সাউহ্যাম্পটন টেস্ট: বাটলারের হাফ সেঞ্চুরি, ইংল্যান্ডের ২৩৩ রানের লীড

সাউথহ্যাম্পটন, ১ সেপ্টেম্বর: জস বাটলার (৬৯) এর কেরিয়ারের নবম হাফসেঞ্চুরির সৌজন্যে ইংল্যান্ড ভারতের বিরুদ্ধে এখানে রোজ বাউল স্টেডিয়ামে চলতি চতুর্থ টেস্টে ম্যাচের তৃতীয় দিন শনিবাদ আট উইকেটে ২৬০ রান তুলে দিয়েছে। ইংল্যান্ডের কাছে এখন ২৩৩ রানের লীড হয়ে গিয়েছে সেই সঙ্গে এখনও তাদের ২ উইকেট হাতে রয়েছে। স্ট্যাম্প পর্যন্ত স্যাম ক্যুরেন ৬৭ বলে পাঁচটি চারের সাহায্যে ৩৭ রান করে ক্রিজে রয়েছেন। আদিল রশিদের (১১) আউট হতেই চতুর্থ দিনের খেলা সমাপ্তি ঘোষণা করে দেওয়া হয়। বাটলার ১২২ বল খেলে সাতটি চার মেরেছেন। তিনি বেন স্টোকসের (৩০) সঙ্গে ষষ্ঠ উইকেটে ৫৬ আর ক্যুরেনের সঙ্গে সপ্তম উইকেটে ৫৫ রানের পার্টনারশিপ গড়েন। ক্যুরেন রশিদের সঙ্গে অষ্টম উইকেটের জন্য ২৭ রানের পার্টনারশিপ গড়েন।

সাউহ্যাম্পটন টেস্ট: বাটলারের হাফ সেঞ্চুরি, ইংল্যান্ডের ২৩৩ রানের লীড 1

ইংল্যান্ড তৃতীয় এবং শেষ সেশনে মোট ১০৯ রান করে এবং তিন উইকেট হারায়। ঘরের দল টি ব্রেকের পর তৃতীয় সেশনের শুরুতে পাঁচ উইকেটে ১৫১ রানে খেলা শুরু করে। চায়ের পর বেন স্টোকস ভারতীয় দলের প্রথম শিকার হন। তাকে রবিচন্দ্রন অশ্বিন অজিঙ্ক রাহানের হাতে ক্যাচ আউট করেন। স্টোকসের উইকেট দলের ১৭৬ রানের স্কোরে পড়ে। স্টোকস ১১০ বলে দুটি চার মারেন। এরপর বাটলার ইংল্যান্ড দলকে সামলান। যদিও বাটলারও দিনের খেলা সমাপ্ত হওয়ার কিছু ওভার আগেই ইশান্ত শর্মার বলে এলবিডব্লিউ আউট হন। বাটলার সপ্তম ব্যাটসম্যান হিসেবে ২৩৩ রানের স্কোরে আউট হন। অন্যদিকে রশিদ খানও ২২ বল খেলে দুটি চার মারেন। ইংল্যান্ড দ্বিতীয় সেশনে ২৬.১ ওভারে ৬০ রান করে দুই উইকেট হারিয়েছিল। ঘরের দল লাঞ্চের পদ তিন উইকেটে ৯২ রানে আগে খেলা শুরু করে। লাঞ্চের পর ইংল্যান্ড দল নিজেদের স্কোরে এক রান যোগ করার আগেই মহম্মদ শামি জনি বেয়রস্টোকে বোল্ড করে ভারতীয় ঘরের দলকে চতুর্থ ধাক্কা দেয়। এরপর অধিনায়ক জো রুট (৪৮) আর স্টোকসের মধ্যে পঞ্চম উইকেট জুটিতে ৩০ রানের পার্টনারশিপ হয়। শামি রুটকে রান আউট করে এই পার্টনারশিপ ভাঙেন।

সাউহ্যাম্পটন টেস্ট: বাটলারের হাফ সেঞ্চুরি, ইংল্যান্ডের ২৩৩ রানের লীড 2রুট নিজের হাফ সেঞ্চুরি মিস করেন তিনি ৮৮ বল খেলে ছটি চার মারেন। এর আগে ইংল্যান্ড তৃতীয় দিনের শুরুয়াত তাদের গতকালের স্কোর কোনও বিনা উইকেটে ৬ রানে খেলা শুরু করেন। ঘরের দল প্রথম ধাক্কা অ্যালিস্টেয়ার কুক (১২) এর রূপে লাগে। তিনি ৩৯ বলে একটি চার মারেন। কুককে বুমরাহ লোকেশ রাহুলের হাতে ক্যাচ আউট করেন। এরপর মইন আলিও বিশেষ কিছু করতে পারেন নি এবং ৯ রান করে ইশান্ত শর্মা বলে রাহুলের হাতে ক্যাচ দিয়ে আউট হন। মইন দলের ৩৩ রানের মাথায় আউট হন। কীটন জেনিংস (৩৬) ৮৭ বলে ছটি চার মারেন। তাকে মহম্মদ শামি এলবিডব্লিউ আউট করেন। রুট আর জেনিংসের মধ্যে ৫৯ রানের পার্টনারশিপ হয়। ভারতের হয়ে এখনও পর্যন্ত মহম্মদ শামি ৫৬ রানে ৩ ইশান্ত শর্মা ৩৬ রানে দুই অশ্বিন ৭৮ রানে এক আর বুমরাহ ৫১ রানে এক উইকেট নেন।

suvendu debnath

কবি, সাংবাদিক এবং গদ্যকার। শচীন তেন্ডুলকর, ব্রায়ান লারার অন্ধ ভক্ত। ক্রিকেটের...

Leave a comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *