TOP 10 : আইপিএলের ইতিহাসে "সেরা দশ " বোলিং স্পেল 1

একটা দুরন্ত ইনিংস যেমন যেকোনও ম‍্যাচে পার্থক্য গড়ে দিতে পারে,তেমনই একটা বৈচিত্র্যময় বোলিং স্পেল একজন নির্দিষ্ট বোলারকে তার দলকে জেতাতে সাহায্য করে‌।আজকের প্রতিবেদন আইপিএলের ইতিহাসের সেরা দশ বোলিং স্পেল নিয়ে।

১০. অমিত মিশ্র (৫-১৭ বনাম ডেকান চার্জাস,২০০৮ )

TOP 10 : আইপিএলের ইতিহাসে "সেরা দশ " বোলিং স্পেল 2

দীর্ঘ কয়েক বছর ধরে বিস্তৃত অমিত মিশ্রের আইপিএল কেরিয়ার।এই জনপ্রিয় টুর্নামেন্টের শুরু থেকেই খেলছেন এই ভারতীয় স্পিনার।তার বোলিংয়ের সামনে সমস্যার পড়েছে বিশ্বের তাবড় তাবড় ব‍্যাটসম‍্যান।আইপিএল কেরিয়ারের সেরা স্পেলটা টুর্নামেন্টের প্রথম বছরেই করেছিলেন অমিত মিশ্র।গ্রুপ লিগে ম‍্যাচে তার দল দিল্লি ডেয়ারডেভিলস ,ডেকান চার্জাসের বিরুদ্ধে ১৯৪ রান করে ৪ উইকেটের বিনিময়ে।পরবর্তী সময়ে ডেকান চার্জাসের পথের কাঁটা হয়ে ওঠেন মিশ্র।আফ্রিদি এবং গিবসের মতো ব‍্যাটসম‍্যানদের আউট করে দিয়ে দিল্লির জয়ের পথ প্রশস্ত করে দিয়েছিলেন অমিত মিশ্র।

৯. রবীন্দ্র জাদেজা (৫-১৬ বনাম ডেকান চার্জাস,২০১২ )

TOP 10 : আইপিএলের ইতিহাসে "সেরা দশ " বোলিং স্পেল 3

সাদা বলের ক্রিকেটে ভারতীয় ক্রিকেট দলের তারকা অলরাউন্ডার রবীন্দ্র জাদেজার দাপট নিয়ে আর নতুন করে কিছু বলার নেই।তবে বোলিংয়ের তুলনায় তার ব‍্যাটিং ক্ষমতা নিয়েই আলোচনা করা হয় বেশি।অথচ চেন্নাই সুপার কিংসের হয়ে আইপিএলে একাধিক ম‍্যাচে ফারাক গড়েছেন তিনি বোলিং করতে গিয়ে।এমনটাই দেখা গেছে ২০১২ সালে ডেকান চার্জাসের বিপক্ষে।প্রথমে ব‍্যাটিং করতে নেমে ৪৮ রান করেন জাদেজা, পরবর্তী সময়ে বল হাতে কামাল দেখান ।তার দুরন্ত বোলিংয়ের সামনে ১১৯ রানে গুটিয়ে যায় ডেকান চার্জাস।

৮. জেমস ফকনার (৫ -১৬ বনাম সানরাইজার্স হায়দ্রাবাদ, ২০১৩ )

 

একসময় বিশ্বের সেরা টি টোয়েন্টি অলরাউন্ডারের মধ্যে গন‍্য করা হতো এই অজি অলরাউন্ডার’কে।যেকোনো টি টোয়েন্টি ফ্রাঞ্চাইজি দলের অটোমেটিক চয়েজ ছিলেন তিনি।তার বোলিংয়ের দাপটে ২০১৩ সালে হায়দ্রাবাদ ‘কে ১৩৬ রানে আটকে দেয় রাজস্থান।যদিও পরবর্তী সময়ে ১১৩ রানে গুটিয়ে যায় ফকনারের দল।

৭. অঙ্কিত রাজপুত (৫-১৪ বনাম সানরাইজার্স হায়দ্রাবাদ,২০১৮ )

সেইবছর সানরাইজার্স হায়দ্রাবাদের ব‍্যাটিং লাইন আপ ছিলো খুব শক্তিশালী।কিন্তু গ্রুপ স্টেজে এই ম‍্যাচে ১৩২ রানে তাদের আটকে দেয় কিংস ইলেভেন পান্জাব।সৈজন‍্যে অন্কিত রাজপুতের দুরন্ত বোলিং।উইলিয়ামসন,ধাওয়ান, মনিশ পান্ডে,নবি ছিলেন তার শিকারের তালিকায়।যদিও রাজপুতের দুরন্ত বোলিং সেইদিন জয় এনে দিতে পারিনি পান্জাব’কে।কারণ চেজ ক‍রতে নেমে সেইদিন ১১৯ রানে গুটিয়ে যায় হায়দ্রাবাদ।

৬.লাসিথ মালিঙ্গা ( ৫-১৩ বনাম দিল্লি ডেয়ারডেভিলস,২০১১ )

TOP 10 : আইপিএলের ইতিহাসে "সেরা দশ " বোলিং স্পেল 4

২০০৯ সাল থেকে মুম্বাই ইন্ডিয়ান্স দলের নিয়মিত এবং নির্ভরযোগ্য সদস্য শ্রীলঙ্কার পেসার লাসিথ মালিঙ্গা।তার অব‍্যার্থ ইয়র্কারে উইকেট উড়ে যায় বিপক্ষ দলের ব‍্যাটসম‍্যানদের।কেরিয়ারের একেবারে সায়াহ্নে এসে উপস্থিত হওয়া এই পেসারের বোলিংয়ের দাপটের সামনে সেইদিন খড়কুটোর মতো উড়ে যায় দিল্লি ডেয়ারডেভিলস।মাত্র ৯৫ রানে অলআউট হয়ে যায় তারা।জবাবে ১৬.৫ বলে ম‍্যাচ করে মুম্বাই।

৫. ইশান্ত শর্মা (৫-১২ বনাম কোচি টাস্কার্স কেরেলা,২০১১ )

TOP 10 : আইপিএলের ইতিহাসে "সেরা দশ " বোলিং স্পেল 5

ইশান্তের কেরিয়ারের বেশিরভাগ সাফলতা এসেছে টেস্ট ক্রিকেটে ,যদিও সীমিত ওভারের ক্রিকেটেও তার পারফরম্যান্স খুব একটা খারাপ নয়।কোচির বিরুদ্ধে এই ম‍্যাচটাকেই নেওয়া যেতে পারে উদাহরণ হিসেবে।প্রথমে ব‍্যাট করতে নেমে ৭ উইকেটের বিনিময়ে ১২৯ রান করে ডেকান চার্জাস।যদিও পরবর্তী সময়ে ইশান্তের দুর্দান্ত বোলিং পারফরম্যান্স তাদের দলকে জয় এনে দেয় এই ম‍্যাচে।

৪. অনিল কুম্বলে (৫-৫ বনাম রাজস্থান রয়‍্যালস,২০০৯ )

TOP 10 : আইপিএলের ইতিহাসে "সেরা দশ " বোলিং স্পেল 6

২০০৯ সালে গ্রুপ লিগের ম‍্যাচে রাজস্থান রয়‍্যালসের মুখোমুখি রয়‍্যাল চ‍্যালেন্জার্স ব‍্যাঙ্গালোর।ম‍্যাচে দুরন্ত বোলিং করেছিলেন কিংবদন্তী ভারতীয় স্পিনার অনিল কুম্বলে।মাত্র ৩ . ১ ওভার বোলিং করে তিনি নেন পাঁচটি উইকেট।একটিও বাউন্ডারি খাননি তিনি।

৩. এ্যডাম জাম্পা (৬-১৯ বনাম সানরাইজার্স হায়দ্রাবাদ,২০১৬ )

TOP 10 : আইপিএলের ইতিহাসে "সেরা দশ " বোলিং স্পেল 7

আইপিএলে নেই রাইজিং পুনে সুপারজায়ান্টস, কিন্তু থেকে যাবে এই দলের হয়ে গড়া এ্যডাম জাম্পার রেকর্ড।দ্বিতীয় বোলার হিসেবে আইপিএলে একটি ম‍্যাচে ছয় উইকেট নেওয়ার রেকর্ড গড়েছিলেন তিনি।ম‍্যাচে সান‍রাইজার্স হায়দ্রাবাদের মিডল অর্ডার’কে একাই উড়িয়ে দেন জাম্পা যার জেরে ১৩৭ রানে আটকে তারা।পরবর্তী সময়ে ম‍্যাচ জিততে অসুবিধা হয়নি জাম্পার দলের।

২. সোহেল তানভির (৬-১৪ বনাম চেন্নাই সুপার কিংস, ২০০৮ )

 

১১ বছর ধরে আইপিএলের বেস্ট স্পেলের রেকর্ডটি নিজের দখলে রেখেছিলো সোহেল তানভীর।প্রথম বার আইপিএল জয়ী দলের সদস্য ছিলেন তানভির।প্রথম বছর গ্রুপ লিগের ম‍্যাচে চেন্নাইয়ের বিপক্ষে জ্বলে উঠেছিলেন তিনি।প্রথমে বিপক্ষ দলের উপরের দিকে ব‍্যাটসম‍্যান, এবং পরের দিকে লোয়ার অর্ডার’কে ডাগ আউটে ফেরায় এই পাকিস্তানি বোলার।মাত্র ১০৯ রানে শেষ হয়ে যায় ধোনিদের ইনিংস।

১. আলজারি জোসেফ (৬-১২ বনাম সানরাইজার্স হায়দ্রাবাদ ,২০১৯ )

২০১৯ সালে আইপিএলের প্রথম ম‍্যাচ খেলতে নেমেছিলেন এই তরুণ প্রতিভাবান বোলার।এবং স্বপ্নের অভিষেক হয় তার মুম্বাই ইন্ডিয়ান্সের হয়ে।প্রথমে ব্যাট করতে ২০ ওভার শেষে ১৩৬/৭ করে রোহিতরা।জেতার আশা ছেড়ে দিয়েছিলেন অনেকেই ।কিন্তু এইরকম একটি সময় জোসেফের দুরন্ত বোলিং ৯৬ রানে গুটিয়ে দেয় সানরাইজার্স হায়দ্রাবাদ’কে।

Leave a comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *