কোনো খেলোয়াড় বা কোচকে নয়, বরং এই বিশেষ ব্যক্তিকে অজিঙ্ক রাহানে দিলেন সিরিজ জয়ের শ্রেয় 1

ভারতীয় ক্রিকেট দল অস্ট্রেলিয়াকে তাদেরই দেশের মাটিতে টেস্ট সিরিজে ২-১ ফলাফলে হারিয়ে বর্ডার-গাভাস্কার ট্রফি জিতে নিয়েছে। বিরাট কোহলির অনুপস্থিতিতে অজিঙ্ক রাহানের অধিনায়কত্বে ভারত এই ঐতিহাসিক জয় হাসিল করেছে। এরপর থেকেই চারদিকে রাহানের নেতৃত্ব নিয়ে আলোচনা চলছে আর এখন অধিনায়ক স্বয়ং জানিয়েছেন যে এই সফরে দল কীভাবে প্রত্যাবর্তন করেছিল।

দলের সঙ্গে ফিজিওরও রয়েছে শ্রেয়

কোনো খেলোয়াড় বা কোচকে নয়, বরং এই বিশেষ ব্যক্তিকে অজিঙ্ক রাহানে দিলেন সিরিজ জয়ের শ্রেয় 2

ভারত অস্ট্রেলিয়া সিরিজে সেই পরিস্থিতিতে সিরিজ জিতেছে যখন দল সিরিজের প্রথম ম্যাচ অ্যাডিলেডে লজ্জাজনকভাবে হেরেছিল আর দলের অধিনায়ক বিরাট কোহলি এরপর ছুটি নিয়ে দেশে ফিরে আসেন। কিন্তু তারপর দলের দায়িত্ব অজিঙ্ক রাহানে সামলান আর ইতিহাস গড়ে ফেলেন। রাহানে দলকে তো জয়ের শ্রেয় দিয়েছেনই কিন্তু বিশেষ করে তিনি এই জয়ের শ্রেয় ফিজিওকেও দিয়েছেন। স্পোর্টস তকে কথা বলতে গিয়ে রাহানে বলেন, “শুধু আমাকে নয় বরং দলের স্মস্ত খেলোয়াড়দের, সদস্যদের শ্রেয় দেওয়া উচিত। কারণ যদি কেউ সামান্যতমও যোগদান দিয়ে থাকে তো সেটা আমাদের জন্য জরুরী ছিল। অবশ্যই একটা চ্যালেঞ্জ ছিল, যখন আমরা অ্যাডিলেড থেকে বেরিয়ে মেলবোর্নে যাই, তো আমরা আগেই সিদ্ধান্ত নিয়ে ফেলি যে আমরা গত ম্যাএর ব্যাপারে একদম কথা বলব না যে অ্যাডিলেডে কী হয়েছে”।
তিনি আরও বলেন, “বিশেষ করে আমাদের দলের ফিজিওক শ্রেয় দেওয়া উচিত, কারণ যতই দলের অনেক খেলোয়াড় আহত গিয়ে থাকুক, যখনই আমরা মাঠে খেলতে যেতাম তো সবসময় একটা হাসি দিত যা আমাদের অনেক সাহায্য করেছে”।

অ্যাডিলেডের ব্যাপারে কথা না বলার নিয়েছিলেন সিদ্ধান্ত

কোনো খেলোয়াড় বা কোচকে নয়, বরং এই বিশেষ ব্যক্তিকে অজিঙ্ক রাহানে দিলেন সিরিজ জয়ের শ্রেয় 3

অ্যাডিলেড টেস্ট ম্যাচের দ্বিতীয় ইনিংসে ভারতীয় দল মাত্র ৩৬ রানের স্কোরেই অলআউট হয়ে গিয়েছিল। এই লজ্জাজনক হার সম্ভবত ভারত কখনও ভুলতে পারত। কিন্তু রাহানে জানিয়েছেন যে যখন তারা মেলবোর্ন টেস্টের প্রস্তুতি নিচ্ছিলেন তো তারা সিদ্ধান্ত নেন যে অ্যাডিলেডের ব্যাপারে কোনো কথা বলা হবে না। রাহানে বলেন, “হ্যাঁ, অ্যাডিলেডে অবশ্যই এক ঘন্টায় পুরো বিষয়টি বদলে গিয়েছিল, কিন্তু যপনি যদি দেখেন তো প্রথম আর দ্বিতীয়দিন আমরা ভালো ক্রিকেট খেলেছিলাম। তারপর আমরা এটাই ভেবেছি যে আমরা ভাল ক্রিকেট খেলেছি। স্রেফ এক ঘন্টা আমাদের জন্য খারাপ গিয়েছে, তো সেই কারণেই আমরা ম্যাচ হেরেছিল। এখন আমাদের এই ব্যাপারে মনোযোগ দেওয়া উচিত যে মেলবোর্নে আমাদের জন্য কী জরুরী। আমরা ম্যাচের রেজাল্টের ব্যাপারে ভাবছিলাম না, ব্যাস আমরা ভালো ফাইটিং স্পিরিট নিয়ে ক্রিকেট খেলতে চেয়েছিলাম”।

suvendu debnath

কবি, সাংবাদিক এবং গদ্যকার। শচীন তেন্ডুলকর, ব্রায়ান লারার অন্ধ ভক্ত। ক্রিকেটের...

Leave a comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *