PAK vs ENG: পাকিস্তান ব্যাটিং'কে মাথা তুলতে না দিয়ে চালকের আসনে ইংল্যান্ড, দ্বিতীয় ইনিংসে কঠিন পরীক্ষা শাহীন-নাসিম'দের !! 1

PAK vs ENG: ২০২২ টি-২০ বিশ্বকাপের যবনিকা পতন হতে চলেছে আজ। ইংল্যান্ড না পাকিস্তান? কার হাতে উঠতে চলেছে মহামূল্যবান শিরোপা? আগ্রহ নিয়ে তাকিয়ে গোটা ক্রিকেটবিশ্ব। ২০০৯ সালের চ্যাম্পিয়ন বনাম ২০১০ সালের খেতাবজয়ী’র লড়াই দেখতে মুখিয়ে মেলবোর্ন। আজ এম সি জি’তে যে দল’ই জিতুক, উইন্ডিজের পর দ্বিতীয় দল হিসেবে দুইবার টি-২০ বিশ্বকাপ জয়ের রেকর্ড স্থাপন করবে। গ্রুপ পর্বে প্রথম দুই ম্যাচে হেরে বাইরে বিশ্বকাপের বাইরে চলে গিয়েছিলো পাকিস্তান। সেখান থেকে অবিশ্বাস্য কামব্যাক করেছে তারা। নেদারল্যান্ডস দক্ষিণ আফ্রিকা’কে হারানোয় যে লাইফলাইন পেয়েছেন শাহীন শাহ আফ্রিদি’রা, তা কাজে লাগিয়ে শিরোপা জিততে তাঁরা মরিয়া। গোটা পাকিস্তান স্মৃতি’র সরণী বেয়ে ফিরে যাচ্ছে ১৯৯২ তে।

খুব ভালো শুরুয়াত হয়নি পাকিস্তানের

PAK vs ENG: পাকিস্তান ব্যাটিং'কে মাথা তুলতে না দিয়ে চালকের আসনে ইংল্যান্ড, দ্বিতীয় ইনিংসে কঠিন পরীক্ষা শাহীন-নাসিম'দের !! 2
MELBOURNE, AUSTRALIA – NOVEMBER 13: Chris Jordan of England bowls during the ICC Men’s T20 World Cup final match between Pakistan and England at Melbourne Cricket Ground on November 13, 2022 in Melbourne, Australia. (Photo by Isuru Sameera/Gallo Images)

এই মেলবোর্নেই ইংল্যান্ড’কে হারিয়ে একদিনের বিশ্বকাপ ঘরে তুলেছিলেন ইমরান খান, ওয়াসিম আক্রম’রা। বাবর আজম, মহম্মদ রিজওয়ান’রা কি পারবেন সেই সুদিন ফেরাতে? গ্রুপ পর্বের ম্যাচে আয়ারল্যান্ডের কাছে হেরে চাপে ছিলো ইংল্যান্ড’ও। সেখান থেকে দুরন্ত ক্রিকেট খেলে এম সি জি এসেছে তারাও। সেমিফাইনালে ভারত’কে উড়িয়ে দিয়েছে ১০ উইকেটে। ২০১৯ সালে একদিনের বিশ্বকাপ জিতেছিলো ইংল্যান্ড, ২০২২ এর মেলবোর্ন কি দেখতে চলেছে আরও একটা ইংরেজ জয়? শুরু হয়ে গিয়েছে শেষ পরীক্ষা। টসে জিতে পাকিস্তান’কে ব্যাট করতে পাঠিয়ে যে চাল চেলেছিলেন জস বাটলার তা দারুণ কাজে লাগিয়েছেন তাঁর বোলার’রা। পাক ইনিংস থেমেছে ১৩৭ রানে। যা কখনোই ফাইনালে ম্যাচে যথেষ্ঠ নয়।

ইংরেজ বোলিং বিক্রমে কেঁপে গেলো পাকিস্তান-

Sam Curran  | image: gettyimages
Sam Curran took 3 wickets against Pakistan in T20 World Cup final.

‘বাবর’ মানে সিংহ। তাঁর নেতৃত্বাধীন পাক দলের থেকেও ফাইনালে সিংহ গর্জনের অপেক্ষায় ছিলেন পাকিস্তানের ক্রিকেটদরদী জনগণ। কিন্তু বাস্তবে ইংল্যান্ড বোলিং-এর সামনে কেমন যেন মিইয়ে গেলেন মহম্মদ রিজওয়ান, শান মাসুদ’রা। টসে হেরে ব্যাট করতে নামতে হয়েছিলো পাকিস্তান’কে। গত ম্যাচে ১০৫ রানের ওপেনিং জুটি করেছিলেন বাবর আর রিজওয়ান। তবে আজ ৫ ওভারের বেশী টেকেন নি পাক উইকেট রক্ষক। বাঁ-হাতি পেসারের বিরুদ্ধে তাঁর দুর্বলতা মাথায় রেখে শুরুতেই স্যাম কারান’কে এনেছিলেন বাটলার। আউট হয়ে ফেরেন রিজওয়ান। ডাকাবুকো মহম্মদ হ্যারিস’কে নিজের প্রথম বলেই ফেরান আদিল রশিদ। পেস সহায়ক পিচেও দারুণ বল করলেন এই লেগস্পিনার। হ্যারিসের পর বাবর আজম’কেও ফেরালেন তিনি। নিজের স্যুইং-এ পাক ব্যাটিং’কে নাকানিচোবানি খাওয়ালেন স্যাম কারান। নিজের ৪ ওভারে মাত্র ১২ রান দিয়ে ৩ উইকেট নিলেন তিনি। ক্রিস জর্ডান নিলেন ২ টি, বেন স্টকসের ঝুলিতেও গিয়েছে ১ টি । নিয়ন্ত্রিত বোলিং-এর সামনে ইফতিকার আহমেদ, শান মাসুদ, শাদাব খান কেউই বিশেষ দাঁড়াতে পারেন নি। মূলত বাবর আজমের ২৮ বলে ৩২ এবং শান মাসুদের ২৮ বলে ৩৮ রানের সৌজন্যে পাকিস্তান পৌঁছেছে ১৩৭ রানে।

বোলিং-এর দিকে তাকিয়ে পাকিস্তান-

Shaheen Shah Afridi | image: Gettyimages
Shaheen Shah Afridi and the entire bowling department of Pakistan need to shine against England in the T20 World Cup final.

১৯৯২ সালে এই মেলবোর্নেই পাকিস্তান যখন ইংল্যান্ড’কে হারিয়ে বিশ্বকাপ জেতে অধিনায়ক ইমরান খানের হাতে ছিলেন একজন ওয়াসিম আক্রম। দুই বলে দুই উইকেট তুলে একাই বদলে দিয়েছিলেন ম্যাচের রঙ। আজও সেরকম কিছুর অপেক্ষা করতে হবে পাকিস্তান’কে। তাঁদের অস্ত্র ভাণ্ডারে যথেষ্ঠ বোলিং অস্ত্র কি মজুত রয়েছে? উত্তর হলো হ্যাঁ। শাহীন শাহ আফ্রিদি, নাসিম শাহ, মহম্মদ ওয়াসিম জুনিয়র হোক বা হ্যারিস রউফ, পাক বোলিং ব্রিগেড গোটা বিশ্বের অন্যতম সেরা। আজ টি-২০ বিশ্বকাপ ফাইনালে স্কোরবোর্ডে যথেষ্ঠ রান তুলতে পারে নি পাক দল, তাই ম্যাচ জিততে বোলার’দের জ্বলে ওঠা একান্ত প্রয়োজন। গত ম্যাচে ভারতের বিরুদ্ধে ১৭০ রানের ওপেনিং জুটি গড়েছিলো ইংল্যান্ড। দুই ওপেনার হেলস এবং বাটলার’কে দ্রুত ফেরালে ম্যাচ হাড্ডাহাড্ডি হতে চলেছে তা একপ্রকার নিশ্চিত।

 

Leave a comment

Your email address will not be published.