এবার সংযুক্ত আরব আমিরশাহিতে আইপিএল হওয়া নিয়ে দেখা দিল সংকট, মাথায় হাত বিসিসিআইয়ের 1

সেপ্টেম্বর ও অক্টোবরে সংযুক্ত আরব আমিরশাহিতে আইপিএল ২০২১ এর বাকি ৩১টি পরিচালনা করার পরিকল্পনা রয়েছে। এ জন্য বিসিসিআই একটি পরিকল্পনা করছে। তবে টি টোয়েন্টি ওয়ার্ল্ড কাপ সংযুক্ত আরব আমিরশাহিতে চলে গেলে আরব আমিরশাহিতে আইপিএলের বিপক্ষে আর কোনও ম্যাচ হতে পারবে না। কারণ তখন সংযুক্ত আরব আমিরশাহি বোর্ডকে ২০ অক্টোবর নাগাদ আইসিসির কাছে সমস্ত মাঠ দিতে হবে। বিসিসিআই ১৫ সেপ্টেম্বর থেকে ১৫ অক্টোবরের মধ্যে আয়োজন করতে চলেছে। টি টোয়েন্টি বিশ্বকাপের ম্যাচগুলি ১৮ অক্টোবর থেকে শুরু হতে পারে।

IPL 2020 to be held in the UAE

বিসিসিআই ইতিমধ্যে বলেছে যে আইপিএলের বাকি ম্যাচগুলি না অনুষ্ঠিত হলে প্রায় ২৫০০ কোটি টাকার ক্ষতি হবে। এমন পরিস্থিতিতে এত বড় ক্ষতি এড়াতে বোর্ড বাকি ম্যাচগুলো করতে চায়। চলতি আইপিএল মরসুমের ৬০ টির মধ্যে ২৯টি ম্যাচ খেলেছে। ইনসাইড স্পোর্টসের সংবাদ অনুসারে, আইপিএল ম্যাচগুলি সংযুক্ত আরব আমিরশাহিতে অনুষ্ঠিত হয়, তবে ৭০০ থেকে ৮০০ জনের টিকা দেওয়া সহজ হবে না। টি টোয়েন্টি বিশ্বকাপের জন্য ১ জুন আইসিসি মিলিত হতে চলেছে।

IPL 2020 : Good news, BCCI gets government clearances for conducting IPL  2020 in UAE

যদি আমরা সংযুক্ত আরব আমিরশাহির তিনটি মাঠের কথা বলি তবে পরের তিন মাসে দুবাই, আবু ধাবি ও শারজাহের মাঠে ৪০টি ম্যাচ হবে। পাকিস্তান সুপার লিগের (পিএসএল) বাকি ২০টি ম্যাচ আবু ধাবিতে অনুষ্ঠিত হবে। এটি ৫ জুন থেকে শুরু হতে চলেছে। তবে এর সূচি এখনও ঘোষণা করা হয়নি। আফগানিস্তান দলের হোম গ্রাউন্ড ভারত। তবে কোভিড ১৯ এর কারণে তাদের সংযুক্ত আরব আমিরশাহিতে খেলতে হতে পারে। সেপ্টেম্বরে তাদের পাকিস্তানের বিরুদ্ধে তিনটি ওয়ানডে খেলতে হবে। এমন পরিস্থিতিতে মাঠটি কমপক্ষে এক সপ্তাহ ব্যস্ত থাকবে।

IPL 2020 : Fans likely to be allowed for IPL in UAE says Emirates Cricket  Board official

নিউজিল্যান্ড ও পাকিস্তানের তিনটি ওয়ানডে এবং তিনটি টি টোয়েন্টি ম্যাচ সেপ্টেম্বর ও অক্টোবরে অনুষ্ঠিত হবে। এমতাবস্থায় এমিরেটস বোর্ডের পক্ষে এটি আইপিএল দিয়ে সাজানো সহজ হবে না। এ ছাড়া টি টোয়েন্টি বিশ্বকাপের আগে আফগানিস্তান দলও এখানে আয়ারল্যান্ডের বিপক্ষে তিনটি টি টোয়েন্টি লিগ খেলবে। আমিরশাহি বোর্ড সূত্র টেলিগ্রাফকে বলেছে যে, “আইসিসি যদি সংযুক্ত আরব আমিরশাহিতে টি টোয়েন্টি বিশ্বকাপ আয়োজনের সিদ্ধান্ত নেয়, তবে আমাদের তাদের ১ অক্টোবরের মধ্যে মাঠ দিতে হবে। তবে বিসিসিআই ইংল্যান্ড এবং শ্রীলঙ্কায় আইপিএলের বাকি ম্যাচগুলিও করতে পারে। শ্রীলঙ্কা বোর্ডও এ জাতীয় প্রস্তাব দিয়েছে।”

Leave a comment

Your email address will not be published.