ভারতীয় ক্রিকেট দলের পাঁচ খেলোয়াড়, যাদের আছে মদ-সিগারেটের শখ, তালিকায় বেশ কিছু বড়ো নাম শামিল

যে কোনো খেলার সঙ্গে যুক্ত কোনো অ্যাথলিট নিজের ফিটনেস নিয়ে যথেষ্ট সচেতন থাকেন। যদি আজকালকার ক্রিকেটারদের কথা বলা হয় তো তাদের ফিটনেস ভীষণই জরুরী। ভারতের অধিনায়ক বিরাট কোহলি নিজেও একজন ফিটনেস ফ্রিক তো তিনি নিজের সেনাকেও ফিট অ্যাণ্ড ফাইন দেখতে চান। যদি লক্ষ্য করেন তো দেখবেন এই সময় ভারতীয় ক্রিকেট দলে প্রতিভাবান খেলোয়াড়দের পাশাপাশি ফিট খেলোয়াড়রাও রয়েছেন। আজকাল ফিটনেসের স্তর লাগাতার এত বেড়ে গিয়েছে যে কোনো ম্যানেজমেন্টই ক্রিকেটারদের মদ্যপান বা ধুমপানের অনুমতি দেবে না। এই পরিস্থিতিকে আরো কঠিন আর চ্যালেঞ্জিং করার জন্য বিসিসিআই ইয়ো ইয়ো টেস্টকেও দলে শামিল করেছে ফিটনেসের মাপকাঠি হিসেবে। একজন খেলোয়াড় সেই স্থিতিতে দলের অংশ হতে পারেন যদি তিনি ইয়ো ইয়ো টেস্টে পাশ করেন। এই টেস্টে প্রত্যেকটি ক্যালোরির গুনতি করা হয়, অন্যদিকে অ্যালকোহলের সেবন সহ্যশক্তি আর স্বাস্থ্যের জন্য ভীষণই হানিকারক। বিরাট কোহলির নেতৃত্বাধীন দলকে দেখে, যারা বড়ো মাত্রায় ফিটনেসের নতুন মাপদন্ড ঠিক করেছে, বলা যেতে পারে যে ভারতীয় দলে নন অ্যালকোহলিক খেলোয়াড় এমনকী ধুমপান না করা খেলোয়াড়ও রয়েছেন। কিন্তু আজ আমরা সেই ক্রিকেটারদের ব্যাপারে জানাতে চলেছি যারা মদ্যপান এবং ধুমপান বড়ো মাত্রায় করে থাকেন।

১—বিরাট কোহলি

ভারতীয় অধিনায়ক বিরাট কোহলি বিশ্বের সবচেয়ে ফিট খেলোয়াড়দের তালিকায় শামিল রয়েছেন। তিনি ব্যাটিংকে সরল বানিয়েছেন আর পরে যত দ্রুত সম্ভব সমস্ত ক্রিকেট রেকর্ড ভাঙার জন্য নিজেকে প্রস্তুতও করেছেন।

ভারতীয় ক্রিকেট দলের পাঁচ খেলোয়াড়, যাদের আছে মদ-সিগারেটের শখ, তালিকায় বেশ কিছু বড়ো নাম শামিল 1

দিল্লির বিরাট কোহলিকে ভারতীয় ক্রিকেটের সবচেয়ে যোগ্য খেলোয়াড়দের মধ্যে একজন মনে করা হয়, যিনি প্রায়ই বিপক্ষের ফিন্ডার্স আর বোলার্সদের যথেষ্ট সমস্যায় ফেলেন। যদিও এটা তখনের গল্প নয় যখন তিনি আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে এসেছিলেন। কোহলি ২০১২ আইপিএলে খারাপ প্রদর্শন করার পর ফিটনেসের বিষয়টি সিরিয়াসভাবে নিয়েছেন। তিনি নিজের খাবার দাবার সম্পূর্ণভাবে বদলে দিয়েছেন। তিনি অনুভব করেছেন যে খেলার তিন ফর্ম্যাটে নিজেকে জীবিত রাখার জন্য ফিট হওয়ার প্রয়োজন রয়েছে। কিন্তু ভারতীয় ক্রিকেটের সবচেয়ে ফিট খেলোয়াড়দের মধ্যে একজন হওয়ার পর কোহলি এক বা দু পেগই মদ্যপান করে থাকেন। তিনি অতীতে নিজেকে বেশি মদ্যপানকারী আর পার্টি করা ব্যক্তি বলেও স্বীকার করেছিলেন।

ভারতীয় ক্রিকেট দলের পাঁচ খেলোয়াড়, যাদের আছে মদ-সিগারেটের শখ, তালিকায় বেশ কিছু বড়ো নাম শামিল 2

বিরাটকে আইপিএল ম্যাচের অফ সিজন পার্টিতে ধুমপান করতেও দেখা গিয়েছিল। তিনি ভারতীয় ক্রিকেট দলে ধুমপানকারীদের তালিকায় শামিল ছিলেন, কিন্তু তারপর থেকে তিনি যথেষ্ট বদলে গিয়েছেন। ভারতীয় দলের অলরাউন্ডার হার্দিক পান্ডিয়াও ধুমপানকারীদের তালিকায় রয়েছেন। তাকে সম্প্রতিই মুম্বাইতে এমএস ধোনির স্ত্রী সাক্ষী ধোনির জন্মদিনের পার্টিতে সিগারেট খেতে দেখা গিয়েছিল।

২– শচীন তেন্ডুলকর

মদ্যপায়ী ক্রিকেটারদের সুচিতে এই নাম কি আপনাকে চমকে দিল? হ্যাঁ, আমরা জানি যে এই নামটি এই তালিকায় আপনারা মেনে নিতে পারছেন না, কারণ এই নামটিকে সবসময়ই ক্রিকেটের মহান রেকর্ডসেই দেখা যায়। ক্রিকেটের ভগবান, যিনি ভারতের হয়ে খেলে রান আর রেকর্ডের বৃষ্টি করেছেন। যে রেকর্ডগুলিকে আজকের খেলোয়াড়রা কল্পনা করেন সেই রেকর্ডস তেন্ডুলকর নিজের নামে করে রেখেছেন।

ভারতীয় ক্রিকেট দলের পাঁচ খেলোয়াড়, যাদের আছে মদ-সিগারেটের শখ, তালিকায় বেশ কিছু বড়ো নাম শামিল 3

আপনারা ভাববেন না আমরা এই খেলোয়াড়ের বদনাম করছি, বরং সত্যিটা জানাচ্ছি যে কেন তিনি মদ্যপান করেছিলেন। শচীন বিশ্রাম নেওয়া উদ্দেশ্যেই বিয়ার খেয়েছিলেন। শেয়ার করা এই ছবিতে তার ছেলেবেলার বন্ধু বিনোদ কাম্বলীকেও দেখা যাচ্ছে, যার হাতে পুরো বোতল ধরা রয়েছে। যদিও ক্রিকেট থেকে অবসর নেওয়ার পর শচীন একজন ক্রিকেটার থেকে ব্যবসায়ী হিসেবে নিজেকে সফলতাপূর্বক বদলে নিয়েছেন। তিনি কেরল ব্লাস্টার্স, ব্যাঙ্গালুরু ব্লাস্টার, আর তামিল থালাইইভাসের মত ক্রীড়া ফ্রেঞ্চাইজি দলের মালিক। তিনি ‘স্মার্ট্রোন’ নামের একটি স্মার্টফোন ব্র্যান্ডের মালিকও।

৩—কেএল রাহুল

ভারতীয় ক্রিকেট দলের টপ অর্ডার ব্যাটসম্যান কেএল রাহুল একটি ভাল ক্রিকেট পরিবর্তনের মধ্যে দিয়ে যাচ্ছেন। কেরিয়ারের শুরুতে তাকে শুধু টেস্ট ব্যাটসম্যান হিসেবে মনে করা হত। কিন্তু আইপিএল ২০১৫র পর থেকে তার ব্যাটিং শৈলিতে বড়ো পরিবর্তন দেখতে পাওয়া গেছে।

ভারতীয় ক্রিকেট দলের পাঁচ খেলোয়াড়, যাদের আছে মদ-সিগারেটের শখ, তালিকায় বেশ কিছু বড়ো নাম শামিল 4

আইপিএল নিলামি ২০১৮য় একজন সাধারণ আইপিএল কন্ট্রাক্ট থেকে শুরু করে সবচেয়ে বেশি দামে বিক্রি হওয়া পর্যন্ত, একজন স্লো স্মোকার থেকে একজন আক্রামণাত্মক ব্যাটসম্যান পর্যন্ত, কেএল রাহুলের জন্য এই গল্প কোনো ফিল্মের গল্পের চেয়ে কম কিছু নয়। তিনি ৩টি ফর্ম্যাটের সবকটিতেই সেঞ্চুরি করা ভারতীয় ব্যাটসম্যানদের তালিকায় শামিল রয়েছেন। যদিও তিনি ভুল কারণে খবরের শিরোনামেও এসেছেন।

ভারতীয় ক্রিকেট দলের পাঁচ খেলোয়াড়, যাদের আছে মদ-সিগারেটের শখ, তালিকায় বেশ কিছু বড়ো নাম শামিল 5

তিনি বিয়ারের একটি বোতল হাতে ছবিও শেয়ার করেছেন, যদিও তিনি ভারত ওয়েস্টইন্ডিজ সফরে ছিল আর তিনি সেখানে সমস্ত সীমা লঙ্ঘন করে ফেলেছিলেন। বিসিসিআই যা নিয়ে দ্রুত প্রতিক্রিয়া দেয় আর তাকে এই ছবিটি সরিয়ে নিতে বলা হয়।

৪—ঈশান্ত শর্মা

দিল্লির লম্বা তাগড়া জোরে বোলার কমনওয়েলথ ব্যাঙ্ক সিরিজ ২০০৮ এর জয়ে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করেছিলেন। যদিও যে জিনিসটি তাকে খ্যাতি দিয়েছে আর তাকে শিরোনামে এনে দিয়েছিল, তা তার ভাবমূর্তি খারাপ করার মাধ্যমও হয়েছিল।

ভারতীয় ক্রিকেট দলের পাঁচ খেলোয়াড়, যাদের আছে মদ-সিগারেটের শখ, তালিকায় বেশ কিছু বড়ো নাম শামিল 6

ভারতের ২০১৫র সফর চলাকালীন তাকে সিডনি ক্লাব পার্টিতে মদ্যপান করানো হয়েছিল। যার ছবি সোশ্যাল মিডিয়ায় জমিয়ে ভাইরাল হয়েছিল। এই ছবিতে সুরেশ রায়না আর ভুবনেশ্বর কুমারকেও দেখা যাচ্ছে, আর ভুবিকেই তাকে জোর করে মদ্যপান করাতে দেখা যাচ্ছে। এখন সত্যিটা যাই হোক, ছবিতে তো এটাই দেখা যাচ্ছে। ২০০৭এ ভারতীয় ক্রিকেটে এন্ট্রি নেওয়া ঈশান্ত শর্মা এই মুহূর্তে ভারতীয় দলের বাইরে অবশ্যই রয়েছে, কিন্তু তাকে ভারতের টেস্ট দলে সবসময়ই দেখা যায়।

ভারতীয় ক্রিকেট দলের পাঁচ খেলোয়াড়, যাদের আছে মদ-সিগারেটের শখ, তালিকায় বেশ কিছু বড়ো নাম শামিল 7

ঈশান্ত নিজের টেস্ট কেরিয়ারে ১৬১টি ইনিংসে বোলিং করে ৩.১৯ ইকোনমি রেটে রান দিয়ে ২৬৭টি উইকেট নিয়েছেন। অন্যদিকে একদিনের ক্রিকেটে তিনি ৭৮টি ইনিংসে বোলিং করে ৫.৭২ ইকোনমি রেটে ১১৫টি উইকেট নিয়েছেন।

৫—যুবরাজ সিং

পাঞ্জাবের বাগ সিক্সার কিং যুবরাজ সিং ভারতীয় দলে যে যোগদান দিয়েছেন তা সবসময়েই স্মরণীয় থাকবে। যুবি একজন সত্যিকারের ম্যাচ উইনার। ক্রিকেট বিশ্বকাপ ২০১১য় তার ফর্মকে কে ভুলতে পারে, যা ভারতকে বিশ্বকাপ জিতিয়েছিল।

ভারতীয় ক্রিকেট দলের পাঁচ খেলোয়াড়, যাদের আছে মদ-সিগারেটের শখ, তালিকায় বেশ কিছু বড়ো নাম শামিল 8

যদিও বলিউড লাইফের সঙ্গে একটি ইন্টারভিউতে যুবরাজ সিংহের বৌদি আকাঙ্খা শর্মা দাবী করেছিলেন যে এই সুপারস্টার ক্রিকেটার একজন ড্রাগ অ্যাডিক্ট ছিলেন। এই গুজবকে যুবরাজ সিংহের বাবা যোগরাজ সিং ভিত্তিহীন বলেছিলেন। যদিও একবার তাকে ছুটি কাটানোর সময় মদ্যপান করতে দেখা গিয়েছিল। তাকে বেশ কিছু পার্টিতে আর ক্লাবে মদের গ্লাস হাতে দেখা গিয়েছে। এখন যুবরাজ ভারতীয় ক্রিকেটকে বিদায় জানিয়েছেন আর বিদেশী লীগে হইচই ফেলে দিচ্ছেন।

ভারতীয় ক্রিকেট দলের পাঁচ খেলোয়াড়, যাদের আছে মদ-সিগারেটের শখ, তালিকায় বেশ কিছু বড়ো নাম শামিল 9

যুবরাজের সেই ইংল্যাণ্ডের বিরুদ্ধে ৬ বলে ৬টি ছয়ের রেকর্ড আজো বজায় রয়েছে। এখন এটা দেখা ইন্টারেস্টিং হবে যে কোন খেলোয়াড় এই রেকর্ড ভাঙার সক্ষমতা দেখাতে পারেন।

suvendu debnath

কবি, সাংবাদিক এবং গদ্যকার। শচীন তেন্ডুলকর, ব্রায়ান লারার অন্ধ ভক্ত। ক্রিকেটের...

Leave a comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *