আইপিএল ২০১৮র ঘন্টা ইতিমধ্যেই বাজা শুরু হয়েগেছে এর নিলামের সঙ্গে সঙ্গেই। এই ব্যাপারে সম্প্রতিক খবর অনুযায়ী বহু প্রতীক্ষিত প্লেয়ার রিটেনশনের নিয়ম ঘোষিত হয়েছে। এতদিন ধরে বহু ধোঁয়াশা ছিল যে ফ্রেঞ্চাইজি গুলি তাদের প্লেয়ার ধরে রাখতে পারবে কি না। ২০১৮ আইপিএলে রাজস্থান রয়্যাল এবং চেন্নাই সুপার কিংগসের ফেরার পর থেকেই বহু বড়ো মাপের আলোচনা হয়েছে এ নিয়ে। গতবছর আইপিএল রোস্টারে না থাকা এই দুই টিমের কোন কোন প্লেয়ারদের তারা ধরে রাখতে পারবে এ নিয়ে বহু উত্তেজনা দেখা দেয়। কিছু ফ্রেঞ্চাইজি অল ওপেন পুলের পক্ষে মত দিলেও কিছু মালিকপক্ষ তাদের প্লেয়ারদের ধরে রাখার পক্ষেই মত দেন। অন্যদিকে মালিক পক্ষের বড়ো একটা গ্রুপের দাবী ছিল অকশনে তাদের ম্যাচ কার্ডের অধিকার দেওয়া হোক। তবে উপরের উল্লেখিত সমস্ত ধোঁয়াশা্রই এই মুহুর্তে শেষ হয়েছে। ফ্রেঞ্চাইজিগুলি কম্বিনেশন অফ রিটেনশন রাইট টু ম্যাচের দহিকার ব্যবহার করে সর্বমোট ৫ জন করে প্লেয়ার ধরে রাখতে পারবে। ফ্রেঞ্চাইজিগুলি কোনো প্লেয়ারকে ধরে রাখতে পারে আবার নাও পারে। যদি তারা কোনো প্লেয়ারকে ধরে না রাখে সেক্ষত্রে তারা নিলামে ৩টি আরটিএম পাবে। যে কোনো ক্ষেত্রেই সর্বাধিক ৩টে রিটেনশন অথবা আরটিএমের অনুমতিই দেওয়া হয়েছে। প্লেয়ারদের নিলামে স্যালারি ক্যাপ নিয়ে আলোচনাও হয়েছে, ২০১৮ আইপিএলের জন্য প্লেয়ারদের স্যালারি ক্যাপ ধার্য হয়েছে ৮০ কোটি টাকা। এই ক্যাপ এক্সটেন্ড হয়েছে ২০১৯ আইপিএলের জন্য ৮২ কোটি, এবং ২০২০ আইপিএলের জন্য ৮৫ কোটি টাকা। এ সমস্তই সম্প্রতি আইপিএল গভর্নিং বডি নিশ্চিত করেছে।

সিএসকে এবং রয়্যালের জন্য প্লেয়ার পুল

সিএসকে এবং রয়্যালের জন্য প্লেয়ার পুল

রয়্যাল এবং সিএসকে নিলামে কতজন প্লেয়ার রিটেন বা আরটিএম করতে পারবে তা নিয়ে আলোচনা করা হয়েছে। এই আলোচনায় সিদ্ধান্ত হয়েছে যে ২০১৫ তাদের হয়ে খেলা প্লেয়ার নিয়েই তাদের জন্য একটি প্লেয়ার পুল খোলা হবে। এবং ২০১৭ আইপিএলে পুনে সুপার জায়ান্ট এবং গুজরাট লায়ন্সের হয়ে খেলা প্লেয়াররাও এই পুলে থাকবেন। আগেই উল্লেখ করা হয়েছে যে সর্বোচ্চ ৩ জন প্লেয়ারকেই প্রাক নিলামের আগে ধরে রাখা যাবে। যা নির্দেশ করে যে এমএস ধোনির সিএসকের হয়ে খেলার দিকে।

নিলামের সর্বনিম্ন রিজার্ভ প্রাইস

নিলামের সর্বনিম্ন সংরক্ষিত দামও নির্ধারিত করা হয়েছে। আনক্যাপড প্লেয়ারদের জন্য সংরক্ষিত মূল্য নির্ধারন করা হয়েছে ১০, ২০, এবং ৩০ লক্ষ টাকা থেকে ২০, ৩০ এবং ৪০ লক্ষ টাকা অব্ধি। ক্যাপড প্লেয়ারদের জন্য নিম্ন লিখিত মূল্য নির্ধারিত করা হয়েছে : ৩০ থেকে ৫০ লক্ষ টাকা; ৫০ থেকে ৭৫ লক্ষ টাকা; সেই সঙ্গে বসে প্রাইস আগের মতই রাখা হয়েছে যথা ক্রমে ১ কোটি, ১.৫ কোটি, এবং ২ কোটি টাকা।

দলের আয়তন

ফ্রেঞ্চাইজিগুলির জন্য দলের আয়তনও নির্ধারন করা হয়েছে। তারা সর্বোচ্চ ২৫ জন প্লেয়ার এবং সর্বনিম্ন ১৮ জন প্লেয়ারকে তারা দলে রাখতে পারবে। এবং এই দলে সর্বোচ্চ ৮জন করে বিদেশি প্লেয়ারকে রাখা যাবে।

  • SHARE
    সাংবাদিক, আদ্যন্ত ক্রীড়াপ্রেমী। দ্বিতীয় ডিভিসনে দীর্ঘদিন ক্রিকেট খেলার দরুণ ক্রিকেটের অন্ধ ভক্ত। ব্রায়ান লারা সচিনের অন্ধ ভক্ত। ক্রিকেটের বাইরে ব্রাজিলের সমর্থক এবং নেইমার ও মেসির অন্ধ ভক্ত।

    আরও পড়ুন

    তৃতীয় টি২০তে এই তারকার খেলা নিয়ে সন্দেহ

    পিটিআইয়ের একটি রিপোর্টের মোতাবিক তৃতীয় এবং ফাইনাল ওয়ান ডেতে জসপ্রীত বুমরাহের অংশ নেওয়া এখনও সন্দেহজন অবস্থায় রয়েছে।...

    বিশ্বকাপে ভারতীয় স্পিন বিভাগে কারা খেলবেন মুখ খুলনে নির্বাচক প্রধান

    বিশ্বকাপে ভারতীয় স্পিন বিভাগে কারা খেলবেন মুখ খুলনে নির্বাচক প্রধান
    ২০১৯ বিশ্বকাপের বাকি আর মাত্র দেড় বছর। তার আগে গত ২ বছর ধরেই দুরন্ত ফর্মে রয়েছে ভারতীয়...

    অনুষ্কাকে যাবতীয় কৃতিত্ব দিয়ে অবসর নিয়ে মুখ খুললেন কোহলি

    অনুষ্কাকে যাবতীয় কৃতিত্ব দিয়ে অবসর নিয়ে মুখ খুললেন কোহলি
    তার ব্যাটিং প্রতিভা নিয়ে সন্দেহ নেই কারও। সকলেই একবাক্যে স্বীকার করে নিয়েছেন যে তিনি ব্যাটিংয়ের জিনিয়াস। তামাম...

    প্রোটিয়াদের বিরুদ্ধে সদ্য সমাপ্ত একদিনের সিরিজে যে যে রেকর্ড গড়লেন ভারত অধিনায়ক বিরাট

    তার শ্রেষ্ঠত্ব মেনে নিয়েছে ক্রিকেট বিশ্বের সকলেই। বিশ্বের সর্বকালের সেরা একদিনের ক্রিকেটার হিসেবে তাকে মেনেও নিয়েছেন সকলে।...

    আইপিএলের প্রথম ম্যাচে খেলতে পারবেন না এই দুই অস্ট্রেলীয়

    আর মাত্র দেড় মাস বাকি আইপিএল শুরুর। এই মুহুর্তে স্ট্রাটেজি বানাতে শুরু করে দিয়েছে সমস্ত ফ্রেঞ্চাইজিই। কিন্তু...