ভারতের কর্তৃত্ব কায়েম, এশিয়া একাদশে কোনো পাকিস্তানী খেলোয়াড়কে দেওয়া হলো না জায়গা 1

বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ড নিজেদের জাতির জনক শেখ মুজিবউর রহমানের জন্ম শতবর্ষ পালন করছে। এই অবসরে বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ডের বিসিসিআইয়ের কাছে আবেদনের পর দুটি টি-২০ ম্যাচের আয়োজন করা হচ্ছে। বাংলাদেশে এই উপলক্ষে এশিয়া একাদশ আর বিশ্ব একাদশের মধ্যে দুটি টি-২০ ম্যাচের সিরিজ খেলা হবে। আন্তর্জাতিক ক্রিকেট কাউন্সিলকে এই ম্যাচকে অফিসিয়াল মান্যতা দেওয়ারও আবেদন করা হয়েছে। ভারত আর পাকিস্তানের মধ্যে সম্পর্ককে মাথায় রেখে এটা পরিস্কার যে এই ম্যাচদুটিতে দুই দেশের মধ্যে কোনো একটি দেশেরই খেলোয়াড়রা অংশ নেবেন।

এশিয়া একাদশে নেই একজনও পাকিস্তানী খেলোয়াড়

ভারতের কর্তৃত্ব কায়েম, এশিয়া একাদশে কোনো পাকিস্তানী খেলোয়াড়কে দেওয়া হলো না জায়গা 2

ভারত আর পাকিস্তানের মধ্যে সম্পর্কের ব্যাপারে সকলেই জানেন। ভারতীয় ক্রিকেট কন্ট্রোল বোর্ডও দুই দেশের মধ্যেকার সম্পর্ককে মাথায় রেখেই এখন নিজেদের মধ্যে কোনো দ্বিপাক্ষিক সিরিজ খেলে না। এমনকী এশিয়া একাদশের দলেও ভারত পাকিস্তানী খেলোয়াড়দের সঙ্গে শামিল হতে চাননা। বাংলাদেশে বিশ্ব একাদশের বিরুদ্ধে খেলা হতে চলা ম্যাচে টিম ইন্ডিয়ার খেলোয়াড়রা তখনই শামিল হবেন যখন পাকিস্তানী খেলোয়াড়রা তাতে অংশ না নেন। ভারত পাকিস্তানের সঙ্গে খেলতে চায় না, আর এই অবস্থায় এটা নিশ্চিত যে এশিয়া একাদশের দলে তারা পাকিস্তানী খেলোয়াড়দের সঙ্গে শামিল হবে না।

বিসিসিআইয়ের সংযুক্ত সচিব জয়েশ জর্জ আইএনএনএসের সঙ্গে কথা বলতে গিয়ে বলেছেন –

ভারতের কর্তৃত্ব কায়েম, এশিয়া একাদশে কোনো পাকিস্তানী খেলোয়াড়কে দেওয়া হলো না জায়গা 3

“ভারত আর পাকিস্তানের খেলোয়াড়রা এশিয়া একাদশে থাকবেন এমন কিছু হবে না, কারণ যে মেসেজ পাওয়া গিয়েছে তার মোতাবেক পাকিস্তানের খেলোয়াড়দের আমন্ত্রণ পাঠানো হবে না”।

তিনি আগে বলেন –

“যে কথা আমরা জানি যে এশিয়া একাদশের দলে কোনো পাকিস্তানী খেলোয়াড়ই থাকবেন না। যে মেসেজ পাওয়া গিয়েছে তার মোতাবেক তো এটা প্রশ্নই ওঠে না যে দুই দেশ একসঙ্গে আসছে না কী কোনো একজনকে বাছা হবে। সৌরভ গাঙ্গুলী এই বিষয়টি ঠিক করবেন যে কোন পাঁচজন খেলোয়াড় নির্বাচিত হবেন যারা এশিয়া একাদশের দলে শামিল হবেন”।

পাকিস্তানী খেলোয়াড়দের এশিয়া একাদশে না খেলার কী কারণ

ভারতের কর্তৃত্ব কায়েম, এশিয়া একাদশে কোনো পাকিস্তানী খেলোয়াড়কে দেওয়া হলো না জায়গা 4

আপনাদের জানিয়ে দিই যে ভারত তথা পাকিস্তানের রাজনৈতিক সম্পর্ক এই বিষয়ের প্রধান কারণ। কিন্তু এর আরো একটা কারণ পাকিস্তান ক্রিকেট বোর্ডের চেয়ারম্যান এহসান মানির ভারতের বিরুদ্ধে সেই মন্তব্যও হতে পারে যেখানে তিনি বিদেশী খেলোয়াড়দের জন্য পাকিস্তানকে সুরক্ষিত তথা ভারতকে অসুরক্ষিত দেশ বলে জানিয়েছিলেন।

তিনি পাকিস্তান তথা শ্রীলঙ্কার মধ্যে হওয়া টেস্ট সিরিজ সফলভাবে করার পর বলেছিলেন –

ভারতের কর্তৃত্ব কায়েম, এশিয়া একাদশে কোনো পাকিস্তানী খেলোয়াড়কে দেওয়া হলো না জায়গা 5

“আমরা প্রমাণ করেছি যে পাকিস্তান সুরক্ষিত দেশ। যদি কেউ এখানে না আসে তো তার একথা প্রমাণ করা উচিত যে এই জায়গাটা অসুরক্ষিত। এই মুহূর্তে তো ভারতে পাকিস্তানের তুলনায় অনেক বেশি সুরক্ষা নিয়ে ঝুঁকি রয়েছে”।

suvendu debnath

কবি, সাংবাদিক এবং গদ্যকার। শচীন তেন্ডুলকর, ব্রায়ান লারার অন্ধ ভক্ত। ক্রিকেটের...

Leave a comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *