ড্রিঙ্কস ব্রেকে মাঠের ভেতর দুই সুন্দরী মহিলাকে দেখে নিজেকে সামলাতে পারলেন না বিরাট...নিজেই দেখে নিন 1

ড্রিঙ্কস ব্রেকে মাঠের ভেতর দুই সুন্দরী মহিলাকে দেখে নিজেকে সামলাতে পারলেন না বিরাট...নিজেই দেখে নিন 2ক্রিকেট ম্য়াচের সময় জলপানের বিরতি কোনও নতুন ব্য়াপার নয়। বরং মাঝেমধ্য়ে টিভিতে খেলা দেখা দর্শকদের জন্য়ও আরামদায়ক। কারণ, ড্রিঙ্কস ইন্টারভেলের টাইমে আমরাও বাথরুম ব্রেক নিয়ে নিতে পারি। অবশ্য়ই আপনি যদি ক্রিকেট পাগল হন তবে। একটাও বল যেন মিস না যায়। সাধারণত, ম্য়াচ চলার সময় ক্রিকেট মাঠে জলপানের বিরতির সময় প্লেয়িং ইলেভেনে না থাকা রিজার্ভ বেঞ্চের ক্রিকেটারা এনার্জি ড্রিঙ্কস আর জল নিয়ে যান। ইনিংসের মাঝে জলপানের বিরতি খুব গুরুত্বপূর্ণ। কারণ, দলের কোচ তো আর মাঠে নেমে বা ফুটবল ম্য়াচের মতো সাইড লাইনে দাঁড়িয়ে জোর গলায় চেঁচিয়ে টিপস দিতে পারেন না। তাই যে কোনও দলের টিম ম্য়ানেজমেন্ট বা কোচ বা কোচিং স্টাফেরা বাধ্য়তামূলক ড্রিঙ্কস ব্রেকের সময় রিজার্ভ বেঞ্চের ক্রিকেটারদের মাঠে পাঠান প্রয়োজনীয় টিপস মাঠের মধ্য়ে থাকা দলের ক্রিকেটারদের কাছে পৌঁছে দিতে। কিন্তু, সদ্য় সমাপ্ত একদিনের আন্তর্জাতিক সিরিজে একটি ম্য়াচে ঠিক উল্টোটাই দেখা গেল। সিরিজের চতুর্থ ম্য়াচে শ্রীলঙ্কার বিরুদ্ধে জয়ের জন্য় বিশাল রানের টার্গেট খাড়া করার পর ভারত যখন ম্য়াচের দ্বিতীয় ইনিংসে বোলিং করছে, জলপানের বিরতিতে দু’জন সুন্দরী মেয়ে বিরাটদের জন্য় এনার্জি ড্রিঙ্কস নিয়ে হাজির।
কলম্বোতে সিরিজের চতুর্থ ম্য়াচে শ্রীলঙ্কান ইনিংসের বয়স তখন সবে একঘণ্টা পার করেছে। আম্পায়ার ড্রিঙ্কস ব্রেকের জন্য় ইশারা করতেই দুই সুন্দরী মেয়েকে জলের বোতল আর এনার্জি ড্রিঙ্কস নিয়ে মাঠের ছুটে আসতে দেখে বিরাট সহ ভারতীয় দলের ক্রিকেটাররা হকচকিয়ে যান। আইপিএলের সময় মাঠের ধারে চিয়ার লিডারদের নাচতে দেখতে অভ্য়স্ত হলেও ভারতীয় দলের ক্রিকেটাররা এইভাবে ম্য়াচ চলাকালীন মাঠের মধ্য়ে মেয়েদর ছুটে আসতে দেখতে একেবারেই অভ্য়স্ত নয়। তার ওপরে তাঁরা যদি সুন্দরী হল তাহলে তো কথাই নেই। এনার্জি ড্রিঙ্কস মুখে দিয়ে তা পান করতে করতেই ভারতীয় দলের ক্রিকেটাররা হাঁ করে ওই দুই সুন্দরীর দিকে বারবার ঘুরে দেখতে লাগলেন। শুধু তাই নয়, অধিনায়ক বিরাট কোহলিতে খানিকক্ষণ একনজরে তাকিয়েও ছিলেন একটি মেয়ের দিকে। ক্য়ামেরায় তা ধরাও পড়ল। ভারত অধিনায়কের চোখ তখন তাঁর দিকে পিঠ ফিরিয়ে দাঁড়িয়ে থাকা ওই সুন্দরীর নিতম্বের দিকে। অবশ্য়, নিজেকে কিছুক্ষণের মধ্য়ে সামলে নেন বিরাট।
স্বভাবতই, ছেলেদের ক্রিকেট খেলার মাঝে মাঠের মধ্য়ে এভাবে আচমকা দুই সুন্দরী মহিলা প্রবেশ করায়, মনোসংযোগ ওদিকে চলে যাওয়ারই কথা। তবে শ্রীলঙ্কার বিরুদ্ধে ম্য়াচে মনোসংযোগ দেওয়া বেশি জরুরি ছিল। তাই কিছুক্ষণের মধ্য়ে বিরাটরা নিজেদের সামলে নিয়ে তাঁদের রণকৌশল দিকে মনসংযোগ দেন। ভারত ওই ম্য়াচে শ্রীলঙ্কাকে ২৬৭ রানে পরাস্ত করে প্রথম ইনিংসে ৩৭৫ রান তোলার পর। গতরবিবার শ্রীলঙ্কা ও ভারতের মধ্য়ে পাঁচ ম্য়াচের একদিনের আন্তর্জাতিক সিরিজটি শেষ হয়েছে। টেস্ট ও একদিনের সিরিজে ভারত শ্রীলঙ্কা হোয়াইটওয়াশ করেছে। বুধবার সিরিজের একমাত্র টি-২০ ম্য়াচটি কলম্বোর ক্ষেত্ররামার প্রেমদাসা স্টেডিয়ামে খেলা হবে। তারপরের দিন ভারতীয় ক্রিকেটাররা দেশে ফিরে আসছেন।

Leave a comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *