বুমরাহ-শামি জুটিকে ২০০১ কলকাতা টেস্টে দ্রাবিড়-লক্ষ্মণের জুটির সাথে তুলনা করলেন বীরেন্দ্র সেহওয়াগ 1

লর্ডস টেস্টের পঞ্চম দিনে (ভারত বনাম ইংল্যান্ড, দ্বিতীয় টেস্ট), ভারত দুর্দান্ত ব্যাটিং করার সময় ইংল্যান্ডকে ২৭২ রানের টার্গেট দেয়। ঋষভ পন্থ অবশ্যই তাড়াতাড়ি আউট হয়ে গিয়েছিলেন কিন্তু এর পরে মহম্মদ শামি এবং জসপ্রিত বুমরাহ একসাথে ইংলিশ বোলারদের মনোবল ভেঙে দিয়েছিলেন। এই দুই ব্যাটসম্যানই নবম উইকেটে ৮৯ রানের পার্টনারশিপ করেন এবং ভারতীয় দলকে ৮ উইকেটে ২৯৮ রানে নিয়ে যান, এরপর অধিনায়ক বিরাট কোহলি ইনিংস ঘোষণা করেন। শামি এবং বুমরাহর এই ইনিংস দেখে প্রাক্তন টেস্ট ওপেনার বীরেন্দ্র সেহওয়াগ তাদের ভক্ত হয়ে ওঠেন। তিনি এই অংশীদারিত্বকে লক্ষ্মণ এবং দ্রাবিড়ের অংশীদারিত্বের সাথে তুলনা করেছিলেন যা তারা কলকাতার ইডেন গার্ডেনে অস্ট্রেলিয়ার বিরুদ্ধে গড়েছিল।

Never back down: Bumrah-Shami fight fire with fire to lead India's spirited  fightback at Lord's | Sports News,The Indian Express

বীরেন্দ্র সেহওয়াগ টুইট করে লিখেছেন- “মজা করুন। শামি-বুমরাহ আপনাকে সালাম। সাধুবাদ হওয়া উচিত।” সেহওয়াগ শামি এবং বুমরাহর শট নির্বাচন দেখেও খুব মুগ্ধ হয়েছিলেন। শামি এবং বুমরাহ তাদের ইনিংসের সময় চমৎকার কভার ড্রাইভ এবং স্ট্রেট ড্রাইভ করেছেন। এটা দেখে শেবাগ স্তব্ধ হয়ে গেলেন। তিনি এমনকি বলেছিলেন যে বিরাট কোহলি এখনও এমন শট মারেননি যা এই ব্যাটসম্যানরা লাগাচ্ছেন।

বুমরাহ-শামি জুটিকে ২০০১ কলকাতা টেস্টে দ্রাবিড়-লক্ষ্মণের জুটির সাথে তুলনা করলেন বীরেন্দ্র সেহওয়াগ 2

বিশেষ করে মহম্মদ শামি ইংল্যান্ডের বোলারদের বিরুদ্ধে আক্রমণাত্মক কৌশল অবলম্বন করেন। পাঁচটি চার ও একটি ছক্কার সাহায্যে শামি তার দ্বিতীয় টেস্ট অর্ধশতক পূর্ণ করেন। পঞ্চাশের জন্য শামি খেলেছেন মাত্র ৫৬ বল। তিনি মইন আলীর বলে ৯২ মিটার লম্বা ছক্কা মারেন। মহম্মদ শামি অপরাজিত ৫৬ এবং জসপ্রিত বুমরাহও অপরাজিত ৩৪ রান করেন।

Leave a comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *