তাদের সফল অধিনায়ককে রিটেন না করার সিদ্ধান্ত নিল কলকাতা নাইট রাইডার্স!

 

সম্প্রতি একটি টিভি চ্যানেলে দেওয়া গৌতম গম্ভীরের সাক্ষাৎকার অনুযায়ী কলকাতা নাইট রাইডার্স যে দলকে তিনি ২০১২ এবং ২০১৪য় নেতৃত্ব দিয়ে আইপিএল জিতিয়েছেন, সেই দলে তার অভিষ্যত অনিশ্চিত। এই সপ্তাহের গোড়াতেই গম্ভীর বলেন যে তিনি ক্লাবের কোথাও আলোচনায় তাকে রিটেনশন করার সম্ভবনার কথা শোনেন নি। সূত্রের মোতাবিক এই ফ্রেঞ্চাইজি আগামী চার জানুয়ারী তাদের প্লেয়ার রিটেনশনের তালিকা জমা দিতে চলেছে। এবং মনে করা হচ্ছে যে কলকাতা বেস এই ফ্রেঞ্চাইজি তাদের সবচেয়ে সফল অধিনায়কে সেই তালিকায় রাখতে ইচ্ছুক নন।

তাদের সফল অধিনায়ককে রিটেন না করার সিদ্ধান্ত নিল কলকাতা নাইট রাইডার্স! 1

যদি সবকিছু ঠিকঠাক থাকে শাহরুখ খানের সহমালিকানাধীন এই ফ্রেঞ্চাইজি সুনীল নারিনকে তুলে নিতে পারেন। অ্যান্ড্রু রাসেল যিনি প্রায় এক বছরের ব্যান কাটিয়ে মেনস্ট্রিম ক্রিকেটে ফিরেছেন তাকেও সম্ভবত লম্বা লাইনে দাঁড়াতে হতে পারে। যদিও এখনও হাতে রয়েছে রাইট টু কার্ডের অপশন। ফলে দুবারের চ্যাম্পিয়ন দলের হাতে গম্ভীরকে নিলামে তুলে নেওয়ার সুযোগ থাকছে। কিন্তু কেনো এই দল তাদের অধিনায়কে ছাড়াই এগোতে চাইছে?

তাদের সফল অধিনায়ককে রিটেন না করার সিদ্ধান্ত নিল কলকাতা নাইট রাইডার্স! 2

প্রায়োরিটির বদল

সূত্র, যিনি গত একবছর ধরে খুব কাছ থেকে ট্রেন্ডটিকে অনুসরণ করে চলেছেন, ইঙ্গিত করেছেন যে এই লিগের গতিপথ বদলের কারণেই এই ফ্রেঞ্চাইজির অগ্রাধিকারগুলিরও বদল ঘটেছে। এখন সাফল্য শুধুই বড় নয়াম বা বড়ো রান করলেই আসে না – সবকিছুই নির্ভর করে এখন স্ট্রাইক রেটের উপর। কিন্তু তাই যদিই হয় তাহলে গত মরশুমে গম্ভীর ১২৪.৬০ স্ট্রাইকরেট নিয়ে ৪৯৮ রান করেন। অন্যদিকে মজার ব্যাপার হল নারিনও পার্ট টাইম ব্যাটসম্যান হিসেবে গত মরশুমে কেকেআরের হয়ে ওপেন করেছেন এবং তার স্ট্রাইক রেট ছিল ১৭২.৩০। তবুও, এই কনসিডারেশন কেকেআর এর গৌতম গম্ভীরকে নিয়ে সম্ভাব্য সিদ্ধান্তের সাথে কোনও সম্পর্ক না থাকারই কথা এই সপ্তাহের শুরুতেই ওই ইন্টারভিউতে গম্ভীর আরও জানিয়েছেন যে আগামি আইপিএলে যে কোনও দলেই খেলার জন্য ওপেন রয়েছেন। কলকাতা দলে তার অনিশ্চিত ভবিষ্যতের ইঙ্গিত দিয়ে তিনি বলেন, “ আমি আমার ব্যাপারে জানি না (কেকেআর নিজের ভবিষ্যৎ প্রসঙ্গে)। সম্ভবত আমরা রঞ্জি ফাইনালের পরই কথা বলতে বসব। কিন্তু হ্যাঁ আমি যে কোনো ফ্রেঞ্চাইজির হয়ে খেলার জন্য ফ্রি রয়েছি”। যদি গম্ভীর এবং কেকেআরের মধ্যে সমঝোতা না হয়, তাহলে এটা প্রথমবার হবে না যে কেকেআর তাদের কোনো অধিনায়কে ছেড়ে দিল। ২০১১য় তারা তাদের প্রথম অধিনায়ক সৌরভকেও ছেড়ে দিয়েছিল। ওই আইপিএলের নিলাম শেষে সৌরভ অবিক্রিতই থেকে যান এবং পরে বর্তমানে আইপিএল থেকে বিলুপ্ত দল পুনে ওয়ারিয়ার্স তাকে তুলে নেয়। প্রচুর ফ্যানবেস নিয়ে গম্ভীর এখনও এই ফর্ম্যাটে খেলতে সক্ষম। যদিও এ ব্যাপারে এখনও কেকেআরের তরফে কিছুই জানানো হয়নি, এবং এটা দেখা বেশ ইন্টারেস্টিং হবে যে কিভাবে আগামি দিনে আসল রহস্যের সমাধান হয়।

suvendu debnath

কবি, সাংবাদিক এবং গদ্যকার। শচীন তেন্ডুলকর, ব্রায়ান লারার অন্ধ ভক্ত। ক্রিকেটের...

Leave a comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *