INDvsAUS: অ্যারণ ফিঞ্চ হারের পরও নিজেদের এই দুই খেলোয়াড়ের করলেন প্রশংসা

ভারত আর অস্ট্রেলিয়ার মধ্যে ওয়ানডে সিরিজের দ্বিতীয় ম্যাচ গতকাল রাজকোটে খেলা হয়েছে। অস্ট্রেলিয়ার অধিনায়ক অ্যারণ ফিঞ্চ টস জিতে প্রথমে বোলিং করার সিদ্ধান্ত নেন। অতিথি দল সিরিজের প্রথম ম্যাচ ১০ উইকেটে জিতেছিল। ভারত রাজকোটের দ্বিতীয় ম্যাচ ৩৬ রানে জিতে সিরিজে সমতা ফিরিয়েছে।

ভারতীয় ব্যাটসম্যানরা এগিয়ে ছিলেন

INDvsAUS: অ্যারণ ফিঞ্চ হারের পরও নিজেদের এই দুই খেলোয়াড়ের করলেন প্রশংসা 1

অস্ট্রেলিয়ার অধিনায়ক অ্যারণ ফিঞ্চ হারের পর ভারতীয় ব্যাটিংয়ের প্রশংসা করেছেন। ফিঞ্চ স্বীকার করেছেন যে তার দল এই ম্যাচে এক উইকেটে পেছিয়ে ছিল। ম্যাচের পর পুরস্কার বিতরণী অনুষ্ঠানে তিনি বলেন,

“আমার আশা ছিল না যে এত ঠাণ্ডা থাকবে। আমার মনে হয়নি যে আমার লম্বা হাতার শোয়েটারের প্রয়োজন পড়বে। আমার মনে হয় যে আমরা এমন একটা উইকেটে পেছিয়ে থেকেছি যেখানে আমাদের পুরো বোলিং ইনিংস খেলার প্রয়োজন ছিল। কিন্ত ওরা বিশ্বস্তরীয় খেলোয়াড়”।

জম্পা-লাবুসেনের প্রশংসা করেছেন

INDvsAUS: অ্যারণ ফিঞ্চ হারের পরও নিজেদের এই দুই খেলোয়াড়ের করলেন প্রশংসা 2

অস্ট্রেলিয়ার হয়ে প্রথমবার ওয়ানডেতে ব্যাটিং করা মার্নস লাবুসেন ভারতীয় স্পিনারদের বিরুদ্ধে ভালো ব্যাটিং করেছেন। এর পাশাপাশি অ্যাডাম জাম্পা ৩ উইকেট নিয়েছেন। এই দুজনের ব্যাপারে অধিনায়ক অ্যারণ ফিঞ্চ বলেন,

“এখনো পর্যন্ত জাম্পা দারুন লেংথে বোলিং করেছে। যেভাবে আজ স্মিথ শুরু করেছিল আর প্রায় শেষ পর্যন্ত নিয়ে গিয়েছিল, কিন্তু সেটা যথেষ্ট ছিল না। মার্নস আর স্মিথ একমাত্র ঘুমোনোর সময় আলাদা থাকে। আমার মনে হয় যে এই পিচে সেট ব্যাটসম্যানদের ফায়দা তোলার প্রয়োজন ছিল”।

এক উইকেট পেছিয়ে থেকেছি

INDvsAUS: অ্যারণ ফিঞ্চ হারের পরও নিজেদের এই দুই খেলোয়াড়ের করলেন প্রশংসা 3

বোলিংয়ের মতোই ব্যাটিংয়েও অ্যারঞ্চ ফিঞ্চের মতে তার দল একটি উইকেট সময়ের আগেই বেশি হারিয়ে ফেলেছিল। ফিঞ্চ এর পেছনে প্রয়োজনীয় রান রেট বেড়ে যাওয়াকেও কারণ হিসেবে মনে করেছেন। এই ব্যাপারে তিনি বলেন,

“আমরা সবসময় এক উইকেট বেশি পেছনে ছিলাম। সেই সময় আমাদের এক উইকেট কম হারানো উচিত ছিল। এই কারণে প্রয়োজনীয় রানরেট বেড়ে গিয়েছিল”।

suvendu debnath

কবি, সাংবাদিক এবং গদ্যকার। শচীন তেন্ডুলকর, ব্রায়ান লারার অন্ধ ভক্ত। ক্রিকেটের...

Leave a comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *