ধোনীর অদ্ভুত এক পরামর্শের জোড়েই ম্যাচ জিতিয়েছিলেন ভুবি! 1

ধোনীর অদ্ভুত এক পরামর্শের জোড়েই ম্যাচ জিতিয়েছিলেন ভুবি! 2

শ্রীলঙ্কার বিরুদ্ধে দ্বিতীয় একদিনের ম্যাচে ভারতীয় ব্যাটিংয়ের ভরাডুবিতে সব থেকে বেশি নজর কেড়েছেন ভুবনেশ্বর কুমার। রোহিত-শিখরের প্রথম উইকেটের শতরানের যুগলবন্দির পর একটা সময় ৭ উইকেট হারিয়ে চাপে পড়ে যায় ভারত। রহস্য স্পিনার ধনঞ্জয়ের শিকার হন বিরাট, লোকেশ রাহুল, যাদব। একটা সময় ভারতের হাত থেকে ম্যাচের ব্যাটনটাই কেড়ে নিয়েছিল শ্রীলঙ্কা। এরপরই ম্যাচের হাল ধরেন ধোনি এবং ভুবনেশ্বর কুমার। শ্রীলঙ্কা দল যখন মহেন্দ্র সিং ধোনিকে ফিরিয়ে ম্যাচ জিততে মরিয়া তখন ব্যাটে দাপট দেখাতে শুরু করেন ভুবনেশ্বর। তুলেন নেন একদিনের ক্রিকেটে নিজের প্রথম অর্ধশতক। এই অসাধারণ ইনিংসে খেলার পর ম্যাচ শেষে মহেন্দ্র সিং ধোনিকে কৃতজ্ঞতা জানালেন ভুবনেশ্বর কুমার। ডানহাতি এই অলরাউন্ডার বলেন, “আমি যখন ব্যাট করতে আসি, ধোনি আমাকে বলেছিলেন, তুমি তোমার স্বাভাবিক ক্রিকেট খেল। যেমনটা টেস্ট ক্রিকেটে খেলে থাক। কোনও রকম চাপ না নিয়ে পুরো ওভার ব্যাট করতে হবে, তাহলেই লক্ষ্যে পৌঁছে যাব।”

 

 

তবে শুরুতে সতর্ক থাকলেও, পরের দিকে অনায়াসেই রান তুলেছেন ধোনি ও ভুবেনশ্বর। তাই ধোনি-ভুবেনশ্বরের অবিচ্ছিন্ন ১শ রানের জুটিতে ১৬ বল হাতে রেখেই ম্যাচ জিতে মাঠ ছাড়ে ভারত। অষ্টম উইকেটে ভারতের হয়ে নতুন জুটির রেকর্ড এটি। ৮ উইকেটে শ্রীলঙ্কার মাটিতে শ্রীলঙ্কার বিরুদ্ধে ধোনি-ভুবির যুগলবন্দিই সর্বকালের সেরা রেকর্ড। এমনকি মদনলালের পর ভুবনেশ্বরই সেই ক্রিকেটার যিনি টেস্ট এবং একদিনের ক্রিকেট উভয় ফরম্যাটেই ৮ নম্বরে ব্যাট করতে এসে অর্ধশতরান করেছেন। এছাড়া ক্রিকেট ইতিহাসে অষ্টম উইকেটে সর্বোচ্চ রানের জুটি গড়ে দলের জয় নিশ্চিতে এটি বিশ্বরেকর্ড। ১টি চারের সহায়তায় ৬৮ বলে ৪৫ রানে অপরাজিত থাকেন ধোনি। আর ওয়ানডে ক্যারিয়ারের প্রথম হাফ-সেঞ্চুরি তুলে ৫৩ রানে অপরাজিত থাকেন ভুবেনশ্বর।

ভুবনেশ্বর আরো বলেন,

‘অতিরিক্ত কিছু করে দেখাতে চাইনি। নিজেদের সহজাত খেলাটা খেলে গিয়েছি। রান রেট ৬-৭-এর উপরে বাড়তে দিইনি।’’ শ্রীলঙ্কার অখ্যাত, অনামী বোলার ধনঞ্জয় ভারতের উপরে চাপ তৈরি করে ফেলেছিলেন। কিন্তু ধোনির মাথা তো বরফ শীতল। উইকেটের অন্য প্রান্তে দাঁড়িয়ে ভুবির উদ্দেশে বলেন, ‘‘চাপ নেওয়ার কোনও প্রয়োজনই নেই।’’

 

সঙ্গে ভুবনেশ্বর আরো জানান,

“আমরা তখন ৭ উইকেট হারিয়েছি। তখনও আমার বিশ্বাস হচ্ছিল আমরা জিততে পারি। আমাকে ধোনির পাশে থাকতে হবে, আর আমি সেটাই করেছি।” শ্রীলঙ্কা রানের পাহাড় চাপিয়ে দেয়নি ভারতের উপরে। কিন্তু দ্রুত উইকেট চলে যাওয়ায় ভারতই বিপাকে পড়ে গিয়েছিল। ভুবনেশ্বর কুমার বলেন, ‘‘জানতাম পুরো ওভার খেলতে পারলে আমরাই জিতব। আমাদের হারানোর কিছু ছিল না। কারণ সাত উইকেট আগেই চলে গিয়েছিল।’’

Nazmus Sajid

Sports Fanatic!

Leave a comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *