AUS vs PAK: অস্ট্রেলিয়ার অধিনায়ক অ্যারণ ফিঞ্চ জয় সত্ত্বেও হলেন নিরাশ

আইসিসি বিশ্বকাপ ২০১৯এ আজ পাকিস্তানের সামনে অস্ট্রেলিয়ার চ্যালেঞ্জ ছিল। এই রোমাঞ্চকর ম্যাচকে অস্ট্রেলিয়া দল ৪১ রানে জিতে নেয়। এই বিশ্বকাপে এটি অস্ট্রেলিয়ার চতুর্থ ম্যাচে তৃতীয় জয় ছিল। অস্ট্রেলিয়া দল গত ম্যাচে ভারতের কাছে হেরে গিয়েছিল। তাদের হয়ে আজ ব্যাটসম্যান আর বোলাররা দুর্দান্ত প্রদর্শন করেছেন।

আমরা চাপে পড়ে গিয়েছিলাম

AUS vs PAK: অস্ট্রেলিয়ার অধিনায়ক অ্যারণ ফিঞ্চ জয় সত্ত্বেও হলেন নিরাশ 1

একসময় পাকিস্তানের ১৬০ রানে ৬ উইকেট পড়ে গিয়েছিল কিন্তু তারপরি হাসান আলি আর ওয়াহাব রিওয়াজ দুর্দান্ত ব্যাটিং করে দলকে ম্যাচে ফিরিয়ে আনেন। ম্যাচের পর অস্ট্রেলিয়ার অধিনায়ক অ্যারণ ফিঞ্চ বলেন,

“নিশ্চিতভাবেই আমরা চাপে পোড়ে গিয়েছিলাম। হাসান আর ওয়াহাবের মত খেলোয়ায়ড়রা বলের ভাল স্ট্রাইকার। যখন ওরা রোলে থাকে তো ওদের আটকানো মুশকিল। ব্যাস আমাদের সবচেয়ে ভালো বল করতে হত,তা সে লেংথ বল হোক বা ইয়র্কার। যখন আপনি এই ধরণের একটা ছোটো মাঠে নামেন তো আপনার বিরুদ্ধে রান হয়ই”।

ব্যাটিং নিয়ে নিরাশ

AUS vs PAK: অস্ট্রেলিয়ার অধিনায়ক অ্যারণ ফিঞ্চ জয় সত্ত্বেও হলেন নিরাশ 2

অস্ট্রেলিয়াকে এক সময় ৩৪০-৩৫০ এর স্কোরের দিকে এগোতে দেখা যাচ্ছিল কিন্তু এক ওভার আগেই দল ৩০৭ রানে অলআউট হয়ে যায়। অধিনায়ক ফিঞ্চ এটা নিয়া নিরাশা প্রকাশ করেছেন। একজন অতিরিক্ত ব্যাটসম্যান থাকা সত্ত্বেও এই রকম প্রদর্শনের ব্যাপারে তিনি বলেন,

“আমরা ৫০ ওভার ব্যাটিং করতে পারিনি আর এটা নিরাশাজনক ছিল। যখন আপনি একজন অতিরিক্ত ব্যাটসম্যানের সঙ্গে মাঠে নামেন তো আপনার ব্যাটসম্যানদের থেকে পুরো ব্যাটিংয়ের আশা থাকে। সম্ভবত আমরা দ্রুত বড়ো শট খেলার চেষ্টা করেছি”।

জাম্পাকে বাদ দেওয়া মুশকিল

AUS vs PAK: অস্ট্রেলিয়ার অধিনায়ক অ্যারণ ফিঞ্চ জয় সত্ত্বেও হলেন নিরাশ 3

অস্ট্রেলিয়া দলে এই ম্যাচের জন্য অ্যাডাম জাম্পাকে সুযোগ দেওয়া হয়নি। অলরাউন্ডার মার্কস স্টোইনিস আহত হওয়ার পর দলের সমীকরণের কারণে জাম্পাকে বাদ দিতে হয়। এই বিষয়ে অ্যারণ ফিঞ্চ বলেন,

“জাম্পাকে বাদ দেওয়ার এই সিদ্ধান্ত মুশকিল ছিল। যখন আপনি চোটের জন্য নিজেদের অলরাউন্ডারকে হারিয়ে ফেলেন তো একজন অতিরিক্ত ব্যাটসম্যান বা অতিরিক্ত বোলারকেই সুযোগ দিতে পারেন। আজ আমরা একজন অতিরিক্ত ব্যাটসম্যানের সঙ্গেই মাঠে নামা সঠিক মনে করেছি”।

suvendu debnath

কবি, সাংবাদিক এবং গদ্যকার। শচীন তেন্ডুলকর, ব্রায়ান লারার অন্ধ ভক্ত। ক্রিকেটের...

Leave a comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *