ভারতীয় দলে আবারো নির্বাচিত হওয়া নিয়ে পৃথ্বী শ দিলেন এই বড়ো বয়ান, পছন্দ নাও হতে পারে বিরাটের 1

ভারতীয় দলের ওপেনিং ব্যাটসম্যান পৃথ্বী শ মাঠে প্রত্যাবর্তন করে ফেলেছেন। সৈয়দ মুস্তাক আলি ট্রিতে আসামের বিরুদ্ধে হওয়া ম্যাচে তিনি মুম্বাইয়ের হয়ে ওপেনিং করেন। এই ম্যাচে তার ব্যাট থেকে ৩৯ বলে ৬৩ রান বেরয়। তিনি ভারতের হয়ে অক্টোবর ২০১৮য় ডেবিউ করেছিলেন। দুই ম্যাচের পর চোট আর তারপর ব্যানের কারণে তিনি আর কোনো ম্যাচ খেলতে পারেননি।

পৃথ্বী শ দিলেন বয়ান

ভারতীয় দলে আবারো নির্বাচিত হওয়া নিয়ে পৃথ্বী শ দিলেন এই বড়ো বয়ান, পছন্দ নাও হতে পারে বিরাটের 2

পৃথ্বী শ আহত আর ব্যান হওয়ার আগে ভারতীয় দলের অংশ ছিলেন। টেস্টে রোহিত শর্মা আর ময়ঙ্ক আগরওয়াল দুর্দান্ত ওপেনিং করছেন। দলে নির্বাচনের ব্যাপারে পৃথ্বী বলেন যে তার কাজ স্রেফ রান করা। তিনি বলেন,

“আমি স্রেফ রান করতে থাকব। এটা সমস্ত নির্বাচকদের হাতে যে ওরা কী ভাবছে। আমার কাজ দলের হয়ে রান করা আর ম্যাচ জেতানো। আমি কখনো ভাবিনি যে এমন কিছু হবে। আমি স্পষ্টরূপে চিন্তিত ছিলাম। ব্যান লাগার পর প্রথম ২০-২৫দিন পর্যন্ত আমি বুঝতে পারছিলাম না যে এটা কিভাবে হল”।

কেমন কেটেছে সময়?

ভারতীয় দলে আবারো নির্বাচিত হওয়া নিয়ে পৃথ্বী শ দিলেন এই বড়ো বয়ান, পছন্দ নাও হতে পারে বিরাটের 3

পৃথ্বী শ জানিয়েছেন যে ব্যান লাগার পর তার সময় কেমন কেটেছে। তিনি লন্ডন চলে গিয়েছিলেন আর সেখানে নিজের সময় কাটান।। ১৫ সেপ্টেম্বর পর্যন্ত তার প্র্যাকটিসেরও অনুমতি ছিল না। ব্যান চলাকালীন সময়ের ব্যাপারে তিনি বলেন,

“আমি লন্ডন যাই আর সেখান থেকে বাইরে যাই কারণ আমার ১৫ সেপ্টেম্বর পর্যন্ত প্র্যাকটিস করার অনুমতি ছিল না। এরপর আমি নিজেকে স্থির করি আর নিজেকে মানসিকভাবে মজবুত বলে নিজেকে বলি এই তিনমাস কেটে যাবে। কিন্তু প্রত্যেক দিন কঠিন ছিল, এটা দীর্ঘ হচ্ছিল। এখন সমস্ত অতীত”।

রাহুল দ্রাবিড় করেছেন সাহায্য

ভারতীয় দলে আবারো নির্বাচিত হওয়া নিয়ে পৃথ্বী শ দিলেন এই বড়ো বয়ান, পছন্দ নাও হতে পারে বিরাটের 4

পৃথ্বী শ জানিয়েছেন যে মাঠে প্রত্যাবর্তন করতে রাহুল দ্রাবিড় তাকে সাহায্য করেছেন। এনসিএতে রাহুল দ্রাবিড়ের কাছে প্রত্যাবর্তনের আগে তিনি ট্রেনিং করেন। এই ব্যাপারে কথা বলতে গিয়ে তিনি বলেন,

“লন্ডন থেকে ফেরার পর রাহুল স্যার আমাকে ট্রেনিংয়ের জন্য এনসিএতে ডাকেন। রাহুল স্যারের সঙ্গে ফিটনেসের উপর অনেক বেশি ধ্যান কেন্দ্রিত করা হয়েছিল। আমাকে নিজের সমস্ত ফিটনেস টেস্ট পাশ করতে হত। নেট চলাকালীন ভালো বোলার উপলব্ধ ছিল। কুলদীপ যাদব, ভুবি (ভুবনেশ্বর কুমার) আর বরুণ অ্যারণের মত, ওখানে ছিলেন। এছাড়াও রাহুল স্যার সবসময়ই মার্গদর্শন আর মানসিক বিষয়ে সাহায্য করেছেন”।

suvendu debnath

কবি, সাংবাদিক এবং গদ্যকার। শচীন তেন্ডুলকর, ব্রায়ান লারার অন্ধ ভক্ত। ক্রিকেটের...

Leave a comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *