বুধবার দিল্লীর ফিরোজশাহ কোটলায় ভারত নিউজিল্যান্ডের মধ্যে প্রথমবার অনুষ্ঠিত ৩ ম্যাচের টি২০ সিরিজের প্রথম ম্যাচটি খেলে নিজের ১৮ বছরের ক্রিকেট জীবনের ইতি টানলেন ভারতের বাঁহাতি জোরে বোলার আশিস নেহেরা। এই মুহুর্তে দেশের বিভিন্ন প্রান্ত থেকে নেহেরার জন্যভেসে আসছে শুভেচ্ছা বার্তা। বুধবারের ম্যাচের আগে ভারতীয় দলে নেহেরার এক সময়ের সতীর্থ হেমাঙ্গ বদানি ফেসবুকে একটি ভিডিও আপলোড করেন, যেখানে তিনি নেহেরা সম্পর্কে অনেক অজানা কথা ভাগ করে নিয়েছেন। মহম্মদ আজহারউদ্দিনের নেতৃত্বে ১৯৯৯ সালে ভারতের হয়ে অভিষেক ঘটে নেহেরার। তারপর থেকে তিনি প্রায় ৫ জন অধিনায়কের নেতৃত্বে খেলেছেন। ভারতীয় ক্রিকেট প্রেমীরা নেহেরাকে মনে রাখেন ২০০৩ ওয়ার্ল্ড কাপে ইংল্যান্ডের বিরুদ্ধে তার দুরন্ত স্পেলের জন্য, যেখানে তিনি ২৩ রানে ৬ উইকেট নিয়েছিলেন। ৩৮ বছর বয়েসি এই পেসার ২০১১র ওয়ার্ল্ডকাপ জয়ী ভারতীয় দলেরও সদস্য ছিলেন। সেই ওয়ার্ল্ডকাপের সেমি ফাইনালে কঠিন পরিস্থিতি পাকিস্থানের বিরুদ্ধে তার দুরন্ত বোলিং চিরকাল ক্রিকেটপ্রেমীদের মনে গাঁথা হয়ে থাকবে তার অন্যান্য দুরন্ত স্পেলগুলির মতই। ম্যাচের গুরুত্বপূর্ণ ওভারে কঠিন পরিস্থিতিতে অধিনায়ক সৌরভ সবসময়েই ভরসা রাখতে নেহেরার উপরে। ওই ভিডিওয় বদানি একটি মজার ঘটনার কথাও শেয়ার করেছেন। পাকিস্থানের সঙ্গে একটি হাড্ডাহাড্ডি ম্যাচে কাকে ফাইনাল ওভার দেওয়া যায় তা নিয়ে খানিকটা চিন্তায় ছিলেন অধিনায়ক সৌরভ। ভিডিওয় বদানি জানিয়েছেন, “ ২০০৪ এ অসাধারন পাকিস্থান সফরে করাচি ম্যাচের একটি ঘটনা আমার মনে পড়ছে। আমরা সাড়ে তিনিশোর কাছাকাছি রান করেছিলাম। শেষ ওভারে পাকিস্থানের জেতার জন্য দরকার ছিল ৯ কি ১০ রান। মাঠে সকলেই সেই মুহুর্তে দ্বিধায় ছিল কে শেষ ওভারটা করবে। ফাইন লেগে ফিল্ডিং করছিল নেহেরা। সেই মুহুর্তে নেহেরা ছুটে গিয়ে গাংগুলীকে বলেন, দাদা(সৌরভ) ম্যায় ডালতা হুঁ, আপ ডরো মত। ম্যায় ম্যাচ উইন করকে দুঙ্গা (দাদা আমি বল করব, তুমি ভয় পেয়ো না। আমি ম্যাচ জিতিয়ে দেবো)। এরপর যা হয়েছিল তা একমাত্র নেহেরার পক্ষেই সম্ভব। ওই শেষ ওভারে নেহেরা দিয়েছিল মাত্র ৩ রান। সেই সঙ্গে উইকেটে সেট হয়ে যাওয়া ব্যাটসম্যান মইন খানকে আউট করেছিল নেহেরা। আর আমরা খাদের কিনারা থেকে অনায়াসে সেই ম্যাচ জিতে নিয়েছিলাম”। ফেসবুকে হেমাঙ্গ বদানি এই ভিডিওটির শিরোনাম দিয়েছেন “দ্যা ম্যান হু সেইড, ‘দাদা, ডরো মত’ টু দাদা হিমসেলফ” (সেই ব্যক্তি যে দাদা কে বলেছিল, ‘দাদা ভয় পেয়ো না’)।
ওই পোস্টে বদানি আরও লেখেন, এই মানুষটি নিজের পজিটিভিটি দিয়ে জীবনে বহু চোট আঘাতের সম্মুখিন হয়েও ফিরে এসেছে। তিনি লড়াকু মানসিকতা এবং বড় হৃদয়ের একজন মানুষ। তোমাকে সুন্দর একটা অবসর জীবনের জন্য অভিনন্দন। দেশের হয়ে খেলে জাতীয় পতাকাকে অনেক অনেক উঁচুতে উড়িয়েছো তুমি।

SHARE
সাংবাদিক, আদ্যন্ত ক্রীড়াপ্রেমী। ব্রায়ান লারা সচিনের ভক্ত। ক্রিকেটের বাইরে ব্রাজিলের সমর্থক এবং নেইমার ও মেসির অন্ধ ভক্ত।

আরও পড়ুন

আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে সর্বাধিক সেঞ্চুরির মালিক যে পাঁচ ক্রিকেটার

ক্রিকেটে একজন ব্যাটসম্যানের মানদণ্ড বিচার করার ক্ষেত্রে কোন ব্যাটসম্যান কত সংখ্যক সেঞ্চুরি হাঁকিয়েছেন তাঁর ক্যারিয়ারে তা অতীব...

দ্বিতীয় ওয়ানডেতে যে তিনটি মাইলফলক স্পর্শ করতে পারেন ভারতীয় ব্যাটসম্যানরা

ঘরের মাটিতে জয়রথ যেন থামছেই না টিম ইন্ডিয়ার। ওয়েস্ট ইন্ডিজের বিপক্ষে সাদা পোশাকে সিরিজ জয়ের পর রঙিন...

স্ট্যাটস: ভারত বনাম ওয়েস্টইন্ডিজ: প্রথম ওয়ানডেতে হতে পারে সাতটি রেকর্ড, রোহিত আর ধবন ইতিহাস বইতে নথিভূক্ত করতে পারেন নিজের নাম

স্ট্যাটস: ভারত বনাম ওয়েস্টইন্ডিজ: প্রথম ওয়ানডেতে হতে পারে সাতটি রেকর্ড, রোহিত আর ধবন ইতিহাস বইতে নথিভূক্ত করতে পারেন নিজের নাম
ভারতীয় দল আর ওয়েস্টইন্ডিজ দলের মধ্যে পাঁচ ম্যাচের ওয়ানডে সিরিজের প্রথম ম্যাচ আগামিকাল ২১ অক্টোবর গুয়াহাটির মাঠে...

হ্যাপি বার্থ ডে সেহবাগ: এই ৫টি জিনিস প্রমান করে যে এখনও পর্যন্ত হয়নি বীরেন্দ্র সেহবাগের মত ব্যাটসম্যান

হ্যাপি বার্থ ডে সেহবাগ: এই ৫টি জিনিস প্রমান করে যে এখনও পর্যন্ত হয়নি বীরেন্দ্র সেহবাগের মত ব্যাটসম্যান
বিশ্বের সবচেয়ে আক্রামণাত্মক ওপেনার্সদের একজন বীরেন্দ্র সেহবাগ ৪০তম জন্মদিন পালন করছেন। ক্রিকেট জগত আর ওপেনিংকে নতুন পরিভাষা...

প্রত্যেক উইকেট নেওয়ার পর মিলত ১০ টাকা, ভারতীয় দলে জায়গা পাওয়ার পর রাতভর কেঁদেছিলেন এই খেলোয়াড়

প্রত্যেক উইকেট নেওয়ার পর মিলত ১০ টাকা, ভারতীয় দলে জায়গা পাওয়ার পর রাতভর কেঁদেছিলেন এই খেলোয়াড়
নিজের দলের হয়ে উইকেট নিতে প্রত্যেক বোলারেরই ইচ্ছে থাকে। পাপু রায় এক এমন বোলার যার জন্য উইকেট...