এমন ৫টি আন্তর্জাতিক দল, যাতে সবচেয়ে বেশি বিদেশী খেলোয়াড় শামিল রয়েছেন, একটিতে রয়েছে বেশি ভারতীয়

ক্রিকেটে দেখা গিয়েছে যে বেশ কয়েকবার খেলোয়াড়রা নিজেদের জন্মভূমি ছেড়ে অন্য কোনো দেশের হয়ে খেলেন। ক্রিকেট ইতিহাসে এমন কিছু ক্রিকেটার থেকেছেন যারা নিজেদের দেশের হয়ে না খেলে অন্য দেশের হয়ে খেলেছেন। আজ আমরাও আপনাদের এই বিশেষ প্রতিবেদনের মাধ্যমে সেই ৫টি আন্তর্জাতিক দলের ব্যাপারে জানাব, যে দলে সবচেয়ে বেশি বিদেশী খেলোয়াড় শামিল রয়েছেন।

ইংল্যান্ড

এমন ৫টি আন্তর্জাতিক দল, যাতে সবচেয়ে বেশি বিদেশী খেলোয়াড় শামিল রয়েছেন, একটিতে রয়েছে বেশি ভারতীয় 1

ইংল্যান্ডের দলে বর্তমান সময়ে বেশকিছু বিদেশী খেলোয়াড় খেলেন। বেন স্টোকস যেখানে নিউজিল্যান্ডের, তো অন্যদিকে জেসন রায় দক্ষিণ আফ্রিকার মূল নিবাসী। মঈন আলি আর রশিদ খান দুজনেই পাকিস্তানের। অন্যদিকে টম ক্যুরেন আর স্যাম ক্যুরেন দুই ভাইই দক্ষিণ আফ্রিকায় জন্মেছেন। জোরে বোলার জোফ্রা আর্চার বার্বাডোজের। স্বয়ং ইংল্যান্ড দলের বর্তমান ওয়ানডে আর টি-২০ দলের অধিনায়ক ইয়োন মর্গ্যান অ্যায়ারল্যাণ্ডের মানুষ। এইভাবে বর্তমান সময়ে ইংল্যান্ডের দলে বেশকিছু বিদেশী খেলছেন। আগেও দেখা গিয়েছে যে ইংল্যান্ডের দলে কেভিন পিটারসন, অ্যাণ্ড্রু টাইয়ের মতো কিছু তারকা খেলোয়াড়রাও বিদেশী ছিলেন।

নিউজিল্যান্ড

এমন ৫টি আন্তর্জাতিক দল, যাতে সবচেয়ে বেশি বিদেশী খেলোয়াড় শামিল রয়েছেন, একটিতে রয়েছে বেশি ভারতীয় 2

বিদেশী খেলোয়াড়দের নিজেদের দলে শামিল করতে নিউজিল্যান্ড দলও সবসময় এগিয়ে থেকেছেন। বর্তমান নিউজিল্যান্ড দলে এমন কিছু খেলোয়াড় রয়েছেন যারা ভারতীয় বংশোদ্ভুত আর আগেও নিউজিল্যান্ড বেশকিছু বিদেশী খেলোয়াড়কে নিজেদের জাতীয় দলে শামিল করেছেন। নিউজিল্যান্ডের স্পিন বোলার ঈশ সোধী ভারতীয় বংশোদ্ভুত। তার সঙ্গে সঙ্গে নিউজিল্যান্ডের হয়ে ওপেনিং করা জিত রাওয়লও ভারতীয় বংশোদ্ভুত। এজাজ প্যাটেলও ভারতীয় বংশোদ্ভুত নিউজিল্যান্ডের ক্রিকেটার। রচিন রবিন্দ্রাও ভারতীয় বংশোদ্ভুত ক্রিকেটার আর নিউজিল্যান্ডের ঘরোয়া ক্রিকেটে যথেষ্ট ভালো প্রদর্শন করছেন।

দক্ষিণ আফ্রিকা

এমন ৫টি আন্তর্জাতিক দল, যাতে সবচেয়ে বেশি বিদেশী খেলোয়াড় শামিল রয়েছেন, একটিতে রয়েছে বেশি ভারতীয় 3

দক্ষিণ আফ্রিকাতেও বেশকিছু বিদেশী ক্রিকেটার এমন থেকেছেন যারা নিজের ক্রিকেট কেরিয়ারকে শিখর পর্যন্ত নিয়ে গিয়েছিলেন। হাসিম আমলার সঙ্গে ভারতের গুজরাট রাজ্যের সম্পর্ক রয়েছে আর এখন তাকে দক্ষিণ আফ্রিকা ক্রিকেট ইতিহাসের সর্বশ্রেষ্ঠ ক্রিকেটারদের মধ্যে একজন মনে করা হয়। কেশব মহারাজও দক্ষিণ আফ্রিকার ভারতীয় বংশোদ্ভুত ক্রিকেটার। সম্প্রতি দক্ষিণ আফ্রিকা টেস্ট দলের সঙ্গে ভারত সফরে আসা সেনারন মুত্থুস্বামীরও ভারতের চেন্নাই রাজ্যের সঙ্গে সম্পর্ক রয়েছে। দক্ষিণ আফ্রিকার তারকা লেগ স্পিনার ইমরান তাহির পাকিস্তানে জন্মেছিলেন। তিনি পাকিস্তান দলের হয়ে অনুর্ধ্ব -১৯ ক্রিকেটও খেলেছেন।

আমেরিকা

এমন ৫টি আন্তর্জাতিক দল, যাতে সবচেয়ে বেশি বিদেশী খেলোয়াড় শামিল রয়েছেন, একটিতে রয়েছে বেশি ভারতীয় 4

আমেরিকাও বিশ্ব ক্রিকেটের এমন একটি দল যেখানে বিদেশী খেলোয়াড়দের অভাব নেই। আমেরিকার অধিনায়ক সৌরভ নেত্রাওয়ালকর ভারতের হয়ে অনুর্ধ্ব-১৯ ক্রিকেট খেলেছেন। অন্যদিকে ওয়েস্টইন্ডিজ দলের হয়ে খেলা জেভিয়র মার্শলও এখন বর্তমানে আমেরিকার হয়ে খেলছেন। মোনক প্যাটেল আর অক্ষয় হেমরাজের মতো খেলোয়াড়ও ভারতীয় বংশোদ্ভুত। রস্টি থেরেনেও দক্ষিণ আফ্রিকান বংশোদ্ভুত আর দক্ষিণ আফ্রিকার হয়ে আন্তর্জাতিক ক্রিকেট খেলেছেন। এই খেলোয়াড়রাও বর্তমানে ইউনাইটেড স্টেটসের হয়ে খেলেন।

হংকং

এমন ৫টি আন্তর্জাতিক দল, যাতে সবচেয়ে বেশি বিদেশী খেলোয়াড় শামিল রয়েছেন, একটিতে রয়েছে বেশি ভারতীয় 5

হংকংও এমন একটি দল, যা বিদেশী ক্রিকেটারদের মিলিয়েই তৈরি হয়েছে। এশিয়া কাপ ২০১৮য় দলের অধিনায়কত্ব করা অংশুমান রথ ভারতীয় বংশোদ্ভুত ক্রিকেটার। অন্যদিকে ওপেনিং ব্যাটসম্যান নিজাকত খান পাকিস্তানী বংশোদ্ভুত। আহসান খান আর এজাজ খান নামের ক্রিকেটারও পাকিস্তানী বংশোদ্ভুত। অন্যদিকে দলের অভিজ্ঞ ব্যাটসম্যান নীটচিট শাহ ভারতীয় বংশোদ্ভুত। আসলে ভারত আর পাকিস্তানের বেশকিছু তরুণ খেলোয়াড় হংকংয়ে থাকেন আর তারা এখন নিজের ক্রিকেট কেরিয়ার হংকংয়ের হয়েই খেলে তৈরি করছেন।

suvendu debnath

কবি, সাংবাদিক এবং গদ্যকার। শচীন তেন্ডুলকর, ব্রায়ান লারার অন্ধ ভক্ত। ক্রিকেটের...

Leave a comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *