অপদস্থ করতে এই বড় ষড়যন্ত্র করেছিলেন রবি শাস্ত্রী! নিজের এই প্রথম ভয়কে উগড়ে দিলেন বীরেন্দ্র সেহওয়াগ 1

প্রাক্তন ভারতীয় ওপেনার বীরেন্দ্র সেহওয়াগকে বিশ্বের সেরা ক্রিকেটারদের মধ্যে গণনা করা হয়, কিন্তু তিনি প্রথমে ইংরেজিকে ভয় পান। টিভি শো ‘কাউন বানেগা কোটিপতি’ এ এই সম্পর্কিত কাহিনী জানিয়েছেন সেহওয়াগ। প্রাক্তন অধিনায়ক এবং বর্তমান বিসিসিআই সভাপতি সৌরভ গাঙ্গুলীও শুক্রবার এই পর্বে তাঁর সঙ্গে ছিলেন। এই সময়, নাওমি ওসাকা এবং মানসিক স্বাস্থ্য সম্পর্কে একটি প্রশ্ন করা হয়েছিল। এদিকে গাঙ্গুলি বলেছিলেন, খেলোয়াড়ের ওপর অনেক মানসিক চাপ আছে। তিনি আবার ইংল্যান্ডের কিংবদন্তি অলরাউন্ডার বেন স্টোকসের উদাহরণ দিয়েছেন, যিনি এই কারণে ক্রিকেট থেকে বিরতি নিয়েছেন। এই বিষয়ে সেহওয়াগ বললেন – আমিও মানসিক চাপের মুখোমুখি হয়েছি।

Sourav Ganguly, Virendra Sehwag answered this question to win Rs 25 lakh on  KBC 13. Can you? - Television News

সেহওয়াগ বলেছিলেন যে তিনি যখন প্রথমবারের মতো ম্যান অব দ্যা ম্যাচ পুরস্কার পান, তখন বর্তমান কোচ রবি শাস্ত্রী ছিলেন সঞ্চালক। তিনি বললেন, “আমি ইংরেজি জানতাম না। ইংরেজি বলাও একটি ধাতব চ্যালেঞ্জ ছিল। ধাতব স্বাস্থ্যের সমস্যা ছিল। আমি হিন্দিতে প্রশ্ন জিজ্ঞাসা করার জন্য একটি বড় পন্থা অবলম্বন করেছিলাম, কিন্তু তিনি (শাস্ত্রী) ইংরেজিতে প্রথম প্রশ্ন করেছিলেন। আমরা খেলার দিকে মনোযোগ দিতাম। ইংরেজিতে নয়, কিন্তু পরবর্তীতে ইংরেজি শিখেছে কারণ আন্তর্জাতিক ম্যাচ খেলতে হবে। এটা গর্বের বিষয় যে আমি এখন আমার নিজের ভাষায় কথা বলি এবং কাউকে ভয় পাই না।”

Cricketer Virender Sehwag launches website on AI-based cricket coaching

এই পর্বে গাঙ্গুলি এবং সেহওয়াগের জুগলবন্দি দেখা গিয়েছিল। গাঙ্গুলি যখন সুরে ‘রঙ্গীলা রে’ গানটি চিনতে পারলেন, তখন সেহওয়াগ তাকে টেনে তুললেন। সেহওয়াগ বলেছিলেন যে দাদা (গাঙ্গুলি) সর্বনিম্ন ড্রেসিংরুমে গান শুনতেন এবং তিনিই এই সুর থেকে গানটি চিনতে পেরেছিলেন। বীরু বলল, “আচ্ছা এটা একটা নায়িকার গান ছিল, তাই আমি এটা চিনতে পেরেছি। হিরো থাকলে চিনতে পারতেন না।” পরে গাঙ্গুলীকে হাসতে দেখা যায়।

Leave a comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *