইট করে লেখেন, “এখন প্যাকিংয়ে আমার সাহায্য কে করবে”।

suvendu debnath

কবি, সাংবাদিক এবং গদ্যকার। শচীন তেন্ডুলকর, ব্রায়ান লারার অন্ধ ভক্ত। ক্রিকেটের...

Leave a comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *