ভারতের বিপক্ষে তিন ম্যাচ টি-টুয়েন্টি সিরিজে দলের বাহিরে থাকবেন অস্ট্রেলিয়ার তারকা পেস বোলার প্যাট কামিন্স। আগামী ২৩ নভেম্বর থেকে অ্যাশেজ শুরু হবে। অ্যাশেজ সিরিজ কে গুরুত্ব দিয়ে প্যাট কামিন্স কে বিশ্রামে রাখার এই সিদ্ধান্ত নেন অস্ট্রেলিয়া ক্রিকেট বোর্ডের প্রধানা নির্বাচক ট্রেভর হোন্স। তিনি বলেন, প্যাট কামিন্স এই বছর টেস্ট ক্রিকেটে ভাল সাফল্য দেখিয়েছে। চলমান ভারতের সাথে সিরিজে প্যাট কামিন্স যথেষ্ট ফিট আছেন তারপরেও আমরা প্যাট কামিন্স কে বিশ্রাম দিতে চাই যেন সে নিজেকে পুরোপুরিভাবে ভাবে ফিট করে নেয় এবং অ্যাশেজ সিরিজে ইংল্যান্ডের বিরুদ্ধে যেন তার সেরাটা দেওয়ার চেষ্টা করে। তিনি আরো বলেন, কামিন্স এ বছর অনেক লম্বা সময় ধরে একটানা সমান গুরুত্ব দিয়ে ভাল টেস্ট ক্রিকেট খেলে যাচ্ছে, এবারের অ্যাশেজ সিরিজ আমাদের ঘরের মাঠে তাই তাকে বিশ্রাম আমাদের জন্য দেওয়াটা ভাল সিদ্ধান্ত। সে নিজেকে শারীরিক ও মানসিক ভাবেই প্রস্তুত করে নিবে।

ঠিক চার বছর আগে অস্ট্রেলিয়া ক্রিকেট বোর্ড এইরকম আরেকটা সিদ্ধান্ত নিয়েছিল। সেবার তারা তাদের দলের গুরুত্বপূর্ণ তারকা বোলার মিচেল জনসনকে এইভাবে বিশ্রামে রেখেছিলেন। বিশ্রাম কাটিয়ে জনসন অ্যাশেজ সিরিজে ইংল্যান্ড কে একাই বিধ্বস্ত করেছিলেন, বাঁ-হাতি এই পেস বোলার পাঁচ ম্যাচ সিরিজে একাই নিয়েছিলেন ৩৭ উইকেট। অধিনায়ক মাইকেল ক্লার্কের অস্ট্রেলিয়া সেবার ৫-০ তে হোয়াইটওয়াশ করেছিল এলিস্টার কুক বাহিনী কে। হয়ত এমনটাই ভেবে পিটার কামিন্স কে বিশ্রাম দিয়েচে অস্ট্রেলিয়া ক্রিকেট বোর্ড।

এদিকে অস্ট্রেলিয়া আরো দুই পেস বোলার হ্যাজেলউড ও মিচেল স্টার্ক সামান্য ইনজুরিতে আছেন তাই প্যাট কামিন্সে উপর সব আশা রেখেচে তাদের ক্রিকেট বোর্ড। এই ডান-হাতি পেস বোলার নিয়মিত প্রতি ঘন্টায় ১৫০ কিলোমিটার বেগে বল করতে পারেন যা অবশ্যই জো রুট ও তার বাহিনীর জন্য বিপদজনক। কিন্তু আগামী মাসে প্যাট কামিন্সে ইংল্যান্ডের “নিউ সাউথ ওয়েলস” এর হয়ে “শেফিল্ড শিল্ড” সিরিজ খেলবেন সেখানে ইংল্যান্ডের ব্যাটসম্যানরা প্যাট কামিন্সের বোল খেলার সুযোগ পেয়ে যাবেন।

এদিকে, প্যাট কামিন্স কে বিশ্রাম দিয়ে তার পরিবর্তে দলে কে জায়গা পাবে সে নাম এখনো ঘোষণা করেনি অস্ট্রেলিয়া ক্রিকেট বোর্ড তবে জানা যায় খুব শীঘ্রই ঘোষণা আসবে। চলমান ভারতের সাথে সিরিজে ইতিমধ্যে ২-০ তে পিছিয়ে আছে স্মিথ বাহিনী, তাই সিরিজের বাকী ম্যাচ গুলোতে গভীর মনোযোগী স্মিথ বাহিনী, ওয়ানডে সিরিজ শেষ হবে ১ অক্টোবর। এরপরেই বিশ্রামে যাবেন পিটার কামিন্স। টি-২০ সিরিজ শুরু হওয়ার কথা অক্টোবরের ৭ তারিখ থেকে ১৩ তারিখ পর্যন্ত। উল্লেখ্য ভারত-অস্ট্রেলিয়ার এই সিরিজে কোনো টেস্ট ম্যাচ নেই।

SHARE

আরও পড়ুন

আইপিএল ২০১৯: যে তিন ফ্র্যাঞ্চাইজি দলে ভেড়াতে পারে গৌতম গম্ভীরকে

দুই বিশ্বকাপ আসরের ফাইনালে দলের পক্ষে সেরা ইনিংস খেলে দলকে জয়ী করার ক্ষেত্রে অবদান রাখা গৌতম গম্ভীরকে...

TOP5: যে ৫ বাংলাদেশী ক্রিকেটারের দিকে নজর দিতে পারে আইপিএল ফ্র্যাঞ্চাইজি

আগামী বিশ্বকাপের আগে বসতে যাচ্ছে ইন্ডিয়ান প্রিমিয়ার লিগ আইপিএলের বারোতম আসর। বিশ্বের অন্যতম সেরা এই টুর্নামেন্টে বসে...

আইপিএল ২০১৯: মুস্তাফিজকে দলে ভেড়াতে চাইবে যে তিন ফ্র্যাঞ্চাইজি

আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে রাজকীয় অভিষেক হবার পর থেকে একের পর এক রেকর্ড গড়ে যাচ্ছেন বাংলাদেশী পেসার মুস্তাফিজুর রহমান।...

TOP5: ওয়ানডেতে সর্বকালের সেরা ৫ উইকেটরক্ষক

গ্লাভস হাতে তিন কাঠির পেছনে তীক্ষ্ণ দৃষ্টিতে বলের দিকে তাকিয়ে থাকেন উইকেটরক্ষক। বল গ্লাভস বন্দী করে ব্যাটসম্যানকে...

TOP5: আইপিএলে সর্বাধিক ছক্কা হাঁকানো পাঁচ ব্যাটসম্যান

ইন্ডিয়ান প্রিমিয়ার লিগ বা আইপিএল যেন প্রতিভাবান ক্রিকেটার খোঁজার এক আতশ কাচ। ক্রিকেটের সংক্ষিপ্ত ফরম্যাটে হওয়া এই...