শচীন বা বিরাট নন, বরং গিনেজ বুক অফ ওয়ার্ল্ড রেকর্ডে নাম নথিভূক্ত রয়েছে এই ভারতীয় ক্রিকেটারের

এই পৃথিবীর সকলেই গিনেজ বুক অফ ওয়ার্ল্ড রেকর্ডে নিজের নাম নথিভূক্ত করার উপলব্ধী হাসিল করতে চান। ক্রিকেটেও রেকর্ড গড়ে এবং ভাঙে। কিন্তু কিছু রেকর্ড এমনও থাকে যাকে বিশেষ রেকর্ডের নাম দেওয়া হয়। ক্রিকেটে এমন অনেক রেকর্ড রয়েছে যা বিশেষ ক্যাটাগরিতে আসে, অথবা অদ্ভূত হয় এই রেকর্ড। কিন্তু এসবই গিনেজ বুক অফ রেকর্ডে স্থান পায় না। বরং ক্রিকেট দুনিয়ার খুব কম রেকর্ডই গিনেজ বুক পর্যন্ত পৌঁছতে পারে। আজকের এই বিশেষ প্রতিবেদনে আমরা তিনজন এমন ভারতীয় ক্রিকেটারের ব্যাপারে জানাব যাদের নাম গিনেজ বুক অফ ওয়ার্ল্ড রেকর্ডে স্থান পেয়েছে।

মহেন্দ্র সিং ধোনি
শচীন বা বিরাট নন, বরং গিনেজ বুক অফ ওয়ার্ল্ড রেকর্ডে নাম নথিভূক্ত রয়েছে এই ভারতীয় ক্রিকেটারের 1
২০১১র বিশ্বকাপ ফাইনালে আপনাদের সেই স্মরণীয় ছয়ের কথা নিশ্চই মনে আছে। যা ধোনির ব্যাট থেকে বেরিয়েছিল আর ২৮ বছর পর ভারতীয় দলকে ঐতিহাসিক সাফল্যে এনে দিয়েছিল। মহেন্দ্র সিং ধোনি যে ব্যাট দিয়ে সেই ছক্কা মেরেছিল সেই ব্যাট বিশ্বের সবচেয়ে দামী ব্যাট হয়ে যায়। ধোনির এই ব্যাট ভারতীয় কোম্পানি আরকে গ্লোবাল এন্ড সিকিউরিটি লিমিটেড ১, ৬১, ২৯৫ ডলারের বিশাল দামে কিনে নেয়। যা গিনেজ বুক অফ ওয়ার্ল্ড রেকর্ড।

রাজা মহারাজ সিং
শচীন বা বিরাট নন, বরং গিনেজ বুক অফ ওয়ার্ল্ড রেকর্ডে নাম নথিভূক্ত রয়েছে এই ভারতীয় ক্রিকেটারের 2
রাজা মহারাজা সিং ক্রিকেটের প্রতি নিজের প্যাশান অনেক দেরীতে অনুভব করেছিলেন, কিন্তু শেষ পর্যন্ত তিনি নিজের স্বপ্নকে পূর্ণ করতে সক্ষম হয়েছিলেন। তিনি কপুরথালার রয়্যাল ফ্যামিলির রাজা হরনাম সিংয়ের সন্তান। তিনি ভারত সরকারের বেশ কিছু পদে ছিলেন। এছাড়াও তাকে ১৯৪১ সালে লখনৌ উনিভার্সিটির চ্যান্সেলর নির্বাচিত করা হয়। এছাড়াও তিনি অনেক কম সময়ের জন্য হলেও কাশ্মীরের মুখ্যমন্ত্রীও ছিলেন। ১৯৪৮ থেকে ১৯৫২ পর্যন্ত মহারাজা সিং মুম্বাইয়ের গর্ভনরও ছিলেন। ৭২ বছর বয়েসে ২৫ নভেম্বর ১৯৫০ এ অনুষ্ঠিত হওয়া কমনওয়েলথ গেমসের জন্য তিনি বম্বে গভর্নর্স দলের অধিনায়কত্ব গ্রহন করেছিলেন। ওই বয়েসে ব্যাট হাতে কোনও দলের অধিনায়ক হওয়া তার জন্য বড় অনুভব হিসেবে সামনে আসে। এরপরেই তিনি ক্রিকেট মাঠে সবচেয়ে বেশি বয়েসে অভিষেক করা ক্রিকেটার হয়ে যান। ম্যাচ চলাকালীন তিনি ৯ নম্বরে ব্যাট করতে নামেন। শেষ পর্যন্ত জিম লেকর তাকে আউট করে দেন। এরপর দ্বিতীয় দিন তিনি ক্রিকেট খেলতে আসেন নি। তার জায়গায় পাটিয়ালার য়াদবিন্দ্রা সিং দলের অধিনায়কত্ব কাঁধে তুলে নেন।

বিরাগ মারে
শচীন বা বিরাট নন, বরং গিনেজ বুক অফ ওয়ার্ল্ড রেকর্ডে নাম নথিভূক্ত রয়েছে এই ভারতীয় ক্রিকেটারের 3
বিরাগ মারে ২৪ বছর বয়েসে এমন কৃতিত্ব দেখান যা এখনও পর্যন্ত আর কোনও ক্রিকেটার করে দেখাতে পারেন নি। পুণের বিরাগ মারে ৫০ ঘন্টা পর্যন্ত ব্যাটিং করে গিনেজ বুক অফ ওয়ার্ল্ডে নিজের নাম নথিভূক্ত করেছিলেন। এর আগে এই রেকর্ড ইংল্যান্ডের ডেভ নিউম্যান এবং রিচার্ডস ওয়েলসের নামে ছিল। বিরাগ মারে নিজের ৫০ ঘন্টা ব্যাটিংয়ে মোট ২৪৪৭ ওভার খেলেন এবং তাতে মোট ১৪, ৬৮২টি বলের মুখোমুখি হন। বিরাট কিছু সময় বোলারদের বোলিংয়ে ব্যাটিং করেন তারপর তিনি বোলিং মেশিনের সামনে নেটে ব্যাটিং করতে থাকেন। বিরাট ৫০ ঘন্টা ব্যাটিং করার সময় প্রত্যেক ২ ঘন্টায় মাত্র ১০-১০ মিনিট করে বিরাম নেন। এর আগে পয়সার অভাবে বিরাটকে অনেক কঠিন পরিশ্রম করতে হয়। খারাপ সময়কে বিরাটকে বড়া পাও বেচেতেও হয়।

suvendu debnath

কবি, সাংবাদিক এবং গদ্যকার। শচীন তেন্ডুলকর, ব্রায়ান লারার অন্ধ ভক্ত। ক্রিকেটের...

Leave a comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *