ভিডিও: বোল্ড হয়েও সবাইকে অবাক করে দিয়ে সৌম্য নিলেন রিভিউ 1

ক্রিকেট খেলোয়াড় হোক বা ক্রিকেট ভক্তরা, এই খেলায় রিভিউ সিস্টেম বা ডিআরএস-টা কি এবং সেটা কোনক্ষেত্রে ব্যবহার করতে হয়, তা অল্পবিস্তর সকলেই জানেন পরিষ্কারভাবে।

আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে রিভিউ সিস্টেমের সর্বপ্রথম আবির্ভাব ঘটে ২০০৮ সালে শ্রীলঙ্কা বনাম ভারতের টেস্ট সিরিজে। মূলত আম্পায়ারের দেওয়া কোনো আঁটসাঁট সিদ্ধান্তের বিরোধিতা জানাতে ফিল্ডিং দলের অধিনায়ক বা ব্যাটসম্যান স্বয়ং এই সিস্টেমটি ব্যবহার করে থাকে, যা আম্পায়ারকে আরও গুরুত্ব সহকারে সিদ্ধান্তটি বিবেচনা করতে বাধ্য করে।

যদিও বহুবারই এই রিভিউ সিস্টেম বা ডিআরএস বিতর্কের কেন্দ্রবিন্দুতে থেকেছে, এবং এর পরিপ্রেক্ষিতে আইসিসি যথাসাধ্য চেষ্টা করেছে এই সিস্টেমে প্রয়োজনীয় বদল এনে তা সংশোধন করার। বর্তমানে এই বিশেষ প্রক্রিয়াটি আন্তর্জাতিক ক্রিকেটের একটি গুরুত্বপূর্ণ অঙ্গ হয়ে দাঁড়িয়েছে প্রতিটা দলের কাছে।

এই পদ্ধতিকে গুরুত্বপূর্ণভাবে ব্যবহার করার পাশাপাশি এই কয়েক বছরে আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে আমরা বেশকিছুবার প্রত্যক্ষ করেছি যে, আম্পায়ারের যে সিদ্ধান্তের জন্য এই রিভিউ সিস্টেম বা ডিআরএস ব্যবহার করা হয়েছে, অর্থাৎ অন্যভাবে বলতে গেলে আম্পায়ারের যে সিদ্ধান্তটিকে বিরোধীতা করেছেন ব্যাটসম্যান স্বয়ং বা ফিল্ডিং দলের অধিনায়ক, তা মোটেও কোনো আঁটসাঁট সিদ্ধান্ত নয় এমনকি তা সাধারণ অবস্থাতেও বলে দেওয়া যেতে পারে যে রিভিউ সিস্টেমটি ব্যবহারকারী ক্রিকেটার সম্পূর্ণরুপে ভুল।

তবে এই প্রতিবেদনের উল্লেখ্য ঘটনাটি সেইসমস্ত ঘটনাকে ছাড়িয়ে গেল।

গলেতে চলা শ্রীলঙ্কা বনাম বাংলাদেশ সিরিজের প্রথম টেস্টের শেষ দিনের সকালে, বাংলাদেশের ওপেনিং ব্যাটসম্যান সৌম্য সরকার পরিষ্কারভাবে বোল্ড আউট হন শ্রীলঙ্কান মিডিয়াম-পেসার আসেলা গুনারাত্নের বলে। আর ঠিক এরপরেই সবাইকে চমকে দিয়েই সৌম্য একটি ডিআরএসের আবেদন জানান মাঠে থাকা আম্পায়ারের কাছে।

এই ঘটনায় সবাই বেশ অবাক হয়ে যায়। তবে শেষপর্যন্ত সৌম্য নিজের আবেদন তুলে নেওয়ায় বাংলাদেশের এই ডিআরএস-টি নষ্ট হওয়া থেকে বেঁচে যায়।

যদিও অনেকেই মনে করছেন যে, একটি ভুল বোঝাবুঝির ফলে এই সিদ্ধান্তটি নিয়েছিলেন সৌম্য। তাঁদের মতে, আসলে সৌম্য বুঝতে পারেননি যে তিনি বোল্ড আউটের স্বীকার হয়েছেন; বরং তিনি ভেবেছিলেন যে তাঁকে কট বিহাইণ্ড আউট দেওয়া হয়েছে, যখন তাঁর ব্যাটে-বলে কোনো সম্পর্কই ঘটেনি।

এবারে দেখুন সেই ভিডিওটিঃ

Leave a comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *