ভিডিয়ো: যখন বিরাট কোহলিকে আউট করার পর কেসরিক উইলিয়ামস করেছিলেন নোটবুক সেলিব্রেশন

ভারতীয় ক্রিকেট দলের অধিনায়ক বিরাট কোহলি ওয়েস্টইন্ডিজের বিরুদ্ধে খেলা হওয়া প্রথম টি-২০ ম্যাচে ৯৪ রানের অপরাজিত ইনিংস খেলেন। এই ইনিংসে বিরাট কোহলি ৬টি বাউন্ডারি এবং ৬টি ওভার বাউন্ডারি মারেন। বিরাটের এই দুর্দান্ত ইনিংসের জন্য তাকে ম্যান অফ দ্যা ম্যাচ পুরস্কার দেওয়া হয়। এই ম্যাচ চলাকালীন বিরাট ছক্কা মেরে বোলার কেসরিক উইলিয়ামসকে ২ বছর পুরোনো একটা কাজের জবাব দেন।

বিরাট কোহলি কাটলেন উইলিয়ামসের রসিদ

View this post on Instagram

You do not mess with the Skip! 🔥🔥 #TeamIndia #INDvWI @paytm

A post shared by Team India (@indiancricketteam) on Dec 6, 2019 at 8:53am PST

ওয়েস্টইন্ডিজের বিরুদ্ধে ২০৮ রান তাড়া করতে নেমে বিরাট কোহলি ঝোড়ো ইনিংস খেলেন। এর মধ্যে ১৬তম ওভারে ভারতের অধিনায়ক উইলিয়ামসের দ্বিতীয় বলে বাউন্ডারি মারেন। বোলার পরের বলটি ইয়র্কার করার চেষ্টা করেন, কিন্তু তিনি তা করতে ব্যর্থ হন আর কোহলি লগঅনে দুর্দান্ত ছক্কা মারেন। বল বাউন্ডারি পার করতেই তিনি উইলিয়ামসের দিকে ঈষারা করে নিজের হাত ট্রাউজারের পকেটে ভরেন আর যেনো নোটবুক বের করে তাতে লিখতে থাকেন। বিরাটের এই রিঅ্যাকশন এমন ছিল যেনো তিনি কারো রসিদ কাটছিলেন।

২০১৭য় উইলিয়ামস সেলিব্রেট করেছিলেন বিরাটের উইকেট

https://youtu.be/-fg1W6u2FNI

এই সময় চারদিকে বিরাট কোহলি যে রসিদ কাটার সেলিব্রেশনের আলোচনা হচ্ছে তার শুরু ২০১৭য় হয়েছিল। যখন ভারত ওয়েস্টইন্ডিজ সফরে ৫ ম্যাচের টি-২০ সিরিজ আর একটি টেস্ট খেলেছিল। সেই সময় টি-২০ আন্তর্জাতিক ম্যাচে উইলিয়ামস বিরাট কোহলিকে ৩৯ রানে আউট করেছিলেন আর সেলিব্রেশন করে নিজের নোটবুকে টিক মেরেছিলেন। বিরাটের হায়দ্রাবাদ টি-২০ চলাকালীন উইলিয়ামসের ওই সেলিব্রেশনের কথা মনে ছিল। যখন তিনি উইলিয়ামসের বলে ছক্কা মারেন তো সেই একইভাবে তিনিও তা সেলিব্রেট করেন। তখন থেকেই বিরাটের এই সেলিব্রেশন সোশ্যাল মিডিয়ায় ভাইরাল হচ্ছে।

এই কারণে বিরাট করেছিলেন সেলিব্রেট

ভিডিয়ো: যখন বিরাট কোহলিকে আউট করার পর কেসরিক উইলিয়ামস করেছিলেন নোটবুক সেলিব্রেশন 1

ম্যাচের পর ভারতীয় অধিনায়ক বিরাট কোহলি সেলিব্রেশনের ব্যাপারে কথা বলতে গিয়ে বলেন,

“যে দু বছর আগে জামাইকাতে যখন ও (উইলিয়ামস) আমাকে আউট করেছিল তো ও এই নোটবুক স্টাইলে সেলিব্রেট করেছিল। এই কথা আমার মনে ছিল। এই কারণে আমি সেই ভঙ্গিতেই জবাব দিয়েছি। যদিও ম্যাচ শেষ হওয়ার পর আমরা দুজনে সাক্ষাত করেছি। আপনার ম্যাচে লড়াই করার মানসিকতা দেখানো উচিৎ। কিন্তু বিপক্ষ খেলোয়াড়কে সম্মান করতেও ভোলা উচিৎ নয়। এটাই খেলার স্পিরিট”।

suvendu debnath

কবি, সাংবাদিক এবং গদ্যকার। শচীন তেন্ডুলকর, ব্রায়ান লারার অন্ধ ভক্ত। ক্রিকেটের...

Leave a comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *