সাকিব আল হাসান ছাড়াও ভারতীয় বুকি দীপক আগরওয়াল এই তারকাদের সঙ্গেও করেছিলেন ফিক্সিংয়ে জন্য যোগাযোগ

বাংলাদেশের প্রাক্তন অধিনায়ক আর তারকা অলরাউন্ডার সাকিব আল হাসান বুকিদের সঙ্গে যোগাযোগের জালে এমন ফেঁসেছেন যে তাকে আন্তর্জাতিক ক্রিকেট থেকে দু বছরের জন্য দূর হতে হয়েছে। বাংলাদেশের সবচেয়ে অভিজ্ঞ খেলোয়াড় সাকিব আল হাসানকে মঙ্গলবার বুকি দ্বারা যোগাযোগ করার খোলসা করার পর আইসিসি দু বছরের জন্য ব্যান করে দিয়েছে।

সাকিবের মত বাংলাদেশের আরো এক তারকা খেলোয়াড়ের সঙ্গে বুকি করেছিল যোগাযোগ

সাকিব আল হাসান ছাড়াও ভারতীয় বুকি দীপক আগরওয়াল এই তারকাদের সঙ্গেও করেছিলেন ফিক্সিংয়ে জন্য যোগাযোগ 1

এর সঙ্গেই সাকিব আল হাসানের বেশ কিছু বড়ো টুর্নামেন্টে খেলার স্বপ্ন ধাক্কা খেয়েছে। এই ব্যানের পর সাকিব আল হাসানকে টি-২০ বিশ্বকাপের মত বড়ো টুর্নামেন্টও হারাতে হয়েছে। যদিও সাকিব আল হাসান ২০২০ অক্টোবরে ক্রিকেটে অবশ্যই প্রত্যাবর্তন করতে পারে, কিন্তু তাকে আন্তর্জাতিক ক্রিকেট থেকে পুরো দু বছর বাইরে থাকতে হবে।

তামিম ইকবালের সঙ্গেও বুকি দীপক আগরওয়াল করেছিল যোগযোগ

সাকিব আল হাসান ছাড়াও ভারতীয় বুকি দীপক আগরওয়াল এই তারকাদের সঙ্গেও করেছিলেন ফিক্সিংয়ে জন্য যোগাযোগ 2

সাকিব আল হাসানের উপর এই জাল বুকি দীপক আগরওয়াল ফেলেছেন যিনি সাকিবকে এক বা দু বার নয় বরং তিনবার ম্যাচ ফিক্সিংয়ের দাবী নিয়ে যোগাযোগ করেছিলেন। সাকিব কোনো ম্যাচ ফিক্সিং তো করেননি কিন্তু বুকি দ্বারা যোগাযোগ করার তথ্য লুকোনো দাম তাকে চোকাতে হয়েছে। বুকি দীপক আগরওয়াল তো সাকিবকে দু বছরের জন্য ক্রিকেট থেকে দূরে করে দিয়েছেন তো সেই সঙ্গে তিনি বাংলাদেশের অন্য তারকা তামিম ইকবালের উপরও এই জাল ফেলেছিল। কিন্তু তামিম ইকবাল এর তথ্য বিসিবিকে দিয়েছিলেন।

তামিম ইকবাল বুদ্ধিমত্তা দেখিয়ে দিয়েছিলেন বিসিবিকে তথ্য

সাকিব আল হাসান ছাড়াও ভারতীয় বুকি দীপক আগরওয়াল এই তারকাদের সঙ্গেও করেছিলেন ফিক্সিংয়ে জন্য যোগাযোগ 3

একটি বাংলা নিউজপেপার কালের কণ্ঠের রিপোর্টের কথা ধরা হলে বাংলাদেশের তারকা খেলোয়াড় তামিম ইকবালের সঙ্গেও দীপক আগরওয়াল যোগাযোগ করেছিল। আইসিসির অ্যান্টি করাপশন ইউনিট এই বছর জানুয়ারিতে নিজেদের তদন্তে বাংলাদেশের ৬ জন খেলোয়াড়দের সঙ্গে কথা বলেছিল। যাদের মধ্যে তামিম ইকবালও শামিল ছিলেন। যাতে জানা গিয়েছে যে বুকি তামিমকে হোয়াটসাঅ্যাপে মেসেজ করেছিল কিন্তু তামিম তাকে ব্লক করে দিয়েছিলেন। তামিম নম্বর ব্লক করার সঙ্গেই এর তথ্য বিসিবির অ্যান্টি করাপশন ইউনিটকেও জানিয়েছিলেন। এই মামলার পর তামিম ইকবালকে বিসিবির অ্যান্টি করাপশন ইউনিট ক্লীন চিট দিয়ে দেয়। অন্যদিকে সকলেই অবাক হচ্ছে যে তামিমের মত সাকিব এর খোলসা কেনো করেননি।

Leave a comment

Your email address will not be published.