অনুর্ধ্ব ১৯ বিশ্বকাপের ফাইনাল হওয়া বিতর্ক নিয়ে শচীন তেন্ডুলকর ভাঙলেন নিরবতা, বললেন…

দক্ষিণ আফ্রিকার আতিথেয়তায় খেলা হওয়া অনুর্ধ্ব ১৯ বিশ্বকাপ ২০২০র ফাইনাল ম্যাচে বাংলাদেশ ভারতকে হারিয়ে খেতাবি জয় হাসিল করে ফেলেচে। এই জয়ের পর দুই দলের তরুণ খেলোয়াড়রা একে অপরের বিরুদ্ধে লড়াইতে নামে। এই কারণে আইসিসি খেলোয়াড়দের বিরুদ্ধে অ্যাকশনও নেয়। কিন্তু তরুণ খেলোয়াড়দের মধ্যে এই ধরণের ব্যবহার দেখে সকলেই নিরাশ হন। এখন এই ঘটনা নিয়ে শচীন তেন্ডুলকরও নিজের বক্তব্য রেখেছেন।

শেখা মানুষের চরিত্রের উপর নির্ভর করে

অনুর্ধ্ব ১৯ বিশ্বকাপের ফাইনাল হওয়া বিতর্ক নিয়ে শচীন তেন্ডুলকর ভাঙলেন নিরবতা, বললেন… 1

অনুর্ধ্ব ১৯ বিশ্বকাপে বাংলাদেশ খেতাবি জয় পায়। এরপর তারা ভারতীয় খেলোয়াড়দের কাছে এসে জয় সেলিব্রেট করছিলেন। এরপর দুই দলের খেলোয়াড়দের মধ্যে তর্ক শুরু হয় আর দ্রতই তা ধাক্কাধাক্কিতে বদলে যায়। ক্রিকেটকে লজ্জিত করা এই ঘটনা নিয়ে কথা বলতে গিয়ে শচীন তেন্ডুলকর হিন্দুস্তান টাইমসকে বলেন,

“একজন মানুষ কোনো ব্যক্তিকে শেখানোর চেষ্টা করতে পারে, কিন্তু এটা সেই ব্যক্তির চরিত্রের উপরও নির্ভর করে যে তিনি কি শেখেন। সংকটের পরিস্থিতিতে মানুষকে কিছু জিনিসের উপর নিয়ন্ত্রণ করা উচিত আর এটা ভোলা উচিত নয় যে পুরো বিশ্ব তাদের দেখছে”।

আক্রামণত্মকতা আপনার খেলায় থাকা উচিত

অনুর্ধ্ব ১৯ বিশ্বকাপের ফাইনাল হওয়া বিতর্ক নিয়ে শচীন তেন্ডুলকর ভাঙলেন নিরবতা, বললেন… 2

অনুর্ধ্ব ১৯ বিশ্বকাপে ভারত-বাংলাদেশের খেলোয়াড়দের মধ্যে হওয়া হাতাহাতি নিয়ে সমস্ত খেলোয়াড়রা নিজেদের বিচার প্রকাশ করেছেন। এখন শচীন আগে এই বিষয়ে কথা বলতে গিয়ে বলেন,

“এই কারণে আমার মনে হয় যে এমন মুহূর্ত হয় যেখানে কন্ট্রোল্ড অ্যাগ্রেশন সাহায্য করে। খেলোয়াড়দের আক্রামণাত্মক হওয়া উচিয়, কিন্তু বলা আর খারাপ ভাষার ব্যবহার করা মানেই আক্রামনাত্মকতা নয়। আক্রামণাত্মকতা আপনার খেলায় থাকা উচিত যা দলকে সাহায্য করবে না কি তা দলে বিরুদ্ধে যাবে”।

শুরু থেকেই বাংলাদেশ করছিল স্লেজিং

অনুর্ধ্ব ১৯ বিশ্বকাপের ফাইনাল হওয়া বিতর্ক নিয়ে শচীন তেন্ডুলকর ভাঙলেন নিরবতা, বললেন… 3

বাংলাদেশ ক্রিকেট দল শুরু থেকেই ভারতীয় খেলোয়াড়দের স্লেজ করছিল। যশস্বী জয়সওয়াল তাদের স্লেজিংয়ের মুখোমুখি হয়ে বড়ো ইনিংস খেলেন। কিন্তু খেলা শেষ হওয়ার পর বাংলাদেশী খেলোয়াড়দের উৎসব পালন করার ধরণও অদ্ভুত ছিল। তারা ভারতীয় খেলোয়াড়দের কাছাকাছি এসে নিজেদের উৎসব পালন করছিলেন। যা নিয়ে ভারতীয় খেলোয়াড়রাও রেগে যান আর দুই দলের মধ্যে মাঠের মাঝেই তর্কাতর্কি শুরু হয়ে যায়। যা ধীরে ধীরে হাতাহাতিতে বদলে যায়। এই নিরাশাজনক ব্যবহারের পর অধিনায়ক আকবর আলি প্রেস কনফারেন্স চলাকালীন ক্ষমাও চান। তবে আইসিসি পরিস্কার ইমেজের এই খেলায় এমন লজ্জাজনক প্রদর্শনের জন্য ২জন ভারতীয় এবং ৩জন বাংলাদেশী খেলোয়াড়ের উপর অ্যাকশন নেয়।

suvendu debnath

কবি, সাংবাদিক এবং গদ্যকার। শচীন তেন্ডুলকর, ব্রায়ান লারার অন্ধ ভক্ত। ক্রিকেটের...

Leave a comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *