ম্যাচ রিপোর্ট: ওয়ার্নারের এই ভুলে হায়দ্রাবাদ ১০ উইকেটে হারল কেকেআরের কাছে 1

আইপিএল ২০২১ এর তৃতীয় ম্যাচ কলকাতা নাইট রাইডার্স আর সানরাইজার্স হায়দ্রাবাদের মধ্যে খেলা হয়েছে। ম্যাচে কেকেআরের দল দুর্দান্ত প্রদর্শন করে এই ম্যাচে জয় হাসিল করেছে। এই ম্যাচের টস হায়দ্রাবাদ জেতে আর প্রথমে বোলিং করার সিদ্ধান্ত নেয়। প্রথমে ব্যাট করতে নামা কলকাতা নাইট রাইডার্সের দল ২০ ওভারে ১৮৭ রান করে, জবাবে হায়দ্রাবাদের দল কলকাতার থেকে মাত্র ১০ রান দূরেই থেমে যায়।

কলকাতা করল ১৮৭ রান

ম্যাচ রিপোর্ট: ওয়ার্নারের এই ভুলে হায়দ্রাবাদ ১০ উইকেটে হারল কেকেআরের কাছে 2

এই ম্যাচে টসে হেরে প্রথমে ব্যাট করতে নামা কেকেআরের টপ অর্ডার ব্যাটসম্যানরা দুর্দান্ত প্রদর্শন করেন। কলকাতার ইনিংসে ওপেনার শুভমান গিল দ্রুত আউট হয়ে ফিরে যান। অন্যদিকে নীতীশ রাণা আর রাহুল ত্রিপাঠি দুর্দান্ত হাফসেঞ্চুরি করেন। দলের উইকেটকিপার দীনেশ কার্তিকের তরফেও দুর্দান্ত ব্যাটিং দেখতে পাওয়া গিয়েছে।

ম্যাচ রিপোর্ট: ওয়ার্নারের এই ভুলে হায়দ্রাবাদ ১০ উইকেটে হারল কেকেআরের কাছে 3

হায়দ্রাবাদের তরফে বোলার হিসেবে মহম্মদ নবী আর রশিদ খান ২টি করে উইকেট পেয়েছেন। টি নটরাজন আর ভুবনেশ্বর কুমার একটি করে উইকেট নেন। সন্দীপ শর্মা এই ম্যাচে বিশেষ কিছুই করতে পারেননি।

হায়দ্রাবাদের হল হার

ম্যাচ রিপোর্ট: ওয়ার্নারের এই ভুলে হায়দ্রাবাদ ১০ উইকেটে হারল কেকেআরের কাছে 4

এই ম্যাচে লক্ষ্য তাড়া করতে নামা হায়দ্রাবাদের ওপেনার ডেভিড ওয়ার্নার আর ঋদ্ধিমান সাহা বিশেষ কিছুই করতে পারেননি। অন্যদিকে জনি ব্যারেস্টো ম্যাচে ভালো প্রদর্শন করেন। কিন্তু দলকে তিনি ম্যাচ জেতাতে পারেননি। এই ম্যাচে হায়দ্রাবাদের হয়ে মনীষ পান্ডেও যথেষ্ট ভালো প্রদর্শন করেন আর হাফসেঞ্চুরি করেন। ম্যাচের শেষ ওভারে ব্যাটিং করতে আসা আব্দুল সামিদও দুর্দান্ত ব্যাটিং করেন।

ম্যাচ রিপোর্ট: ওয়ার্নারের এই ভুলে হায়দ্রাবাদ ১০ উইকেটে হারল কেকেআরের কাছে 5

কলকাতার বোলারদের মধ্যে প্রসিদ্ধ কৃষ্ণা ২টি উইকেট নেন। অন্যদিকে সাকিব আল হাসান, প্যাট কমিন্স আর অ্যান্দ্রে রাসেল একটি করে উইকেট নেন। বরুণ চক্রবর্তী আর হরভজন সিং এই ম্যাচে কোনো উইকেট পাননি।

হায়দ্রাবাদের এই ভুলের কারণে হারতে হল ম্যাচ

ম্যাচ রিপোর্ট: ওয়ার্নারের এই ভুলে হায়দ্রাবাদ ১০ উইকেটে হারল কেকেআরের কাছে 6

ম্যাচ চলাকালীন হায়দ্রাবাদের দলের সবচেয়ে বড়ো ভুল এটাই যে জনি ব্যারেস্টো আউট হওয়ার পর দলের বিজয় শঙ্কর বা আব্দুল সামিদকে ব্যাটিংয়ের জন্য পাঠানো উচিত ছিল, কিন্তু মহম্মদ নবী ব্যাটিং করতে আসেন। নবীর আসার পর হায়দ্রাবাদের রানরেট কম হয়ে যায়। এই অবস্থায় যদি শঙ্কর অথবা সামিদ ব্যাটিং করতে আসতে তো তারা বিস্ফোরক ব্যাটিং করতে পারতেন।

suvendu debnath

কবি, সাংবাদিক এবং গদ্যকার। শচীন তেন্ডুলকর, ব্রায়ান লারার অন্ধ ভক্ত। ক্রিকেটের...

Leave a comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *