কঠিন পরিস্থিতিতেই চ্যাম্পিয়নরা বারবার ফিরে আসে, মুম্বাইয়ের বিরুদ্ধে চাপের মুখে সে কথাই প্রমান করল সানরাইজার্স হায়দ্রাবাদ। এখনও পর্যন্ত এই মরশুমের সবচেয়ে কম রানের লক্ষ্যকে ডিফেন্ড করে তারা বর্তমান চ্যাম্পিয়ন মুম্বাই ইন্ডিয়ান্সকে ৩১ রানের বিশাল ব্যাবধানে হারিয়ে দিল। মূলত এই ম্যাচ তারা জেতে তাদের বোলার কৃতিত্বেই, যারা সঠিক লাইন লেংথ বজায় রেখে মুম্বাইকে মাত্র ৮৭ রানে আটকে দেয়। অন্যদিকে ৬টির মধ্যে পাঁচটি ম্যাচ হেরে মুম্বাই এই মরশুমে তাদের জন্য কঠিন পরিস্থিতি তৈরি করে ফেলল। এই মুহুর্তে দ্রুত সমাধান খুঁজে তাদের জয়ের রাস্তায় ফেরাটা জরুরী হয়ে পড়েছে। মুম্বাই এই ম্যাচে টসে জিতে সানরাইজার্স হায়দ্রাবাদকে প্রথমে ব্যাট করার আমন্ত্রণ জানালে হায়দ্রাবাদ অধিনায়ক কেন উইলিয়ামসন ২৯ রানের ধৈর্যপূর্ণ ইনিংস খেলেন, তিনি ছাড়া আর বাকি ব্যাটসম্যানরাই দায়িত্বজ্ঞানহীন শট খেলে আউট হন। অধিনায়ককে যোগ্য সহায়তা দিয়ে ইউসুফ পাঠানও ২৯ রানের ইনিংস খেলেন। মুম্বাইয়ের লেগ স্পিনার ময়ঙ্ক মারকান্ডে দুরন্ত বোলিং প্রদর্শন করে ২/১৫ উইকেট নেন। হায়দ্রাবাদও তাদের নির্ধারিত ২০ ওভার সম্পুর্ণ ইনিংস খেলতে ব্যর্থ হয়ে ১৯ ওভারে ১১৮ রান তোলে। হায়দ্রাবাদ এত কম রানে আউট হয়ে গেলেও খুবই কম লোকই ধারণা করতে পেরেছিল যে মুম্বাইয়ের পক্ষে এই রান দরকারের থেকেও বেশ হয়ে উঠবে কারণ রান তাড়া করতে নেমে মুম্বাইও নিয়মিত অন্তরালে তাদের উইকেট হারাতে থাকে।

যথেষ্ট দায়িত্বজ্ঞানহীন বেপরোয়া শট খেলে আউট হন ঈশাণ কিষান এবং রোহিত শর্মা, যার পরেই ধস নামে মুম্বাইয়ের ব্যাটিং লাইনআপে। একমাত্র সূর্যকুমার যাদব এবং এবং ক্রুণাল পান্ডিয়া কিছুটা চেষ্টা করেন কিন্তু তাদের জুটির পতন হওয়ার মুম্বাই ইনিংস ওয়ান ওয়ে ট্রাফিকে পরিণত হয়। অন্যদিকে হায়দ্রবাদ তাদের এই সংস্করণের শ্রেষ্ঠ পারফর্মেন্স দেখিয়ে প্রমান করেন যে ভুবনেশ্বর কুমারকে ছাড়াই এখনও তাদের বোলিং আক্রমণ যথেষ্ট তীক্ষ্ণ। এই ম্যাচে হায়দ্রাবাদ বোলারদের মধ্যে রশিদ খানের বোলিং গড় দাঁড়ায় ৪.1.11.2। যা তাকে এই ম্যাচের ম্যান অফ দ্য ম্যাচের পুরস্কার এনে দেয়।

ম্যাচ শেষে পুরস্কার বিতরণী অনুষ্ঠানে রশিদ জানান, “ভগবানকে ধন্যবাদ। হারের পর ফিরে আসায় বেশ ভালই লাগছে। আমরা কোচিং স্টাফদের কাছ থেকে অনেক কিছুই শিখতে পারি। তারা আমাকে অনুপ্রাণিত করে চলে। তারা আমাকে রিল্যাক্স থাকতে বলে এবং এটাই আমার মধ্যে থেকে সেরাটা বের করে আনে। আপনি যাই করুন না কেন আপনাকে রিল্যাক্স থাকতে হবে এবং আপনার বেসিকটাকে ধরে রাখতে হবে। আমরা হারি বা জিতি, ম্যানেজমেন্ট সবসময়ই আমাদের ভালো পজিটিভ জায়গায় রাখে”।

SHARE
সাংবাদিক, আদ্যন্ত ক্রীড়াপ্রেমী। ব্রায়ান লারা সচিনের ভক্ত। ক্রিকেটের বাইরে ব্রাজিলের সমর্থক এবং নেইমার ও মেসির অন্ধ ভক্ত।

আরও পড়ুন

INDvsASU: দ্বিতীয় টেস্টে জয়ের ধারা বজায় রাখতে হলে একটু ভিন্নভাবে ভাবতে হবে টিম ইন্ডিয়াকে

অ্যাডিলেইডে অস্ট্রেলিয়ার বিপক্ষে সিরিজের প্রথম টেস্টে ভারত জয় পেলেও ম্যাচটি ছিল বেশ উত্তেজনাপূর্ণ। মাত্র ৩১ রানের জয়...

স্ট্যাটিস্টিক্যাল প্রিভিউ: পার্থে অস্ট্রেলিয়ার পাল্লা ভারি, কিন্তু এই কারণে খুশি রয়েছে টিম ইন্ডিয়া

স্ট্যাটিস্টিক্যাল প্রিভিউ: পার্থে অস্ট্রেলিয়ার পাল্লা ভারি, কিন্তু এই কারণে খুশি রয়েছে টিম ইন্ডিয়া
অস্ট্রেলিয়া আর ভারতের মধ্যে টেস্ট সিরিজের দ্বিতীয় ম্যাচ পার্থে খেলা হবে। অ্যাডিলেডে খেলা হওয়া ম্যাচ ভারতীয় দল৩১...

জেনে নিন কেনো প্রথম টেস্টে ভারতীয় দলের প্রদর্শনে খুশি নন ভিভিএস লক্ষ্মণ

জেনে নিন কেনো প্রথম টেস্টে ভারতীয় দলের প্রদর্শনে খুশি নন ভিভিএস লক্ষ্মণ
ভারতীয় দল প্রথম টেস্টে অস্ট্রেলিয়ার বিরুদ্ধে দুর্দান্ত জয় হাসিল করে তাদের ৩১ রানে হারিয়ে দেয়। এই ম্যাচে...

ভারত বনাম অস্ট্রেলিয়া: এই কারণে দ্বিতীয় টেস্টে রোহিত শর্মাকে দিয়ে করানো উচিত ইনিংসের শুরুয়াত

ভারত বনাম অস্ট্রেলিয়া: এই কারণে দ্বিতীয় টেস্টে রোহিত শর্মাকে দিয়ে করানো উচিত ইনিংসের শুরুয়াত
ভারত আর অস্ট্রেলিয়ার মধ্যে অ্যাডিলেড টেস্টে ভারত রোমাঞ্চকর জয় হাসিল করেছে।এই জয়ের সঙ্গেই ভারত টেস্ট সিরিজে লীড...

প্রথম টেস্ট ম্যাচে জয় সত্ত্বেও দল থেকে বাদ পড়তে পারেন এই দুই খেলোয়াড়!

প্রথম টেস্ট ম্যাচে জয় সত্ত্বেও দল থেকে বাদ পড়তে পারেন এই দুই খেলোয়াড়!
ভারতীয় দল প্রথম টেস্ট দুর্দান্তভাবে জিতে নিয়েছে। এর সঙ্গেই ভারতীয় দল ১০ বছর বাদে অস্ট্রেলিয়াতে কোনো টেস্ট...