আসন্ন আইসিসি বিশ্ব টেস্ট চ্যাম্পিয়নশিপের নিয়মে এল বড়সড় বদল, এই সুবিধা আর পাবে না ভারত 1

আইসিসি ওয়ার্ল্ড টেস্ট চ্যাম্পিয়নশিপ ২০২১-২৩ ভারত ও ইংল্যান্ডের মধ্যে আগস্টে শুরু হতে পাঁচ ম্যাচের টেস্ট সিরিজ দিয়ে শুরু হতে চলেছে। আইসিসি টেস্ট চ্যাম্পিয়নশিপের দ্বিতীয় মরসুমের নিয়ম পরিবর্তন করেছে। প্রতিটি সিরিজের জন্য পয়েন্ট ফিক্সিংয়ের পরিবর্তে, আইসিসি এখন প্রতি ম্যাচটিতে ১২ পয়েন্ট দেবে। বলা হয়েছিল যে ড্রয়ের ক্ষেত্রে উভয় দলকে চারটি করে পয়েন্ট দেওয়া হবে। ম্যাচটি যদি টাইয়ে শেষ হয় তবে উভয় দলই ছয়টি করে পয়েন্ট পাওয়ার অধিকারী হবে।

BLACKCAPS squad confirmed for ICC World Test Championship Final

আইসিসি ওয়ার্ল্ড টেস্ট চ্যাম্পিয়নশিপ ২০১৯-২১ কোভিড ১৯ দ্বারা খারাপভাবে প্রভাবিত হয়েছিল। এর পরিপ্রেক্ষিতে, আইসিসি শেষে শতাংশের ভিত্তিতে নম্বরগুলি ঠিক করতে হয়েছিল। খুব অল্প ব্যবধানে ফাইনালে জায়গা করতে পারেনি অস্ট্রেলিয়ার দলটি।  এই মাসে গণমাধ্যমের সাথে আলাপকালে আইসিসির অন্তর্বর্তীকালীন প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা জেফ অ্যালার্ডাইস বলেছেন যে পয়েন্ট সিস্টেম পরিবর্তন করা হবে। আইসিসি বোর্ডের সদস্য পিটিআইকে বলেছিলেন, “এর আগে প্রতিটি সিরিজে দু’টি টেস্ট সিরিজ বা পাঁচ টেস্ট সিরিজ একই ১২০ পয়েন্ট থাকত। পরের রাউন্ডের প্রতিটি ম্যাচে একই সংখ্যার পয়েন্ট থাকবে – প্রতি ম্যাচ সর্বাধিক ১২ পয়েন্ট। ম্যাচে দলগুলির দ্বারা প্রাপ্ত পয়েন্টের শতাংশের ভিত্তিতে দলগুলির র‌্যাঙ্কিংয়ের সিদ্ধান্ত নেওয়া হবে।” আইসিসির প্রধান নির্বাহী কমিটির বৈঠকে পয়েন্ট পদ্ধতিতে পরিবর্তন অনুমোদনের কথা রয়েছে এই সপ্তাহে।

ICC World Test Championship: What New Zealand's qualification mean for  others in fray | News | Zee News

বোর্ডের সদস্য বলেছেন, “লক্ষ্য হ’ল পয়েন্ট সিস্টেমটি সহজ করার চেষ্টা করা এবং যে কোনও সমস্যা সারণীতে দলগুলির অর্থপূর্ণ তুলনা করা, এমনকি তারা বিভিন্ন সংখ্যক ম্যাচ এবং সিরিজ না খেলেও।” ২০২৩ সালের জুনে শেষ হওয়া দ্বিতীয় রাউন্ডে ভারত-ইংল্যান্ড সিরিজ ছাড়াও এবারের অ্যাশেজ সিরিজটি হবে একমাত্র পাঁচ ম্যাচের সিরিজ। অস্ট্রেলিয়ার পরের বছর ভারত সফর আসন্ন চক্রের একমাত্র চারটি টেস্টের সিরিজ হবে। নয়টি দলের প্রত্যেকে সর্বশেষ ছয়টি সিরিজ খেলবে, তিনটি ঘরের মাঠে এবং তিনটি প্রতিপক্ষের মাঠে গত মরসুমের মতো খেলবে। ডব্লিউটিসির প্রথম রাউন্ডের ফাইনালে ভারতকে হারিয়ে নিউজিল্যান্ড শিরোপা জিতেছিল। ইএসপিএন ক্রিকইনফো জানিয়েছে, দ্বিতীয় রাউন্ডে ইংল্যান্ড সবচেয়ে বেশি ২১ টেস্ট খেলবে, তারপরে ভারত (১৯), অস্ট্রেলিয়া (১৮) এবং দক্ষিণ আফ্রিকা (১৫) থাকবে। নিউজিল্যান্ড, ওয়েস্ট ইন্ডিজ এবং শ্রীলঙ্কার দল খেলবে ১৩টি এবং পাকিস্তান খেলবে ১৪টি টেস্ট।

Leave a comment

Your email address will not be published.