IPL ২০২১ এর বায়ো বাবলে করোনা কীভাবে এল তার খোলসা হল, এর হচ্ছিল ব্যবহার 1

আইপিএল ২০২১ বিসিসিআই যতই অনিশ্চিত সময়ের জন্য স্থগিত করে দিক, কিন্তু বায়ো বাবলের ভেতরে করোনা প্রবেশ নিয়ে এখনও বেশকিছু ধরণের প্রশ্ন উঠছে। যা নিয়ে এখন আলাদা আলাদা দাবি করা হচ্ছে। এই রিপোর্টের মাধ্যমে এমন কিছু তথ্যের খোলসা আমরা করতে চলেছি যাতে আন্দাজ করা যেতে পারে যে কীভাবে কড়া সুরক্ষা সত্ত্বেও এই ভাইরাসের প্রবেশ বায়ো বাবলের হয়ে থাকবে।

আইপিএল চলাকালীন একটি মামলাও সামনে আসেনি – নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক খেলোয়াড়

IPL ২০২১ এর বায়ো বাবলে করোনা কীভাবে এল তার খোলসা হল, এর হচ্ছিল ব্যবহার 2

বিশ্বের সবচেয়ে বড়ো লীগে ৪জন খেলোয়াড় আর ২ জন কোচের সংক্রমিত হওয়ার খবর আসার পর এই সপ্তাহে মঙ্গলবার বোর্ড এই আইপিএল ২০২১ কে অনিশ্চিতকালের জন্য স্থগিত করার সিদ্ধান্ত নিয়েছিল। এই অবস্থায় পিটিআই এই টুর্নামেন্টের অংশ থাকা কিছু খেলোয়াড়ের কাছে এটা জানার চেষ্টা করেছে যে সংক্রমণ হওয়ার মামলা সামনে আসার পর বায়ো বাবলে কী পরিস্থিতি ছিল? এই প্রশ্নের জবাব দিতে গিয়ে নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক এক খেলোয়াড় জানিয়েছেন যে এটা ইউএই-এর মতো ততটা সুরক্ষিত ছিল না, যেখানে আইপিএল চলাকালীন একটিও সংক্রমণের মামলা সামনে আসেনি। তবে সেই সময় এই লীগের শুরুর আগেই যতই কিছু খেলোয়াড়ের পজিটিভ হওয়ার কেস দেখতে পাওয়া যাক, কিন্তু এরপর পরিস্থিতি একদম স্বাভাবিক ছিল।

করোনার ক্রমবৃদ্ধিমান সংক্রমণ দেখে ভয় পেয়ে গিয়েছিলেন বিদেশী খেলোয়াড়রা – শ্রীবৎস গোস্বামী

IPL ২০২১ এর বায়ো বাবলে করোনা কীভাবে এল তার খোলসা হল, এর হচ্ছিল ব্যবহার 3

ভারতীয় অনুর্ধ্ব ১৯ দলের এক সময়ের সদস্য থাকা শ্রীবৎস গোস্বামী শুরু থেকেই আইপিএল ২০২১ এর সঙ্গে যুক্ত ছিলেন। এই ব্যাপারে কথা বলতে গিয়ে তিনি বলেছেন যে তাদের এই ব্যাপারে কোনো আশঙ্কা ছিল না যে কনো খেলোয়াড় বা সহযোগী সদস্য কোভিড-১৯ এর বিধিনিষেধ বা কোনো নিয়ম ভেঙেছিলেন। তিনি বলছেন, “বাবলের ভেতরে আমাদের বিশেষ দেখভাল হচ্ছিল। কোনো খেলোয়াড় বা সাপোর্ট স্টাফ এর উলঙ্ঘন করেনি। কিন্তু এই ব্যাপারটা উপেক্ষা করা যাবে না যে ভাইরাসের বায়ো বাবলে এন্ট্রি নেওয়ার পর থেকেই প্রত্যেক খেলোয়াড় অসহজ হয়ে গিয়েছিল, বিশেষ করে বিদেশী খেলোয়াড়রা”।

ইউএই-এর মতো এখানের বায়োবাবল ততটা মজবুত ছিল না

IPL ২০২১ এর বায়ো বাবলে করোনা কীভাবে এল তার খোলসা হল, এর হচ্ছিল ব্যবহার 4

এর সঙ্গেই নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক এক খেলোয়াড় জানিয়েছেন, “ভারতীয় ক্রিকেট বোর্ড আর দলগুলি নিজেদের তরফে সম্পূর্ণ চেষ্টা করেছে। কিন্তু বায়োবাবল সংযুক্ত আরব আমিরাতের মতো মজবুত হতে পারেনি। আর আপনি মানুষে যেতে আসতে দেখতে পারতেন, তা সে আলাদা আলাদা ফ্লোরেই থাকুক না কেনো। এমনকী আমি বেশকিছু মানুষকে পুলেরও ব্যবহার করতে দেখেছিলাম। এর সঙ্গে প্র্যাকটিসের সঙ্গে যুক্ত সুযোগসুবিধাও যথেষ্ট দূরে ছিল”।

suvendu debnath

কবি, সাংবাদিক এবং গদ্যকার। শচীন তেন্ডুলকর, ব্রায়ান লারার অন্ধ ভক্ত। ক্রিকেটের...

Leave a comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *