মাঠের মধ্যে আবেগ দেখানো আর মহেন্দ্র সিং ধোনি এ দুটোই কখনো সমার্থক হতে পারে না। ভারতীয় ক্রিকেটের সব থেকে সফল এবং গোছানো এই অধিনায়ক প্রায় এক যুগ ধরে আত্মবিশ্বাসের সঙ্গে এক ক্রিকেট পাগল জাতিকে আনন্দ দিয়ে গেছেন। খুব কমই তাকে মাঠের মধ্যে রাগ বা আবেগ দেখাতে দেখেছে মানুষ। মাঠের মধ্যে তার শান্ত এবং নির্লিপ্ত স্বাভাবের জন্যই তিনি আম জনতার কাছে ক্যাপ্টেন কুল হিসেবে পরিচিত। মানুষের কাছে ধোনির পরিচিতি ঘাড়ের উপর তার বরফ শীতল মস্তিস্কের জন্যই।
তা সত্ত্বেও সেই সময় ধোনি নিজের চোখের জল আটকে রাখতে পারেন নি, যখন দীর্ঘ ২৮ বছর প্রতীক্ষার পর নীল জার্সি ধারি তার দল ক্রিকেটের হোলি গ্রেল বলে পরিচিত ওয়ার্ল্ড কাপে জিত হাসিল করেছিল। মুম্বাইয়ের ওয়াংখেড়ে স্টেডিয়ামের সেই বিখ্যাত রাতে ফাইনালে শ্রীলঙ্কাকে ৬ উইকেটে হারিয়ে ব্যাট হাতে ধোনি সকলের নয়নের মনি হয়ে উঠেছিলেন। ২৭৪ রানের চ্যালেঞ্জ তাড়া করতে গিয়ে লাসিথ মালিঙ্গার বলে ফর্মে থাকা ভারতের দুই ওপেনার বীরেন্দ্র সেহবাগ এবং শচীন তেন্ডুলকর তাড়াতাড়ি ফিরে যাওয়ায়, ভারত সেই সময় শ্রীলঙ্কার দুঃসাধ্য প্রাচীর ভেদ করার চেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছিল। যদিও গৌতম গম্ভীর ৯৭ রানের দুরন্ত ইনিংস খেলে ভারতের জয়ের আশা বাড়িয়ে তুলেছিলেন। সেখান থেকে দলের দায়িত্ব নিজের কাঁধে তুলে নিয়ে ৯১ রানের বিশাল ইনিংস খেলে, একটা দুরন্ত ছক্কা হাঁকিয়ে ভারতকে ঘরের মাঠে ওয়ার্ল্ডকাপ জেতার স্বাদ দিয়েছিলেন ধোনি। শেষ শটটি নেওয়ার সংগে সংগে তার সতীর্থরা ধোনিকে জড়িয়ে ধরে। তাদের অনেকেই সেদিন চোখের জল আটকে রাখতে পারেন নি। অন্যদিকে ধোনি ছিলেন পরিচিত নির্লিপ্ত ভঙ্গিতে। এবং সেই মুহুর্তে তিনি তেমনই আচরণ করছিলেন যেমন য়ার পাঁচটা দিন করে থাকেন। তবে সম্প্রতি রাজদীপ সরদেশাই তার নতুন বই ‘ডেমক্রসি XI’ এ প্রকাশ করেছেন যে সেদিন ধোনিও নিজের চোখের জল ধরে রাখতে পারেন নি। তবে সেই মুহুর্তটি ধরে রাখতে ব্যর্থ হয় ক্যামেরা। এবং ভারত অধিনায়ক সে কথা নিজেও বহুবার স্বীকার করেছেন। এই বই অনুসারে বলেছেন যে যখন হরভজন সিং তাকে জড়িয়ে ধরেন সেই মুহুর্তে তিনিও চোখের জল সামলাতে পারেন নি। কেঁদে ফেলেছিলেন তিনি। ওই বইটিতে ধোনিকে কোট করে লেখা হয়েছে, “ হ্যাঁ, আমিও কেঁদে ফেলেছিলাম, কিন্তু ক্যামেরায় সেই মুহুর্তটি ধরা পড়ে নি। স্বভাবিকভাবেই আমি ভীষণ উত্তেজিত ছিলাম, তা সত্ত্বেও আমি নিজের আবেগকে আটকে রেখেছিলাম। কিন্তু হরজন কাঁদতে কাঁদতে আমাকে জড়িয়ে ধরার পর আমি আর নিজেকে সামলাতে পারি নি। ঠিক সেই সময়েই আমার চোখ জলে ভরে যায়। কিন্তু তখনই আমি মাথা নীচু করে ফেলি যাতে কেউ আমাকে কাঁদতে না দেখে”।

SHARE
সাংবাদিক, আদ্যন্ত ক্রীড়াপ্রেমী। ব্রায়ান লারা সচিনের ভক্ত। ক্রিকেটের বাইরে ব্রাজিলের সমর্থক এবং নেইমার ও মেসির অন্ধ ভক্ত।

আরও পড়ুন

হার্দিক পাণ্ডিয়া খেলেন আরো এক ধাক্কা, খার জিমখানা ক্লাবও কেড়ে নিল সদস্যপদ

হার্দিক পাণ্ডিয়া খেলেন আরো এক ধাক্কা, খার জিমখানা ক্লাবও কেড়ে নিল সদস্যপদ
‘কফি উইথ করণ’ শোতে হার্দিক পাণ্ডিয়া বলেছিলেন যে, “আমার পরিবারের চিন্তাভাবনা খোলামেলা, আর যখন আমি প্রথমবার কোনো...

যিনি ধোনিকে বানিয়েছেন ক্রিকেটার, তিনি তাকে এই জায়গায় খেলতে দেখতে চান

যিনি ধোনিকে বানিয়েছেন ক্রিকেটার, তিনি তাকে এই জায়গায় খেলতে দেখতে চান
ভারতীয় দলের প্রাক্তন অধিনায়ক মহেন্দ্র সিং ধোনির দুর্দান্ত ব্যাটিং দেখা সকলের এক যুগ হয়ে গিয়েছে। কিন্তু তিনি...

হার্দিক পাণ্ডিয়ার বাবা হিমাংশু পাণ্ডিয়া জানিয়েছেন, সাসপেণ্ডের পর বাড়িতে কি করছেন হার্দিক পাণ্ডিয়া

হার্দিক পাণ্ডিয়া আর কেএল রাহুলকে বিসিসিআই সাসপেণ্ড করেছে। জানিয়ে দিই এই দুই খেলোয়াড় মহিলাদের নিয়ে ‘কফি উইথ...

হার্দিক পাণ্ডিয়া-কেএল রাহুলের পর বিরাট কোহলির ভিডিয়ো ভাইরাল, মহিলারজন্য করেছিলেন বর্ণবিদ্বেষী মন্তব্য

হার্দিক পাণ্ডিয়া-কেএল রাহুলের পর বিরাট কোহলির ভিডিয়ো ভাইরাল, মহিলারজন্য করেছিলেন বর্ণবিদ্বেষী মন্তব্য
ভারতীয় দলের তারকা অলরাউন্ডার হার্দিক পাণ্ডিয়া আর ওপেনিং ব্যাটসম্যান কেএল রাহুল করণ জোহরের জনপ্রিয় শো ‘কফি উইথ...

ভিডিয়ো: বিশ্বের সবচেয়ে সৎ খেলোয়াড়দের মধ্যে একজন মহেন্দ্র সিং ধোনি, গতকাল অস্ট্রেলিয়ার বিরুদ্ধে করলেন এমন কিছু, যেদিকে নজর দেয়নি কেউই

ভিডিয়ো: বিশ্বের সবচেয়ে সৎ খেলোয়াড়দের মধ্যে একজন মহেন্দ্র সিং ধোনি গতকাল অস্ট্রেলিয়ার বিরুদ্ধে করলেন এমন কিছু, কারো যায়নি ধ্যান
ভারতীয় দল অ্যাডিলেডে খেলা হওয়া দ্বিতীয় ওয়ানডে ম্যাচ এমএস ধোনির দুর্দান্ত ইনিংসের সৌজন্যে জিতে নিয়েছে। এমএস ধোনি...