মুম্বই ইন্ডিয়ান্সের কাছে ফাইনালে হার বদলে দিয়েছিল শার্দুল ঠাকুরকে, এল এই বড় তথ্য 1

দক্ষিণ আফ্রিকার (South Africa) বিপক্ষে জোহানেসবার্গ (Johannesburg) টেস্টে প্রথম বোলিং করে বিস্ময় দেখালেন শার্দুল ঠাকুর (Shardul Thakur)। সাত উইকেট নেন তিনি। এরপর ভারতের দ্বিতীয় ইনিংসে তিনি ২৪ বলে ২৮ রান করেন এবং দলের জন্য প্রয়োজনীয় রান করেন। এর ফলে দক্ষিণ আফ্রিকার (South Africa) সামনে ২৪০ রানের টার্গেট দেয় ভারত। ব্যাটিংয়ের সময় শার্দুল ঠাকুর খেলেছেন অনেক খাস্তা শট, যা দেখে বিস্ময়ে মুখ খুলে গেল বড় বড় ক্রিকেটারদের। এ পর্যন্ত তিনটি বিদেশ সফরেই ব্যাটিং দিয়ে সবার নজর কেড়েছেন শার্দুল ঠাকুর। কিন্তু মুম্বাই থেকে আসা এই খেলোয়াড়ের শক্তি ব্যাটিং নয়। তবে এই ক্ষেত্রে সফল হওয়ার জন্য তিনি অনেক কাজ করেছেন। এর একটা বড় কারণ হল IPL 2019 এর ফাইনাল।

ব্যাটিংয়ের সময় শার্দুল ঠাকুর খেলেছেন অনেক খাস্তা শট

From Mumbai to Brisbane: Shardul Thakur's cricket is driven by his  competitiveness

দক্ষিণ আফ্রিকার এরিক সিমন্স (Eric Simmons), যিনি চেন্নাই সুপার কিংসের (Chennai Super Kings) বোলিং কোচ ছিলেন, তা বিস্তারিতভাবে ব্যাখ্যা করেছেন। তিনি, ভারত এবং দক্ষিণ আফ্রিকার মধ্যে জোহানেসবার্গ টেস্টের সময় মন্তব্য করার সময়, আইপিএল ২০১৯ ফাইনালে মুম্বাই ইন্ডিয়ান্সের (Mumbai Indians) কাছে চেন্নাই সুপার কিংসের পরাজয় কীভাবে শার্দুল ঠাকুরকে বদলে দিয়েছে। এই ম্যাচে সিএসকে এক রানে হারের মুখে পড়ে। এরপর শেষ বলে রান নিতে না পেরে এলবিডব্লিউ হয়ে যান শার্দুল। এরিক সিমন্স বলেছেন, “শার্দুলের ব্যাটিংয়ের গল্প বলতে হবে। এতে তার চরিত্র প্রকাশ পায়। আমি যে ফ্র্যাঞ্চাইজিতে ছিলাম সে একই ফ্র্যাঞ্চাইজিতে ছিল… CSK-এ। দুই বছর আগে মুম্বাই ইন্ডিয়ান্সের বিপক্ষে আইপিএল ফাইনালে, শেষ বলে টাই করার জন্য আমাদের একটি এবং জয়ের জন্য দুটি রান দরকার ছিল। তিনি ক্রিজে গেলেন। তার সামনে লাসিথ মালিঙ্গা ছিলেন এবং শেষ বলে আউট হন তিনি। ওই ম্যাচে হারের পর ভেঙে পড়েন তিনি।”

মুম্বাই থেকে আসা এই খেলোয়াড়ের শক্তি ব্যাটিং নয়

Oval Test: These guys are teasing me with his name - Shardul Thakur elated  after breaking Ian Botham's record - Sports News

এরিক সিমন্স জানান, ম্যাচের ফলাফলের পর শার্দুল ঠাকুর খুবই দুঃখ পেয়েছিলেন। তিনি গিয়ে একপাশে বসলেন। সিমন্সের মতে, “কতক্ষণ জানি না কিন্তু এক কোণে বসে রইল। এটাই তার চরিত্র। কেউ তাকে কিছু বলেনি, কেউ তাকে সান্ত্বনা দেয়নি। কেউ বলেনি এটা তোমার দোষ নয়। ওই ম্যাচে দারুণ বোলিং করেছিলেন তিনি। আমি বলতে চাচ্ছি যে ম্যাচটি তার উপর কী প্রভাব ফেলেছিল। তিনি সিদ্ধান্ত নিলেন ভবিষ্যতে এমন ঘটনা আর ঘটবে না। সে কারণেই এমন ব্যাটসম্যান হয়ে উঠেছেন তিনি। ব্যাটিংয়ে অনেক কাজ করেছেন তিনি। আমরা যে ঝুঁকিপূর্ণ শটের কথা বলছি তার মধ্যে অনেক বুদ্ধি আছে। এতে তার চরিত্র সম্পর্কে বলা হয়েছে, কীভাবে তিনি সেই অবস্থা কাটিয়ে উঠলেন।”

Leave a comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *