সত্য়িই এমনটা বাস্তবে হয় নাকি! ক্রিকেটপ্রেমীরা খেলা দেখতে গিয়ে মনে মনে অনেক রেকর্ডের কল্পনা করে নেন। সেটা যখন বাস্তবে পরিণত হয় ব্য়াপারটা যেন অবিশ্বাস্য় লাগে। যুবরাজের সেই ছয় বলে ছটা ছয়ের কথা মনে আছে। ওটা দেখার পরই আনন্দে লাফিয়ে উঠেছিলেন ক্রিকেটপ্রেমীরা। কিন্তু, ছবলে ছটা উইকেট, মানে ডাবল হ্য়াটট্রিক! জিম লেকার আর অনিল কুম্বলের টেস্টের আসরে দশটা উইকেট নেওয়াটা বিরল হলেও, অবাস্তব নয়। কিন্তু, পরপর ছ বলে ছটা উইকেট। এযেন স্বপ্ন দেখার মতো। আর সেই স্বপ্নটাকে কল্পনার ভাবরাজ্য়ের বাইরে এনে বাস্তবে পরিণত করল এক কিশোর ক্রিকেটার।

উইকেট নেওয়া সব বোলাররেই মনের ইচ্ছা। ওটাই তো বোলারের কাজ। এক ওভারের ছটি বলে কেউ যখন তিনটি উইকেট নিয়ে হ্য়াটট্রিক করেন, তখন  তাকে উচ্ছ্বাসে ফেটে পড়তে দেখে ফ্য়ানেরাও মাতোয়ারা ওঠেন। আর সেই রেকর্ডকে ছাপিয়ে নিজেরই এক অনন্য় কির্তী স্থাপন করল তোরো বছরের ইংল্য়ান্ডের এক স্কুল পড়ুয়া। নাম লুক রবিনসন।

হাউটন-লে-স্প্রিংয়ের কাছে উত্তর-পূর্ব ইংল্য়ান্ডের টাইন ও ওয়্য়ারে অবস্থিত ফিলাদেলফিয়া ক্রিকেট ক্লাব আয়োজিত অনূর্ধ্ব-১৩ টুর্নামেন্টে এক চমকপ্রদ ম্য়াচ উইনিং স্পেল করে সবাইকে চমকে দিয়েছেন লুক। রেকর্ডের মুহূর্তটাও স্পেশাল। মাঠে তখন লুকের পুরো পরিবার উপস্থিত বলা চলে। তার বাবা স্টিফেন ওই ম্য়াচে আম্পায়ারিং করছিলেন। ছেলে যখন ডাবল হ্য়াটট্রিক করছে, বাবা তখন বোলার এন্ডে আম্পায়ারিং করছিলেন। আর লুকের মা হেলেন, ওই ম্য়াচের স্কোরার। তিনিই ছেলের এই অনন্য় কৃতিত্ব রেকর্ড বুকে তোলেন। ভাই ম্য়াথিউ মাঠে ফিল্ডিং করছিল সেই সময়। আর দাদু গ্লেন পুরো মুহূর্তটার সাক্ষী হয়ে রইলেন বাউন্ডারি লাইন থেকে।

স্টিফেন রবিনসন ম্য়াচের পর ছেলের রেকর্ড সম্পর্কে বলেন, মুহূর্তটা একেবারে সুক্ষ। আমি ত্রিশ বছর ধরে ক্রিকেট খেলেছি। হ্য়াটট্রিকও করেছি বহুবার। কিন্তু, এরকম মুহুর্ত কোনওদিন আগে দেখিনি। ওই সময় সময় যেন থমকে গিয়েছিল। ভাবছিলাম, এটা সত্য়ি ঘটছে তো?”

চলতি বছরের গোড়ার দিকে ঊনত্রিশ বছরের অ্য়ালেড কেরি একটি স্থানীয় ম্য়াচে ছবলে ছটি উইকেট নিয়ে সবাইকে চমকে দিয়েছিলেন। ব্য়ালারেট ক্রিকেট অ্য়াসোসিয়েশন ফোর্থ টিম ফিক্সচারের ওই ম্য়াচটিতে গোল্ডেন পয়েন্ট ক্রিকেট ক্লাবের হয়ে মাঠে নেমেছিলেন অ্য়ালেড।

উল্লেখ্য়, আন্তর্জাতিক ক্রিকেটের ইতিহাসে এখনও পর্যন্ত কোনও বোলার এই কৃতিত্বের অধিকারী হতে পারেননি। টেস্টের আসরে এখনও পর্যন্ত ছজন বোলার এক ওভারে পরপর চার বলে চারটি উইকেট নিয়েছেন। এর মধ্য়ে পাঁচজন ইংলিশ ক্রিকেটার। অপরজন পাকিস্তানের বোলিং লেজেন্ড ওয়াসিম আক্রাম। ১৯৯০ সালে লাহোরে ওয়েস্ট ইন্ডিজের বিরুদ্ধে ওই রেকর্ড গড়েছিলেন তিনি। একদিনের ক্রিকেটে শ্রীলঙ্কার লাসিথ মালিঙ্গা একমাত্র বোলার যিনি এক ওভারে পরপর চার বলে চারটি উইকেট দখল করেছেন। ২০০৭ বিশ্বকাপে এই বিরল কৃতিত্বের অধিকারী হন শ্রীলঙ্কার এই মিস্ট্রি স্পিডস্টার।

 

  • SHARE

    আরও পড়ুন

    খুশির খবর: বিরাটকে নিয়ে সংশয় জারি, কিন্তু বুমরাহের পর এই ভারতীয় খেলোয়াড়ও হলেন তৃতীয় টেস্টের জন্য ফিট

    খুশির খবর: বিরাটকে নিয়ে সংশয় জারি, কিন্তু বুমরাহের পর এই ভারতীয় খেলোয়াড়ও হলেন তৃতীয় টেস্টের জন্য ফিট
    ভারতীয় দল এবং ইংল্যান্ড দলের মধ্যে পাঁচ টেস্ট ম্যাচের সিরিজের তৃতীয় ম্যাচ আগামি ১৮ আগস্ট থেকে ট্রেন্টব্রিজ...

    এই প্লেয়ার আইপিএলে পান নি কোনও দল, এখন টিএনপিএলে করলেন সবচেয়ে বেশি রান

    এই প্লেয়ার আইপিএলে পান নি কোনও দল, এখন টিএনপিএলে করলেন সবচেয়ে বেশি রান
    আইপিএলের নিয়মেই তামিলনাড়ু প্রীমিয়ার লীগ খেলা হয়। টিএনপিএলের ২০১৮ মরশুম রবিবার শেষ হল। টিএনপিএলের এই মরশুমের চ্যাম্পিয়ন...

    বেন স্টোকের মামলায় আদালত শোনল নিজের রায়, জেনে নিন ছাড়া পেলেন নাকি মিলল সাজা

    বেন স্টোকের মামলায় আদালত শোনল নিজের রায়, জেনে নিন ছাড়া পেলেন নাকি মিলল সাজা
    ভারতীয় দল আর ইংল্যান্ডের মধ্যে পাঁচ টেস্ট ম্যাচের সিরিজ ইংল্যান্ডের মাটিতেই খেলা হচ্ছে। বর্তমানে ইংল্যান্ড দল এই...

    ভারত বনাম ইংল্যান্ড: গৌতম গম্ভীর এই ভারতীয় খেলোয়াড়কে করলেন ইংল্যান্ডের বিরুদ্ধে পাওয়া লজ্জাজনক হারের জন্য দায়ী

    ভারত বনাম ইংল্যান্ড: গৌতম গম্ভীর এই ভারতীয় খেলোয়াড়কে করলেন ইংল্যান্ডের বিরুদ্ধে পাওয়া লজ্জাজনক হারের জন্য দায়ী
    ভারত আর ইংল্যান্ডের মধ্যে চলা টেস্ট সিরিজে ভারত প্রথম দুটি টেস্ট হেরে গিয়েছে, আর এই দুই ম্যাচ...

    ভিডিয়ো: দ্বিতীয় টেস্ট ম্যাচ থেকে ছিটকে যাওয়া শিখর ধবন তৃতীয় টেস্ট ম্যাচের আগে করছেন এমন কিছু যে দলে জায়গা পাওয়া নিশ্চিত

    ভিডিয়ো: দ্বিতীয় টেস্ট ম্যাচ থেকে ছিটকে যাওয়া শিখর ধবন তৃতীয় টেস্ট ম্যাচের আগে করছেন এমন কিছু যে দলে জায়গা পাওয়া নিশ্চিত
    প্রথম টেস্ট ম্যাচে খারাপ প্রদর্শনের কারণে লর্ডস টেস্ট ম্যাচ থেকে ছিটকে যাওয়া শিখর ধবন জিমে কড়া মেহেনত...