লাইভ ম্যাচে খোলাখুলি ফিক্সিং করছিলেন পাকিস্তানী খেলোয়াড়! শোয়েব আকতার বিশ্বকে দেখালেন প্রমান

পাকিস্তান সুপার লীগ শুরু হয়েছে সবে মাত্র দুদিনই হয়েছে আর এই লীগে বিতর্ক শুরু হয়ে গিয়েছে। প্রথমবার এই লীগের পুরো মরশুম পাকিস্তানে খেলা হচ্ছে, যা নিয়ে সমর্থকরাও যথেষ্ট উৎসাহিত। কিন্তু এই মরশুমে বিতর্কও যোগ হয়ে গিয়েছে। আসলে পেশোয়ার জালমি আর করাচি কিংসের মধ্যে খেলা হওয়া ম্যাচে খেলোয়াড়দের ডাগআউটে দলের সঙ্গে যুক্ত ব্যক্তিদের মোবাইল ফোনে কথা বলতে দেখা যায়, যার ছবি ভাইরাল হওয়ার পর বিশ্বজুড়ে পাকিস্তানকে নিয়ে ছি ছি পড়ে গিয়েছে।

শোয়েব আকতার শেয়ার করেছেন ছবি

লাইভ ম্যাচে খোলাখুলি ফিক্সিং করছিলেন পাকিস্তানী খেলোয়াড়! শোয়েব আকতার বিশ্বকে দেখালেন প্রমান 1

আসলে আইসিসির নিয়ম অনুযায়ী ড্রেসিংরুম আর ডাগআউটে খেলোয়াড়দের মোবাইল ফোন ব্যবহার করা নিষিদ্ধ। কথাবার্তার জন্য টিম ম্যানেজমেন্টও স্রেফ ওয়াকিটকির ব্যবহার করতে পারে। পাকিস্তানের তারকা বোলার শোয়েব আকতার ডাগআউটে ফোন ব্যবহারের একটি ছবি শেয়ার করেছেন আর তিনি বলেছেন যে এটা যথেষ্ট ভুল। যদিও এই বিষয়টি নিয়ে পাকিস্তান ক্রিকেট বোর্ড এখনো পর্যন্ত কোনো প্রতিক্রিয়া দেয়নি। কিন্তু করাচি কিংসের কোচ ডিন জোন্স এই বিষয়ে সাফাই দিয়েছেন।

১৩তম ওভারে ধরা পড়ে ক্যামেরায়

লাইভ ম্যাচে খোলাখুলি ফিক্সিং করছিলেন পাকিস্তানী খেলোয়াড়! শোয়েব আকতার বিশ্বকে দেখালেন প্রমান 2

ম্যাচের ১৩তম ওভারে ক্যামেরায় এক ব্যক্তি ডাগআউটে মোবাইল ফোন ব্যবহার করতে ধরা পড়েন। তবে এমন মনে হচ্ছিল যে কোনো খেলোয়াড় বা টিম ম্যানেজমেন্টের কেউ ফোনে কথা বলছেন। দলের কোচ পরিস্কার করে দিয়েছেন যে ফোনে কথা বলা ব্যক্তি দলের সিইও তারিক। তিনি বলেছেন যে সিইও স্রেফ নিজের কাজ করছিলেন আর দলের প্র্যাকটিস সেশনের ব্যবস্থা করার চেষ্টা করছিলেন। তবে এখনো পর্যন্ত এই ব্যাপারে নিশ্চয়তা আসেনি যে ফোনে কথা বলা ব্যক্তি দলের সিইও-ই ছিলেন। জোন্স সাফাই দিয়ে বলেছেন যে টি-২০ ক্রিকেটে সিইও আর ম্যানেজারের মোবাইল ফোন ব্যবহার করার অনুমতি রয়েছে।

ম্যাচটি থেকেছে রোমাঞ্চকর

লাইভ ম্যাচে খোলাখুলি ফিক্সিং করছিলেন পাকিস্তানী খেলোয়াড়! শোয়েব আকতার বিশ্বকে দেখালেন প্রমান 3

পেশোয়ার আর করাচির মধ্যে খেলা হওয়া ম্যাচের কথা বলা হলে এই ম্যাচ যথেষ্ট রোমাঞ্চকর থেকেছে। এই ম্যাচটি করাচি ১০ রানে জিতে নেয়। প্রথমে ব্যাট করে করাচি বাবর আজম (৭৮) আর অধিনায়ক ইমাদ ওয়াসিমের (৫০) দুর্দান্ত হাফসেঞ্চুরির সৌজন্যে চার উইকেট হারিয়ে ২০১ রান করে। এর জবাবে পেশোয়ারের দল নির্ধারিত ওভারে ১৯১ রানই করতে পারে।

suvendu debnath

কবি, সাংবাদিক এবং গদ্যকার। শচীন তেন্ডুলকর, ব্রায়ান লারার অন্ধ ভক্ত। ক্রিকেটের...

Leave a comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *