“দ্রাবিড় ভাগাও, টিম ইন্ডিয়া বাঁচাও…” বাংলাদেশের বিরুদ্ধে সিরিজ হেরে নেটিজেনদের তোপের মুখে কোচ! বাদ গেলেন না ক্রিকেটাররাও !! 1

বাংলাদেশ সফরে গিয়ে একেবারে মুখ থুবড়ে পড়েছে ‘টিম ইন্ডিয়া’। টি-২০ বিশ্বকাপের পর নিউজিল্যান্ডে সফরে দলের সঙ্গে যান নি অধিকাংশ সিনিয়র ক্রিকেটার। ছিলেন না কোচ রাহুল দ্রাবিড়’ও। একদিনের সিরিজে ভারতের প্রতিনিধিত্ব করেন একঝাঁক তরুণ। কিউইদের দেশে একদিনের সিরিজ হারলেও তাঁকে স্রেফ অভিজ্ঞতার অভাব বলে বিশেষ আমল দিচ্ছেলেন না অনেকে। বাংলাদেশের বিরুদ্ধে পূর্ণ শক্তির দল নামিয়েছিলো ‘মেন ইন ব্লু।’  দলে ফিরেছিলেন কোচ দ্রাবিড়, রোহিত শর্মা, বিরাট কোহলি, কে এল রাহুলের মত সিনিয়র ক্রিকেটাররা। তা সত্ত্বেও দলের যা পারফর্ম্যান্স, এবার আশঙ্কা জেঁকে বসেছে সমর্থকদের মনে। ঢাকার মীরপুরে পরপর দুইবার মেহদী হাসান মিরাজকে সামলাতে না পেরে হারের অন্ধকারে তলিয়ে গেলো তারকাখচিত ভারতীয় দল। টি-২০ বিশ্বকাপ, নিউজিল্যান্ড সিরিজের পর এবার বাংলাদেশের বিপক্ষে একদিনের সিরিজ, টানা হেরেই চলছে ভারত। আর এই ধারাবাহিক খারাপ পারফর্ম্যান্স দেখে হতাশ সমর্থকেরা এবার চাইছেন বদল। দলের স্ট্র্যাটেজি, মানসিকতায় ভরসা হারিয়েছেন তাঁরা। সমাজমাধ্যমে রীতিমত বিক্ষোভের মুখে কোচ রাহুল দ্রাবিড়। ক্রিকেটাররাও রয়েছেন তাঁদের নিশানায়।

নিজেদের ভুলে ম্যাচ হাতছাড়া ভারতের, হারলো সিরিজও-

IND vs BAN | image: twitter
Mehidy Hasan Miraz played brilliantly as Bangladesh clinched the series against India.

প্রথম ম্যাচ হারের পর মীরপুরে ঘুরে দাঁড়াতে হত ভারতকে। কিন্তু তা করতে পারলো না ‘টিম ইন্ডিয়া।’ টসে জিতে আগে ব্যাটিং-এর সিদ্ধান্ত নেন বাংলাদেশ অধিনায়ক লিটন দাস। ভারতের দিনের শুরুটা বেশ ভালোই হয়েছিলো। দুই ওপেনার আনামুল হক বিজয় এবং লিটন দাসকে অল্প রানেই ফিরিয়ে দেন মহম্মদ সিরাজ। কুলদীপ সেনের জায়গায় দলে আসা উমরান মালিকের গতিতে পরাস্ত হন নাজমুল হোসেন শান্ত। এক সময় ভারতীয় বোলাওরদের দাপটে ৬৯/৬ হয়ে গিয়েছিলো টাইগারবাহিনী। কিন্তু মুশকিল আসান হয়ে ওঠেন মাহমুদউল্লাহ এবং মেহদী হাসান মিরাজ।  মাহমুদউল্লাহ’র ৭৭ এবং মিরাজের অপরাজিত ১০০’র সৌজন্যে ২৭১ রান তোলে বাংলাদেশ। জবাবে ব্যাট করতে নেমে বিরাট কোহলি, শিখর ধাওয়ান, কে এল রাহুলের মত ভারতীয় ব্যাটিং-এর রথী-মহারথীরা কেউ বেশীদূর টেকেন নি। ধুঁকতে থাকা ভারতীয় ইনিংসকে এগিয়ে নিয়ে যান শ্রেয়স আইয়ার এবং অক্ষর প্যাটেল। শ্রেয়স ৮২ এবং অক্ষর ৫৬ রান করেন। ফিল্ডিং-এর সময় চোট পেয়ে শুরুতে ব্যাট করেন নি অধিনায়ক রোহিত শর্মা। দলের স্বার্থে শেষের দিকে নামতে হয় তাঁকে। আঙুলে ব্যান্ডেজ বেঁধেও দুর্দান্ত খেললেন তিনি। ২৮ বলে ৫১ করে অপরাজিত থাকেন। তবুও জয় থেকে ৫ রান দূরেই থেমে যায় ভারত। গুরুত্বপূর্ণ সময়ে উইকেট তুলতে না পারা আরও একবার ডোবালো ভারতকে। ম্যাচের পর রোহিত শর্মার দায়বদ্ধতা এবং সাহসের প্রশংসা করলেন ভারতের সমর্থকেরা। কিন্তু দলের পারফর্ম্যান্সে একদমই খুশি নন তাঁরা।

মান রাখলেন রোহিত-শ্রেয়স, বিরাট-রাহুল-ধাওয়ানে অ্যালার্জি নেটিজেনদের-

rohit sharma | image: twitter
Fans laud Rohit and Shreyas, but they are unhappy with Team India’s performance.

ডুবতে থাকা ভারতীয় ব্যাটিং-কে খড়কুটো দিয়ে তুলে এনেছিলেন শ্রেয়স আইয়ার। চলতি বছরে দুর্দান্ত ফর্মে রয়েছেন তিনি। ২০২২-এ তিনিই ভারতের হয়ে সর্বোচ্চ রান করেছেন একদিনের ক্রিকেটে। তাঁর শেষ ১১ টি একদিনের ইনিংসে রয়েছে ৬ টি অর্ধশতক এবং ১ টি শতরান। গতকাল মীরপুরে যখন ভারত লজ্জাজনক হারের দিকে এগোচ্ছে তখন শ্রেয়সে ১০২ বলে ৮২ রানে ইনিংসটি ‘টিম ইন্ডিয়া’কে লড়াইয়ের ভিত্তি দেয়। আইয়ারের সাথে ভালো খেলেন অক্ষর প্যাটেলও। ৫৬ বলে ৫৬ করেন। হৃদয় জিতলেন রোহিত শর্মা। চোট পাওয়া আঙুলে ব্যান্ডেজ বেঁধেও ঝড় তুললেন তিনি। ২৮ বলে ৫১ করে অপরাজিত থাকেন তিনি। ম্যাচ জেতাতে না পারলেও রোহিতকে ‘ফাইটার’ বলছেন নেটিজেনরা। তাঁদের তোপের মুখে বরং কোহলি-রাহুল এবং শিখর ধাওয়ান। ‘মাস্ট উইন’ ম্যাচে তিনজনেই দায়িত্বজ্ঞানহীন শট খেলে উইকেট ছুঁড়ে দিয়ে এসেছেন। কোচ দ্রাবিড়ের সাথে সাথে বিসর্জন দেওয়া হোক তাঁদেরও এমনটাই দাবী সোশ্যাল মিডিয়ায়। দেখে নিন ট্যুইটচিত্র-

Leave a comment

Your email address will not be published.