ওয়েস্টইন্ডিজের বিরুদ্ধে পাওয়া হারের পর বিরাট কোহলির মনে পড়ল এই দুই খেলোয়াড়কে, বললেন এই দুজন দলে থাকলে হারাতে পারত না কেউ

ভারত আর ওয়েস্টইন্ডিজের মধ্যে গতকাল তৃতীয় ওয়ানডে ম্যাচ খেলা হয়েছে। এই ম্যাচে ভারত টসে জেতে আর প্রথমে বল করার সিদ্ধান্ত নেয়। ভারত গতকালের ম্যাচে তিনটি পরিবর্তন করেছিল। ভারতকে এই ম্যাচ জয়ের প্রবল দাবীদার মনে করা হচ্ছিল। কিন্তু একমাত্র কোহলিই ভারতের তরফে একাই ব্যাট করতে পারেন বাকি ব্যাটসম্যানরা ব্যর্থ হন। ভারতের হারের কারণ তাদের খারাপ ব্যাটিং ছিল।

ভারতকে পড়তে হয় হারের মুখে
ওয়েস্টইন্ডিজের বিরুদ্ধে পাওয়া হারের পর বিরাট কোহলির মনে পড়ল এই দুই খেলোয়াড়কে, বললেন এই দুজন দলে থাকলে হারাতে পারত না কেউ 1
প্রথমে ব্যাট করতে নেমে ওয়েস্টইন্ডিজ ভারতের বিরুদ্ধে ২৮৩ রানের স্কোর করে। ওয়েস্টইন্ডিজের হয়ে শাই হোপ আরও একবার সংকটমোচকের ভূমিকা পালন করেন। তিনি ৯৫ রানের ইনিংস খেলেন। অ্যাসলে নার্সও ৪০ রানের ইনিংস খেলে দলের স্কোর ২৮০ পর্যন্ত পৌঁছন।
ওয়েস্টইন্ডিজের বিরুদ্ধে পাওয়া হারের পর বিরাট কোহলির মনে পড়ল এই দুই খেলোয়াড়কে, বললেন এই দুজন দলে থাকলে হারাতে পারত না কেউ 2
২৮৩ রানের স্কোর তাড়া করতে নেমে ভারতের পুরো দল মাত্র ২৪০ রানেই অলআউট হয়ে যায়। ভারতের হয়ে অধিনায়ক কোহলি ১০৭ রানের ইনিংস খেলেন। তিনি ছাড়া আর কোনও ব্যাটসম্যান বিশেষ কিছুই করতে পারেননি। আর দল হারের মুখে পড়ে।

আমরা নিজেদের হারের জন্য দায়ী
ওয়েস্টইন্ডিজের বিরুদ্ধে পাওয়া হারের পর বিরাট কোহলির মনে পড়ল এই দুই খেলোয়াড়কে, বললেন এই দুজন দলে থাকলে হারাতে পারত না কেউ 3
দলের হার নিয়ে কথা বলতে গিয়ে ভারত অধিনায়ক বিরাট কোহলি বলেন,

“ আমার মনে হয় আমরা ভালো বোলিং করেছি। উইকেট থেকে শুরুয়াতি ৩৫ ওভারে কোনও সাহায্যে পাওয়া যায়নি। যখন দলের রান৮ উইকেটে ২২৭ রান ছিল তখন তো আমরা মাত্র ২৬০ রান পর্যন্ত আশা করতে পারি। এই স্কোর সহজেই হাসিল করা যেতে পারত। আমরা পার্টনারশিপ গড়তে পারিনি। আমরা আজ ভালো বোলিং করেছি”।

আগে বলতে গিয়ে তিনি বলেন যে,

“ওয়েস্টইন্ডিজের কাছে এক বিস্ফোরক দল রয়েছে আর নিজেদের দিনে তারা যে কোনও দলকেই হারাতে পারে”।

অন্যদিকে দলের ভারসাম্য নিয়ে কথা বলতে গিয়ে তিনি বলেন যে,

“যখন দলে আপনার কাছে কেদার আর হার্দিক থাকে তো আপনার কাছে বিকল্প বেশি থাকে। এই অবস্থায় ওদের না খেলার কারণে আমাদের দলের ভারসাম্য খারাপ হয়েছে”।

হার নিয়ে কথা বলতে গিয়ে তিনি বলেন,

“আমি ম্যাচ শেষ করতে চাইতাম, কিন্তু এমনটা হয়নি। ম্যাচে হার জিত থাকেই”।

suvendu debnath

কবি, সাংবাদিক এবং গদ্যকার। শচীন তেন্ডুলকর, ব্রায়ান লারার অন্ধ ভক্ত। ক্রিকেটের...

Leave a comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *