৫জন ভারতীয় খেলোয়াড় খেলে ফেলেছেন নিজের শেষ আন্তর্জাতিক ম্যাচ, প্রত্যাবর্তনের আশা ছেড়ে নেওয়া উচিত অবসর

টিম ইন্ডিয়া বর্তমান সময়ে তিন ফর্ম্যাটেই শক্তিশালী দল। দলে বেশকিছু ম্যাচ উইনার খেলোয়াড় রয়েছেন যারা দলকে মুশকিল পরিস্থিতি বার করে জয় এনে দিতে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করেন। কিন্তু খারাপ ফর্ম বা অন্য কোনো কারণে বেশকিছু খেলোয়াড়দের সময়ের আগেই দল থেকে বাদ পড়তে হয়েছে। তো আসুন এই প্রতিবেদনে এমন ৫জন খেলোয়াড়ের ব্যাপারে জানানো যাক যারা এখনো পর্যন্ত অবসরের ঘোষণা করেননি কিন্তু পরিস্থিতি দেখে এটা বলা ভুল হবে না যে তারা নিজেদের শেষ আন্তর্জাতিক ম্যাচ খেলে ফেলেছেন, অর্থাৎ এখন সম্ভবতই তাদের টিম ইন্ডিয়ার তরফে খেলতে সুযোগ দেওয়া হবে।

১— কেদার জাধব

৫জন ভারতীয় খেলোয়াড় খেলে ফেলেছেন নিজের শেষ আন্তর্জাতিক ম্যাচ, প্রত্যাবর্তনের আশা ছেড়ে নেওয়া উচিত অবসর 1

টিম ইন্ডিয়ার স্পিন অলরাউন্ডার খেলোয়াড় কেদার জাধব সেই খেলোয়াড়দের তালিকায় রয়েছেন যারা দলে কখনো নিজের স্থায়ী জায়গা করতে পারেননি আর দলে যাওয়া আসা করেছেন। কেদার নভেম্বর ২০১৪য় মহেন্দ্র সিং ধোনির নেতৃত্বে শ্রীলঙ্কার বিরুদ্ধে নিজের একদিনের ক্রিকেটে ডেবিউ করেছিলেন। কেদার জাধব ভারতের হয়ে ৫২টি ম্যাচ খেলেছেন। এর মধ্যে তার সর্বশ্রেষ্ঠ প্রদর্শন ২০১৭য় ইংল্যান্ডের বিরুদ্ধে ১২০ রানের ইনিংস খেলে বিরাট কোহলির সঙ্গে দুর্দান্ত পার্টনারশিপ গড়েছিলেন। কেদার জাধব অধিনায়ক বিরাটকে ব্যাটিং ছাড়াও একজন অতিরিক্ত বোলারের বিকল্প উপলব্ধ করান। কিন্তু গত কিছু সময় ধরে কেদার জাধবের প্রদর্শনে ধারাবাহিকতার অভাব দেখা দিয়েছে। বিশ্বকাপে ইংল্যান্ডের বিরুদ্ধে তার হাফসেঞ্চুরি ইনিংসের যথেষ্ট সমালোচনা করা হয়েছিল। পরিসংখ্যানের কথা বলা হলে কেদার জাধব ৭৩টি একদিনের ম্যাচে ৪২.০৯ গড়ে ১৩৮৯ রান করেছেন। এর মধ্যে ২টি সেঞ্চুরি আর ৬টি হাফসেঞ্চুরি রয়েছে। জাধব নিজের শেষ আন্তর্জাতিক ম্যাচ নিউজিল্যান্ডের বিরুদ্ধে ফেব্রুয়ারিতে খেলেছিলেন যেখানে তিনি ৯ রান করে আঊট হন। এখন দলের বর্তমান পরিস্থিতি দেখে এটা বলা ভুল হবে না যে তিনি সম্ভবতই আর দলে সুযোগ পাবেন।

২ — সুরেশ রায়না

৫জন ভারতীয় খেলোয়াড় খেলে ফেলেছেন নিজের শেষ আন্তর্জাতিক ম্যাচ, প্রত্যাবর্তনের আশা ছেড়ে নেওয়া উচিত অবসর 2

ভারতীয় দলকে মিডল অর্ডারে শক্তিশালী করা সুরেশ রায়না ২০১৮ থেকে টিম ইন্ডিয়ার বাইরে রয়েছেন। এই সিনিয়র খেলোয়াড় না শুধু ব্যাটিং বরং দুর্দান্ত ফিল্ডিংয়েও বিশ্বজুড়ে নাম কামিয়েছেন। সুরেশ রায়না ২০০৫ এ আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে ডেবিউ করেছিলেন। রায়না সীমিত ওভারের ক্রিকেটে ভারতের হয়ে মিডল অর্ডারের বিস্ফোরক ব্যাটসম্যান ছিলেন, যিনি দলকে মুশকিল পরিস্থিতিতে জয় এনে দেওয়ার কাজ করতেন। কিন্তু ২০১৮য় ইংল্যান্ড সফরে রায়নার ব্যাট বিশেষ কিছুই করতে পারেনি। ইংল্যান্ডের সঙ্গে লীডসে খেলা হওয়া সেই একদিনের ম্যাচ রায়নার এখনো পর্যন্ত ক্রিকেট কেরিয়ারের শেষ ম্যাচ থেকেছে আর এখন টিম ইন্ডিয়ায় রায়নার ভবিষ্যতে জায়গা পাওয়া প্রায় অসম্ভব। বর্তমান পরিস্থিতিকে দেখে এটা বলা একদমই ভুল হবে না যে লীডসের ম্যাচ রায়নার আন্তর্জাতিক কেরিয়ারের শেষ ম্যাচ থেকেছে। পরিসংখ্যানের কথা বলা হয়ে এই স্টাইলিস ব্যাটসম্যান ভারতের হয়ে ২২৬টি একদিনের ম্যাচ আর ৭৮টি টি-২০ ম্যাচ খেলেছেন। তিনি একদিনের ম্যাচে ৫৫০০ রান আর টি-২০তে ১৫০০ এর বেশি রান করেছেন।

৩— মুরলী বিজয়

৫জন ভারতীয় খেলোয়াড় খেলে ফেলেছেন নিজের শেষ আন্তর্জাতিক ম্যাচ, প্রত্যাবর্তনের আশা ছেড়ে নেওয়া উচিত অবসর 3

টিম ইন্ডিয়ার বিস্ফোরক ওপেনিং ব্যাটসম্যান মুরলী বিজয়ও দীর্ঘ সময় ধরে দলের বাইরে রয়েছেন, কিন্তু এখনো পর্যন্ত তিনি নিজের অবসর ঘোষণা করেননি। ২০১০এ অস্ট্রেলিয়ার বিরুদ্ধে খেলা হওয়া টেস্ট সিরিজে নিজের ডেবিউ করা মুরলী বিজয় ভারতীয় ক্রিকেট দলের হয়ে বেশকিছু দুর্দান্ত ইনিংস খেলেছেন। তামিলনাড়ুর ব্যাটসম্যান ৬১টি টেস্ট ম্যাচ খেলেছেন, কিন্তু তার সর্বশ্রেষ্ঠ ইনিংস ২০১৩য় অস্ট্রেলিয়ার বিরুদ্ধে এসেছে। আসলে অস্ট্রেলিয়ান দল বর্ডার-গাভাস্কার ট্রফি খেলতে ভারতে এসেছিল। সেই সময় মুরলী হায়দ্রাবাদের মাঠে ১৬৭ রানের দুর্দান্ত ইনিংস খেলেছিলেন। এরপর দ্বিতীয় ম্যাচেও এই ব্যাটসম্যান ১৫৩ রানের দুর্দান্ত ইনিংস খেলেন। ভারতের হয়ে ৬১টি টেস্ট ম্যাচে ৩৮.২৮ গড়ে এবং ১২টি সেঞ্চুরি এবং ১৫টি হাফসেঞ্চুরির সাহায্যে বিজয় ৩৯৮২ রান করেছেন। অন্যদিকে ১৭টি ওয়ানডে আর ৯টি টি-২০ ম্যাচে ক্রমশ ৩৩৯ আর ১৬৯ রান করেছেন। বিজয় নিজের শেষ টেস্ট ম্যাচ ২০১৮য় অস্ট্রেলিয়ার বিরুদ্ধে খেলেছিলেন। তবে এখনো পর্যন্ত এই ব্যাটসম্যান অবসর ঘোষণা করেননি কিন্তু তার দলে প্রত্যাবর্তন অসম্ভবই লাগছে।

৪— পার্থিব প্যাটেল

৫জন ভারতীয় খেলোয়াড় খেলে ফেলেছেন নিজের শেষ আন্তর্জাতিক ম্যাচ, প্রত্যাবর্তনের আশা ছেড়ে নেওয়া উচিত অবসর 4

ভারতীয় দলের উইকেটকিপার ব্যাটসম্যান পার্থব প্যাটেলও সেই ভারতীয় খেলোয়াড়দের তালিকায় রয়েছেন যারা যতই অবসর ঘোষণা না করেন কিন্তু ভারতীয় দলের হয়ে শেষ ম্যাচ খেলে ফেলেছেন। বাঁহাতি পার্থিব ২০০২তে ইংল্যান্ড সফরে টেস্ট অভিষেক করেন। কিন্তু পার্থিব দলে নিয়মিত যাতায়াত করা খেলোয়াড় থেকেছেন। কখনো তিনি দলে নিজের জায়গা পাকা করতে পারেননি। গুজরাটের অধিনায়ক ২৫টি টেস্ট ম্যাচে ৩১.১৩ গড়ে ৯৩৪ আন করেছেন। অন্যদিকে ৩৮টি একদিনের এবং ২টি টি-২০ ম্যাচে ক্রমশ ৭৩৬ এবং ৩৬ রান করেছেন। পার্থিব বর্তমানে ঘরোয়া ক্রিকেটে গুজরাটের অধিনায়কত্ব করেন। সেই সঙ্গে তিনি বিরাট কোহলির নেতৃত্বাধীন আইপিএল ফ্রেঞ্চাইজি আরসিবির হয়ে উইকেটকিপার হিসেবে খেলেন। জাতীয় দলের হয়ে পার্থিব ২০১৮য় দক্ষিণ আফ্রিকার বিরুদ্ধে নিজের শেষ আন্তর্জাতিক ম্যাচ খেলেছিলেন।

৫— আম্বাতি রায়ডু

৫জন ভারতীয় খেলোয়াড় খেলে ফেলেছেন নিজের শেষ আন্তর্জাতিক ম্যাচ, প্রত্যাবর্তনের আশা ছেড়ে নেওয়া উচিত অবসর 5

টিম ইন্ডিয়ার মিডল অর্ডারের বিস্ফোরক ব্যাটসম্যান আম্বাতি রায়ডুর ক্রিকেট কেরিয়ার যথেষ্ট চড়াইউৎরাই ভরা থেকেছে। ২০১৯এ ইংল্যান্ডে খেলা হওয়া আইসিসি বিশ্বকাপের আগে টিম ম্যানেজমেন্ট রায়ডুকে নিজেদের ৪ নম্বর ব্যাটসম্যান বলেছিল। কিন্তু দল নির্বাচনে তাকে বিশ্বকাপের দলে শামিল করা হয়নি। এরপর যখন বিশ্বকাপে ২বার তাকে উপেক্ষা করা হয় তো রায়ডু ক্ষুব্ধ হয়ে অবসর ঘোষণা করে ফেলেন। ভারতীয় ক্রিকেট জগতের হয়ে এটা অবাক করার মতো বিষয় ছিল, কিন্তু রায়ডু এই চমকে দেওয়ার মতো সিদ্ধান্ত নেন। তবে এর কিছু মাস পরে রায়ডু নিজের অবসর থেকে ইউটার্ন নেন, কিন্তু আর ঘরোয়া ক্রিকেট খেলেন। কিন্তু যতই রায়ডু এখন দলের নির্বাচিত হওয়ার জন্য উপলব্ধ থাকুন কিন্তু তার দলে ফেরা মুশকিল। পরিসংখ্যানের কথা বলে এই খেলোয়াড় এখনো পর্যন্ত ৫৫টি একদিনের ম্যাচে ৪৭.০৫ গড়ে ১৬৯৪ রান করেছেন। রায়ডু নিজের শেষ একদিনের ম্যাচ ৮ মার্চ ২০১৮য় রাঁচিতে খেলেছিলেন, যেখানে তিনি ২ রান করেন।

suvendu debnath

কবি, সাংবাদিক এবং গদ্যকার। শচীন তেন্ডুলকর, ব্রায়ান লারার অন্ধ ভক্ত। ক্রিকেটের...

Leave a comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *