৩ বার যখন শীর্ষে থাকা দল কমজুরি দলের সামনে করেছে অসহায় আত্মসমর্পণ

ক্রিকেট এমন একটা খেলা, যেখানে উলটফের হতেই থাকে। বেশ কয়েকবার এমন হয়েছে যে কমজুরি দল মজবুত দলকে হারিয়েছে। আজ আমরাও আপনাদের এই বিশেষ প্রতিবেদনে ক্রিকেট ইতিহাসের ৩টি এমন ঘটনার ব্যাপারে জানাতে চলেছি যখন শীর্ষ দল কমজুরি দলের সামনে অসহায় আত্মসমর্থন করেছে।

বাংলাদেশ ভারতকে বিশ্বকাপ ২০০৭ এ হারিয়েছে

৩ বার যখন শীর্ষে থাকা দল কমজুরি দলের সামনে করেছে অসহায় আত্মসমর্পণ 1

ভারতের বিশ্বকাপের ইতিহাসের সবচেয়ে লজ্জাজনক হারের কথা যদি বলা হয় তো নিশ্চিতভাবেই তা ২০০৭ এর বিশ্বকাপে বাংলাদেশের বিরুদ্ধে পাওয়া হার। ১৭ মার্চ ২০০৭এ খেলা হওয়া এই ম্যাচে ভারতের দলকে বাংলাদেশের হাতে ৯ বল বাকি থাকতেই ৫ উইকেটে হারতে হয়েছিল। এই হার কোটি কোটি ভারতীয় ক্রিকেট সমর্থকের চোখে জল এনে দিয়েছিল। টুর্নামেন্টে এগিয়ে যাওয়ার জন্য ভারতের এই ম্যাচ জেতা জরুরী ছিল। শচীণ, সেহবাগ, গাঙ্গুলী, যুবরাজ, ধোনি, দ্রাবিড় আর উথাপ্পার মতো ব্যাটসম্যানদের নিয়ে সাজানো টিম ইন্ডিয়া ৪৯.৩ ওভারে ১৯১ রানে শেশ হয়ে যায়। জবাবে বাংলাদেশ ৪৮.৩ ওভারে মোট ৫ উইকেট হারিয়ে এই লক্ষ্য হাসিল করে নেয় আর না স্রেফ একটি বিশাল জয় হাসিল করেছিল বরং ভারতকে প্রথম রাউন্ডেই বাইরের রাস্তা দেখিয়ে দেয়। এটা ভারতীয় ক্রিকেট ইতিহাসের ভীষণই লজ্জাজনক মুহূর্ত ছিল।

আয়ারল্যান্ড পাকিস্তানকে বিশ্বকাপ ২০০৭ এ হারিয়েছে

৩ বার যখন শীর্ষে থাকা দল কমজুরি দলের সামনে করেছে অসহায় আত্মসমর্পণ 2

২০০৭ এর বিশ্বকাপে ১৭ মার্চ আয়ারল্যান্ড আর পাকিস্তানের মধ্যে ম্যাচ খেলা হয়েছিল। এই ম্যাচ আয়ারল্যান্ডের দল ৩ উইকেটের ব্যবধানে জিতে নিয়েছিল। পাকিস্তানের দল জোরে বোলার বায়ড র্যা নকিনের ধারালো বোলিংয়ের সামনে ১৩২ রানে শেষ হয়ে যায়। আয়ারল্যান্ডের দল এর জবাবে ১৫ রানে ২ উইকেট হারিয়ে ফেলেছিল, কিন্তু নীল ও ব্রায়ানের ৭২ রানের ইনিংসের সৌজন্যে তারা এই লক্ষ্যের কাছে পৌঁছয় আর অবসর নেওয়া অধিনায়ক ট্রেন্ট জনস্টন আজহার মেহমুদের বলে ছক্কা মেরে দলকে জয় এনে দেন।

আয়ারল্যান্ড ইংল্যান্ডকে বিশ্বকাপ ২০১১য় হারিয়েছিল

৩ বার যখন শীর্ষে থাকা দল কমজুরি দলের সামনে করেছে অসহায় আত্মসমর্পণ 3

বিশ্বকাপ ২০১১য় গ্রুপ বি এর একটি ম্যাচ ইংল্যান্ড আর আয়ারল্যান্ডের মধ্যে খেলা হয়েছিল। এই ম্যাচের আগে সমস্ত ক্রিকেট পন্ডিতরা ইংল্যান্ডের জেতার ভবিষ্যতবাণী করছিলেন। কিন্তু সকলকে চমকে দিয়ে এই ম্যাচ আয়ারল্যান্ড ৫ বল বাকি থাকতে ৩ উইকেটে জিতে নেয়। আসলে এই ম্যাচে প্রথমে ব্যাটিং করে ইংল্যান্ডের দল নির্ধারিত ৫০ ওভারে ৮ উইকেট হারিয়ে ৩২৭ রানের এক বিশাল স্কোর খাড়া করেছিল। এই লক্ষ্যকে আয়ারল্যান্ডের দল কেভিন ও ব্রায়ানের ৬৩ বলে ১১৩ রানের ঝোড়ো সেঞ্চুরির দমে ৩ উইকেট বাকি থাকতেই হাসিল করে নিয়েছিল। এই জয় আয়ারল্যান্ডের ক্রিকেট ইতিহাসের সবচেয়ে স্মরণীয় জয় ছিল। অন্যদিকে ইংল্যান্ডের ক্রিকেট ইতিহাসের এটি সবচেয়ে লজ্জাজনক হার।

suvendu debnath

কবি, সাংবাদিক এবং গদ্যকার। শচীন তেন্ডুলকর, ব্রায়ান লারার অন্ধ ভক্ত। ক্রিকেটের...

Leave a comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *