ওই সিনিয়র ক্রিকেটারা আমাকে গালিগালাজ করতো এমনটাই দাবি কেএল রাহুলের! 1

ওই সিনিয়র ক্রিকেটারা আমাকে গালিগালাজ করতো এমনটাই দাবি কেএল রাহুলের! 2

বিসিসিআই.টিভির সর্বশেষ সাক্ষাতকারে সম্পূর্ণ বিপরীত চরিত্রের দুজনকে দেখা যায়। একজন শান্ত ও ধীরস্থির প্রকৃতির চেতশ্বর পূজারা অস্থির প্রকৃতির লোকেশ রাহুলের সাক্ষাতকার নিচ্ছেন। আর প্রত্যাশিত ভাবে ই এটি ছিল হাস্যকর অনুষ্ঠান। পাল্লেকেল্লেতে স্বাগতিক শ্রীলঙ্কাকে ইনিংস ও ১৭৭ রানে বিশাল ব্যবধানে হারিয়ে হোয়াইট ওয়াশ করে আরেকটি সিরিজ জিতে নেয় কোহলী বাহিনী। দ্বীপরাষ্ট্রে এই স্মরণীয় সিরিজ জয়ে প্রধান কারিগর ছিলেন পূজারা ও রাহুল। চেতশ্বর পূজারা ২০১৬-১৭ মৌসুমে দেশের মাটিতে ভারতের হয়ে সর্বোচ্চ রান করেন,এই সিরিজের প্রথম দুই টেস্টেও করেন দুই শতক। আর লোকেশ রাহুল জ্বরের কারনে গলের প্রথম টেস্ট খেলতে না পারলেও পরের দুই টেস্টে ই করেন দুটি অর্ধ শতক। সাক্ষাৎকারের পর্ব যত এগিয়ে যেতে থাকে সকলে আরো অবাক হতে থাকে, চেতশ্বর অসাধারন হাস্যকর প্রশ্ন করে মাতিয়ে তোলেন আর লোকেশও চমৎকার উত্তর দিতে থাকেন। চেতশ্বর যখন রাহুলকে তার নতুন “ফিফা পার্টনার” সম্পর্কে জিজ্ঞেস করেন তখন রাহুল অসাধারন ভাবে জানায় যে চেতশ্বর তার ছাব্বিশ তম জন্মদিনের আগে তার থেকে কি করে দক্ষতা বাড়াতে হয় এবং দ্বিশতক করা যায়। রাহুল ইংল্যান্ডের সাথে ১৯৯ রানে থেমে যান, এবং শীঘ্রই দ্বিশত পাওয়ার অপেক্ষায় আছেন।

ওই সিনিয়র ক্রিকেটারা আমাকে গালিগালাজ করতো এমনটাই দাবি কেএল রাহুলের! 3

এরপরে পূজারা একের পর এক প্রশ্নের বোমা ফাটান আর লোকেশ বলেন দলের সিনিয়ররা জুনিয়রদের অপব্যবহার করেন!

পূজারা : বর্তমানে আমি যখন ই জাতীয় ক্রিকেট একাডেমীতে যাই তখন ই একটা পদচিহ্ন দেখি ; আর সেটা হল লোকেশ। এখন কি আমি এর রহস্য জানতে পারি

ওই সিনিয়র ক্রিকেটারা আমাকে গালিগালাজ করতো এমনটাই দাবি কেএল রাহুলের! 4

লোকেশ : (হাসতে হাসতে) এই প্রশ্ন করা উচিত না! আমি পূনর্বাসনের জন্য জাতীয় ক্রিকেট একাডেমীতে যাওয়া পছন্দ করি না ।আমি সেখানে যেতে চাই প্রশিক্ষণ আর অনুশীলন করতে, পূনর্বাসনের জন্য না। কিন্তু বর্তমানে আমার সেখানে যাওয়ার কারন যেহেতু পূনর্বাসন তাই সময়টা খুব খারাপ যাচ্ছে। আর এজন্য তুমিও দায়ী! যেহেতু তুমি শর্ট লেগে কেবল আমাকে দিয়েই ফিল্ডিং করাও নিজে কর না, জুনিয়র হিসেবে আমাকে গালিগালাজ, অপব্যবহার কর!

পূজারা : না, না, না। আমার তাকে থামাতে হচ্ছে। সে শর্ট লেগ ফিল্ডার হিসেবে অসাধারন উন্নতি করছে এবং সে দলের অন্যতম সেরা ফিল্ডার।

ওই সিনিয়র ক্রিকেটারা আমাকে গালিগালাজ করতো এমনটাই দাবি কেএল রাহুলের! 5

লোকেশ : আমি এখনো শিখছি এবং ভাল করার চেষ্টা করছি কিন্তু পূজারা হচ্ছে শর্ট লেগ ফিল্ডিং এ কিংবদন্তী।যখন ই সে শর্ট লেগে দাড়ায় তখন ই উইকেট শিকার করে নেয়। বল তার হাতকে খুজে নেয়। তাই তাকে পুরো সময় ই শর্ট লেগে ফিল্ডিং করার কথা বলছি এবং দায়িত্ব নিয়ে আমাদের জন্য একের পর এক উইকেট উপহার দিক।

পূজারা : কেবল একজন এবং সে হল মুরালি বিজয় যে ওর সাথে একমত হবে যে বলবে আমি শর্ট লেগে সেরা কিন্তু আমি মনেকরি লোকেশ যথেষ্ট উন্নতি করেছে।

লোকেশ : এই জিনিষটা একেবারে স্পষ্ট এখনো ড্রেসিংরুমে সিনিয়র জুনিয়র বিষয়টা এখনো ঘটছে!

Nazmus Sajid

Sports Fanatic!

Leave a comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *