আফগানিস্তানের বিরুদ্ধে রোমাঞ্চকর জয়ের পর কেদার জাধব একে দিলেন জয়ের শ্রেয় 1

বিশ্বকাপ ২০১৯ এর শুরু হয়ে গিয়েছে। এবারের বিশ্বকাপ ইংল্যাণ্ড আর ওয়েলসে খেলা হচ্ছে। এই বিশ্বকাপের ফাইনাল ম্যাচ ১৪ জুলাই লর্ডসের ঐতিহাসিক মাঠে খেলা হবে। ভারতীয় দল বিশ্বকাপের ২৮তম ম্যাচে নিজের দুর্দান্ত বোলিংয়ের দমে আফগানিস্তানকে হারিয়ে দিয়েছে। কেদার জাধবের মতে দলকে বেশ কিছু বিভাগে উন্নতি করতে হবে।

আফগানিস্তানের বিরুদ্ধে মুশকিলভাবে জিতেছে ভারতীয় দল

আফগানিস্তানের বিরুদ্ধে রোমাঞ্চকর জয়ের পর কেদার জাধব একে দিলেন জয়ের শ্রেয় 2

এই বিশ্বকাপে ২৮তম ম্যাচে ভারত আর আফগানিস্তানের দল মুখোমুখি হয়েছিল। এই ম্যাচে ভারতীয় দল টস জিতে প্রথমে ব্যাটিং করার সিদ্ধান্ত নেয়। ভারতীয় দলের হয়ে অধিনায়ক বিরাট কোহলি ৬৭ রান আর কেদার জাধব ৫২ রান করেছেন যার সাহায্যে ভারতীয় দল ৫০ ওভারে ৮ উইকেট হারিয়ে ২২৪ রান করে।
এই লক্ষ্য তাড়া করতে নামা আফগানিস্তান দলের হয়ে মহম্মদ নবী ৫২ রান আর রহমত শাহ ৩৬ রান করে যার সাহায্যে আফগান দল সমস্ত উইকেট হারিয়ে ২১৩ রানই করতে পারে। এই ম্যাচে মহম্মদ শামি হ্যাটট্রিক করেন। জসপ্রীত বুমরাহকে দুর্দান্ত বোলিংয়ের জন্য ম্যান অফ দ্যা ম্যাচ নির্বাচিত করা হয়।

কেদার জাধব বললেন এখনো শুধরোনোর প্রয়োজন

আফগানিস্তানের বিরুদ্ধে রোমাঞ্চকর জয়ের পর কেদার জাধব একে দিলেন জয়ের শ্রেয় 3

ম্যাচের পর হওয়া প্রেস কনফারেন্সে কেদার জাধব দলের প্রদর্শনের ব্যাপারে বলতে গিয়ে বলেন,

“যখন আমি ব্যাটিং করতে যাই তো আমি জানতে পেরে গিয়েছিলাম যে এখানে ব্যাটিং করা সহজ হবে না। বল ভীষণই ধীর গতিতে ব্যাটে আসছিল। এই পিচে আপনাকে সময় নিয়ে শট খেলতে হত। পিচ স্লো হওয়ার কারণে বড়ো শট খেলতে আপনি একদমই সাহায্য পান না।”

তিনি আগে বলেন,

“আমরা নিজেদের খেলায় আরো বেশি উন্নতি করব। কিন্তু এই দলের ছাড়া আর কারোরই ২বা ৩জন ভাল স্পিনার মজুত নেই। আমরা জানতাম যে আমাদের জোরে বোলার শেষ ওভারে কি ধরণের বোলিং করতে পারে”।

জাধব করলেন মহম্মদ শামি আর আফগানিস্তান দলের প্রশংসা

আফগানিস্তানের বিরুদ্ধে রোমাঞ্চকর জয়ের পর কেদার জাধব একে দিলেন জয়ের শ্রেয় 4

এই ম্যাচে ৫২ রান করে ভারতীয় দলকে সম্মানজনক স্কোরে পৌঁছে দেওয়া কেদার জাধব বলেন যে,

“মহম্মদ শামি দুর্দান্ত বোলিং করেছে। প্রত্যাবর্তন করার সময় এই ধরণের বোলিং করা সহজ হয় না। এই পিচে আমরা ২৫০ রানের কথা ভাবছিলাম, কিন্তু ততটা করতে পারি নি। কিন্তু আমাদের বোলারদের উপর সম্পূর্ণ ভরসা ছিল”।

suvendu debnath

কবি, সাংবাদিক এবং গদ্যকার। শচীন তেন্ডুলকর, ব্রায়ান লারার অন্ধ ভক্ত। ক্রিকেটের...

Leave a comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *