ভারত বনাম অস্ট্রেলিয়া: এমএস ধোনি স্ট্যাম্পিং এড়াতে ২.১৪মিটার স্ট্রেইচ করলেন, দেখলে আপনিও হবেন অবাক

ক্রিকেটে মাঝে মাঝে এমন কিছু অবিশ্বসনীয় ব্যাপার ঘটে যা প্রায়শই দর্শকদের আশ্চর্যচকিত করে। যদিও এমএস ধোনির মত অভিজ্ঞ ক্রিকেটারের কাছে এই ধরনের ঘটনা খুবই স্বাভাবিক। ভারত অস্ট্রেলিয়ার দ্বিতীয় টি-২০ ম্যাচে ভারতীয় ইনিংস চলার সময় অস্ট্রেলীয় লেগ স্পিনার অ্যাডাম জাম্পা বল করতে আসতেই ধোনি এমন কিছু করলেন স্ট্যাম্পিং এড়াতে যা দেখলে অবাক না হয়ে পারা যায় না। যখন ভারতীয় ইনিংস চলাকালীন ১১.২ ওভারে ভারতের স্কোর ৩ উইকেটে ৭৫ রান ছিল সেই সময় ধোনি ২.১৪ মিটার নিজেকে স্পিট করে এমন অ্যাটলেটিকজম দেখা যে অস্ট্রেলীয় উইকেটকিপার পিটার হ্যান্ডসকম্ব তাকে স্ট্যাম্পিং করতে ব্যর্থ হন।

কি ঘটেছিল
ভারত বনাম অস্ট্রেলিয়া: এমএস ধোনি স্ট্যাম্পিং এড়াতে ২.১৪মিটার স্ট্রেইচ করলেন, দেখলে আপনিও হবেন অবাক 1
যখন ধোনি অস্ট্রেলীয় স্পিনার অ্যাডাম জাম্পার মুখোমুখি হন সেই সময় জাম্পা দেখেন যে ধোনি মাটিতেই শট খেলেন, সেই সময় জাম্পা একটি বাইরের বল করেন ধোনির উইকেট পেতে, কিন্তু ধোনি নিজের প্রত্যুতপন্নমতিতা দেখিয়ে অবিশ্বসনীয় স্ট্রেচ করে ক্রিজে ফিরে আসেন। যা ক্রিকেট জগতে ভীষণ কম দেখতে পাওয়া যায়। প্রসঙ্গত এর আগেও ধোনি এই ধরণের কাজ করেছিলেন যখন ২০১৭র নভেম্বর মাসে ভারত নিউজিল্যাণ্ডের মুখোমুখি হয়েছিলেন। সেই সময় মিচেল স্ট্যানারের বলে বিট হওয়ারপর উইকেটকিপার গ্লেন ফিলিপস বল তালুবন্দী করার আগেই ধোনি ক্রিজে ফিরে এসেছিলেন একইভাবে।

সমালোচিত হচ্ছেন ধোনি
ভারত বনাম অস্ট্রেলিয়া: এমএস ধোনি স্ট্যাম্পিং এড়াতে ২.১৪মিটার স্ট্রেইচ করলেন, দেখলে আপনিও হবেন অবাক 2
অন্যদিকে যখন প্রথম ম্যাচে বিশাখাপট্টনমে অস্ট্রেলিয়ার বিরুদ্ধে ধোনি ৩৭ বলে ২৯ রানের স্লো ইনিংস খেলায় সমালোচিত হন, ফলে এই ম্যাচে ধোনির নিজেকে প্রমান করার ছিল। এবং ধোনি নিজেকে প্রমান করে যে তিনি যথেষ্ট ফিট বিপক্ষের বোলারদের সামলাতে। ধোনির এই অবিশ্বসনীয়ভাবে ক্রিজে ফিরে আসা ফিল্ড অ্যাম্পায়ারকেও হতচকিত করে দেয় এবং তিনি তৃতীয় অ্যাম্পায়ারের সাহায্য নেন ‘মাহি’ ক্রিজে ফিরতে পেরেছিলেন কিনা নিশ্চিত হতে। যদিও টিভি রিপ্লেতে পরিস্কার দেখা যায় যে এই উইকেটকিপার ব্যাটসম্যান একদম সঠিক সময়েই ক্রিজে ফিরে আসতে পেরেছিলেন।

নিজেকে প্রমান করলেন ধোনি
ভারত বনাম অস্ট্রেলিয়া: এমএস ধোনি স্ট্যাম্পিং এড়াতে ২.১৪মিটার স্ট্রেইচ করলেন, দেখলে আপনিও হবেন অবাক 3
৩৭ বছর বয়েসী ধোনিকে নিয়ে যথেষ্ট সন্দেহ দেখা দিয়েছিল যে তাকে দলে রাখা উচিৎ কিনা, কিন্তু এই কিংবদন্তী অধিনায়ক প্রমান করে কেন নির্বাচকরা তাকে জাতীয় দলে ফেরত এনেছেন। এই ম্যাচে ধোনি তিনটি ছয় এবং তিনটি বাউন্ডারির সাহায্যে ২৩ বলে ৪০ রান করেন। তার স্ট্রাইকরেট ছিল ১৭৩.৯১। প্রসঙ্গত এই ম্যাচে অস্ট্রেলীয় অধিনায়ক অ্যারণ ফিঞ্চ টসে জেতে এবং প্রথমে বল করার সিদ্ধান্ত নেন। ভারত এই ম্যাচে অধিনায়ক বিরাট কোহলি ৩৮ বলে ৭২ রানের দুর্দান্ত অপরাজিত ইনিংসের সৌজন্যে নির্ধারিত ২০ ওভারে চার উইকেট হারিয়ে ১৯০ রান তোলে। এই ইনিংসে বিরাট ৬টি ছয় এবং দুটি চার মারেন। সেই সঙ্গে দীনেশ কার্তিকও ৩ বলে আট রান করে অপরাজিত থাকেন। ইনিংসের শুরুয়াতে কেএল রাহুল ২৬ বলে ৪৭ রানের দুর্দান্ত ইনিংস খেলে ভারতকে দুর্দান্ত শুরুয়াত দেন। তার ইনিংস মোট ৩টি চার এবং চারটি ছয় দিয়ে সাজানো ছিল।

এখানে দেখুন ভিডিয়ো:

suvendu debnath

কবি, সাংবাদিক এবং গদ্যকার। শচীন তেন্ডুলকর, ব্রায়ান লারার অন্ধ ভক্ত। ক্রিকেটের...

Leave a comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *