আইপিএলের জন্য তৈরি ঋদ্ধিমান, ব্যাটে বিস্ফোরণ ঘটিয়ে ২০ বলে সেঞ্চুরি করলেন তিনি

আইপিএলের জন্য তৈরি ঋদ্ধিমান, ব্যাটে বিস্ফোরণ ঘটিয়ে ২০ বলে সেঞ্চুরি করলেন তিনি 1

যে কোনও ক্রিকেট ম্যাচে একজন ব্যাটসম্যানকে সেঞ্চুরি করতে মিনিমাম ১৭টি বল খেলতে হয়। বিশ্বাস করুন বা না করুন ঋদ্ধিমান সাহা সেঞ্চুরি করতে নিলেন শুধু মাত্র ২০টি বল।অবিশ্বাস্য হলেও সত্যি। এই ছোটো চেহারার উইকেটকীপার শনিবার দুরন্ত স্টাইলে ইন্ডিয়ার প্রিমিয়ার লিগের আসন্ন মরশুমের জন্য নিজের ওয়ার্মআপ সেরে নিলেন। কলকাতার একটি ক্লাব ম্যাচে ঋদ্ধি সেঞ্চুরি করতে নিলেন মাত্র ২০টি বল। স্থানীয় জেসি মুখার্জি ট্রফিতে কালিঘাটের একটি ম্যাচে ওই অংশ নিয়ে ঋদ্ধি মোহনবাগানের হয়ে বিএনআর রিক্রিয়েশন ক্লাবের বিপক্ষে ওই রান করেন। তার দল বিপক্ষকে নির্ধারিত ২০ ওভারে ৭ উইকেটে ১৫১ রানে আটকে দেয়। অন্যদিকে সকলেই জানত এই ম্যাচের ভাগ্য নির্ভর করছে এই আন্তর্জাতিক ক্রিকেটারের হাতে। কিন্তু ঋদ্ধির এই সংহারক মূর্তির আশা কেউই করেন নি।

আইপিএলের জন্য তৈরি ঋদ্ধিমান, ব্যাটে বিস্ফোরণ ঘটিয়ে ২০ বলে সেঞ্চুরি করলেন তিনি 2

অন্যদিকে ওপেন করতে নেমে ঋদ্ধি প্রথম বল থেকেই ছিলেন সাহসী। ২০ বলে এই সেঞ্চুরি করার পথে তিনি ১৪টি ছয় এবং মাত্র চারটি বাউন্ডারি মারেন। তার অপরাজিত ১০২ রানের ইনিংসটি খেলার পথে ঋদ্ধির স্ট্রাইক রেট ছিল অবিশ্বাস্য ৫১০। ঋদ্ধির ওই ইনিংসের দৌলতেই মাত্র সাত ওভারেই মোহনবাগান এই ম্যাচটি দশ উইকেটে জিতে নেয়। অন্যদিকে ঋদ্ধি সঙ্গী মোহনবাগানের আরও এক ওপেনার শুভময় দাস করেন ২৮ বলে ৩২ রান। এর মধ্যে ঋদ্ধির এই সেঞ্চুরি ক্রিকেটের সর্বকালীন সবচেয়ে দ্রুততম সেঞ্চুরির তালিকায় ঢুকে পড়ল।

আইপিএলের জন্য তৈরি ঋদ্ধিমান, ব্যাটে বিস্ফোরণ ঘটিয়ে ২০ বলে সেঞ্চুরি করলেন তিনি 3

এই পকেট সাইজ ডায়নামো বাংলার ব্যাটসম্যান এই সেঞ্চুরি করার পথে প্রায় সমস্ত রেকর্ডই ভেঙে দিয়েছেন। এবছর আইপিএল নিলামে ঋদ্ধিকে পাঁচ কোটি টাকায় কিনেছে সানরাইজার্স হায়দ্রাবাদ। ভারতের সীমিত ওভারের ক্রিকেট দলে জায়গা পাওয়ার ক্ষেত্রে ৩৩ বছর বয়েসী ঋদ্ধি এখনও অনেকটাই পিছিয়ে রয়েছেন। শনিবারের এই ইনিংসের পর ভারতের সীমিত ওভারের খেলায় নির্বাচকদের তার দিকে নজর দিতে বাধ্য করলেন ঋদ্ধি।

suvendu debnath

কবি, সাংবাদিক এবং গদ্যকার। শচীন তেন্ডুলকর, ব্রায়ান লারার অন্ধ ভক্ত। ক্রিকেটের...

Leave a comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *